বাংলা নিউজ > ময়দান > ‘আইয়ার দেখিয়ে দিয়েছে ও কতটা কঠিন মানসিকতার এবং দৃঢ় চরিত্রের মানুষ’: লক্ষ্মণ
শ্রেয়স আইয়ার।

‘আইয়ার দেখিয়ে দিয়েছে ও কতটা কঠিন মানসিকতার এবং দৃঢ় চরিত্রের মানুষ’: লক্ষ্মণ

  • অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসেই ১০৫ রানের অসাধারণ একটি ইনিংস খেলেন শ্রেয়স। তাঁর ইনিংসেই ভর করে ৩৪৫ রানে পৌঁছায় ভারত।

কথায় আছে ‘যাঁর শেষ ভলো, তাঁর সব ভালো’। বছরের শুরুটাই যেমন খুব একটা ভাল কাটেনি শ্রেয়স আইয়ারের। অথচ বছরের শেষের দিকে সাফল্য যেন তাঁর পায়ে লুটোপুটি খাচ্ছে। মার্চে ঘরের মাঠে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কাঁধে চোট পাওয়ার পর বেশ অনেকটা সময় মাঠের বাইরেই কাটাতে হয়েছিল শ্রেয়সকে। চোটের জেরে কাঁধে অস্ত্রোপ্রচারও করতে হয় তাঁকে। তবে চোট সারিয়ে উঠে আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে বেশ ভাল ছন্দে ছিলেন শ্রেয়স। আর এ বার কানপুরে অভিষেক টেস্টে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন শ্রেয়স।

তাঁর পারফরম্যান্সে মুগ্ধ প্রাক্তন তারকা ব্যাটসম্যান ভিভিএস লক্ষ্মণও। স্টার স্পোর্টসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে লক্ষ্মণ বলেছেন, ‘ভারতীয় ক্রিকেটের ক্ষেত্রে রিজার্ভ বেঞ্চ কিন্তু বেশ শক্তিশালী। আর এটা শ্রেয়স আইয়ারের প্রথম টেস্ট হতে পারে। তবে ও কিন্তু একজন প্রতিষ্ঠিত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার (সাদা বলে)। ও জানত কখন আক্রমণ করতে হবে বা কখন একটু ধরে খেলতে হবে। আর ওর খেলায় যেটা ভাল লেগেছে, সেটা হল ও ওর স্বাভাবিক খেলাটাই খেলেছে। কোনও রকম আপস না করে।’

এর সঙ্গেই লক্ষ্মণ যোগ করেছেন, ‘শেষ প্রথম-শ্রেণীর ম্যাচটি ও খেলেছিল প্রায় বছর দুয়েক আগে। একজন তরুণের জন্য সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জ হল লাল বলের ক্রিকেট থেকে সাদা বলের ক্রিকেট হঠাৎ করে খেলচে শুরু করা। এই ধরনের ক্রিকেটে মেজাজটাই আলাদা হয়। কী ধরনের শট নির্বাচন করা হবে, সেটাও কিন্তু চ্যালেঞ্জিং হয়। আইয়ার কিন্তু সেই চাপটা নিয়েই দেখিয়ে দিয়েছে, ও কতটা কঠিন মানসিকতার এবং দৃঢ় চরিত্রের মানুষ।’

আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে ভালো পারফরম্যান্স করলেও, ম্যাচ ফিটনেসের অভাবে ভারতের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে জায়গা হয়নি এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের। তবে কিউয়িদের বিরুদ্ধে সদ্য সমাপ্ত টি-টোয়েন্টি সিরিজে পুনরায় ভারতীয় দলে ফিরলেও সে ভাবে ছন্দে পাওয়া যায়নি তাঁকে।

কিন্তু বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মাদের অনুপস্থিতিতে এবং কেএল রাহুলের চোটের কারণে হঠাৎ করেই কানপুর টেস্টের প্রথম একাদশে সুযোগ পেয়ে যান শ্রেয়স। আর সেই সুযোগ হাতছাড়া করেননি শ্রেয়স। অভিষেক টেস্টের প্রথম ইনিংসেই ১০৫ রানের অসাধারণ একটি ইনিংস খেলেন শ্রেয়স। তাঁর ইনিংসেই ভর করে ৩৪৫ রানে পৌঁছায় ভারত। শুভমন গিল ৫২ এবং রবীন্দ্র জাদেজা ৫০ করেন। এ ছাড়া রবিচন্দ্রন অশ্বিন করেছেন ৩৮ রান। বাকিরা কিন্তু সে ভাবে ভারতকে নির্ভরতা দিতে পারেননি। সেখানে শ্রেয়সের সেঞ্চুরি ভারতের কাছে বড় মুলধন।

বন্ধ করুন