বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘মেসি আমাকে খুন করে ফেলতে চেয়েছিলেন’, চাঞ্চল্যকর দাবি PSG তারকার
মেসিকে নিয়ে বড় দাবি লিয়ান্দ্রো পারেদেসের।

‘মেসি আমাকে খুন করে ফেলতে চেয়েছিলেন’, চাঞ্চল্যকর দাবি PSG তারকার

  • মেসি মাঠে থাকলে বিপক্ষের প্লেয়াররা যে তাঁকে আটকাতে জানপ্রাণ লড়িয়ে দেবেন, এটাই স্বাভাবিক। সে রকমই একটি ম্যাচে পারেদেস কড়া ট্যাকেল করেছিলেন মেসিকে। শুধু তাই নয়, তার পরে সতীর্থদের কাছে মেসির নামে কোনও খারাপ কিছু বলেছিলেন। আর এতে মেসি এতটা চটে গিয়েছিলেন যে, পারেদেসকে পারলে খুনই করে ফেলতেন তিনি।

শান্ত, ধীরস্থির স্বভাবের লিওনেল মেসি নাকি রেগে গেলে খুনও করে ফেলতে পারেন! এমনই আজব দাবি করেছেন পিএসজি-র তারকা লিয়ান্দ্রো পারেদেস। ভাবছেন তো বিষয়টি আসলে কী?

আসলে মেসি মাঠে থাকলে বিপক্ষের প্লেয়াররা যে তাঁকে আটকাতে জানপ্রাণ লড়িয়ে দেবেন, এটাই স্বাভাবিক। সে রকমই একটি ম্যাচে লিয়ান্দ্রো পারেদেস কড়া ট্যাকেল করেছিলেন মেসিকে। শুধু তাই নয়, তার পরে সতীর্থদের কাছে মেসির নামে কোনও খারাপ কিছু বলেছিলেন। আর এতে মেসি এতটা চটে গিয়েছিলেন যে, পারেদেসকে পারলে খুনই করে ফেলতেন তিনি। আর মেসির রাগ দেখে তখন ঠকঠক করে কাঁপচ্ছিলেন লিয়ান্দ্রো পারেদেস। সেই মুহূর্তে তিনি এতটাই ভয় পেয়ে গিয়েছিলেন যে তাঁর মনে হচ্ছিল, বাড়ি পালাতে পারলে বাঁচেন।

এই ঘটনাটি অবশ্য লিওনেল মেসি যখন বার্সেলোনায় ছিলেন সেই সময়কার। তখন চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচে পিএসজি-র মুখোমুখি হয়েছিল বার্সা। আর প্যারিস সাঁ-জাঁর হয়ে মাঠে নেমেছিলেন পারেদেস। সেই ম্যাচে মেসিকে কড়া ট্যাকেল করার পর পিএসজি–র সতীর্থের কাছে মেসিকে নিয়ে উল্টোপাল্টা কিছু একটা বলেছিলেন পারেদেস। করোনার কারণে দর্শকবিহীন স্টেডিয়াম ছিল। তাই মাঠে সে ভাবে কোনও আওয়াজ ছিল না। যে কারণে পারেদেসের সব কথা মেসি শুনে ফেলেন। আর তার পর কী ঘটেছিল, পিএসজি তারকাই তা বিস্তারিত জানিয়েছেন।

সেই সময়কার ঘটনা মনে করে পারেদেস বলেছেন, ‘আমি সতীর্থদের সঙ্গে কথা বলছিলাম, আর মেসি যা শুনে মারাত্মক রেগে গিয়েছিল। আমাকে সরাসরি এসে এমন কিছু কথা বলে, শুনে মনে হচ্ছিল ও আমাকে খুনই করে ফেলবে। আমি তখন খেলা ফেলে বাড়ি পালাতে পারলে বাঁচি।’

ঘটনাচক্রে, কয়েক দিন পরেই আর্জেন্তিনার জাতীয় শিবিরে ডাক পান দুই তারকাই। ভয় নিয়েই জাতীয় শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন পারেদেস। তবে এ বারের মেসির সঙ্গে বার্সার সে দিনের তারকার আকাশ-পাতাল পার্থক্য খুঁজে পেয়েছিলেন পারেদেস। তিনি সম্পূর্ণ অন্য মেসিকে জাতীয় দলে যোগ দেওয়ার পর আবিষ্কার করেন।

পারেদেস বলেছেন, ‘ওর সঙ্গে দেখা হওয়ার পরে একবারও মনে হয়নি, আগে আমাদের মধ্যে কিছু হয়েছিল। ব্যক্তি হিসেবে ও কত বড় সেটাই বোঝা যায়। আমাদের সম্পর্ক স্বাভাবিক ছিল। এখন ওই প্রসঙ্গ উঠলে আমরা দু’জনেই হাসি। কিন্তু সে দিন পরিস্থিতি সত্যিই উত্তপ্ত ছিল।’ এখন অবশ্য পিএসজি-তে দু'জনেই সতীর্থ। আর দু'জনের সম্পর্কও খুব ভালো। একে অপরের সঙ্গে হাসিঠাট্টাও করেন।

বন্ধ করুন