বাংলা নিউজ > ময়দান > রেকর্ড জয়! হংকংকে ৩৮ রানে উড়িয়ে পাকিস্তানের ইতিহাসে নাম বাবরদের
পাকিস্তানের ইতিহাসে নাম বাবরদের। ছবি টুইটার

রেকর্ড জয়! হংকংকে ৩৮ রানে উড়িয়ে পাকিস্তানের ইতিহাসে নাম বাবরদের

  • এদিন প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান দল নির্ধারিত ২০ ওভারে ২ উইকেট ১৯৩ রান করে। কিপার ব্যাটার মহম্মদ রিজওয়ান ৭৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। ফখর জামান করেন ৫৩ রান। ১৫ বলে ৩৫ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন খুশদিল শাহ।

শুভব্রত মুখার্জি: ১৯৯৮ সালের কোকাকোলা কাপে সচিনের ব্যাটে অজিদের বিরুদ্ধে 'মরুঝড়'র সাক্ষী ছিল শারজা। আর এদিন বল হাতে শাদাব, মহম্মদ নওয়াজদের ভেল্কির সাক্ষী থাকল তারা। এদিন হংকং ব্যাটাররা শাদাবদের বল বুঝে ওঠার আগেই তাদেরকে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখালেন পাক বোলাররা। আর ফলস্বরূপ পাকিস্তান তাদের টি-২০ ইতিহাসে পেয়ে গেল সর্বাধিক ব্যবধানে জয়।‌ বলা ভালো নিজেদের টি-২০ ইতিহাসে নয়া নজির গড়ল তারা।

এদিন পাক বোলারদের সামনে খড়কুটোর মতো উড়ে গেল হংকংয়ের ব্যাটাররা। নিজের নির্ধারিত ২০ ওভারও তারা খেলতে পারেনি। মাত্র ১০.৪ ওভারেই অল আউট হয়ে গিয়েছে তারা। বলা ভালো ১০ ব্যাটার মিলে দলের রান অর্ধশতকও পার করতে পারেনি। মাত্র ৩৮ রানে অলআউট হয়ে যায় গোটা দল। ফলে ১৫৫ রানের বড় জয় তুলে নিয়ে নিজেদের টি-২০ ইতিহাসে সর্বাধিক ব্যবধানে জয়ের নজির গড়ল তারা।

এদিন প্রথমে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তান দল নির্ধারিত ২০ ওভারে ২ উইকেট ১৯৩ রান করে। কিপার ব্যাটার মহম্মদ রিজওয়ান ৭৮ রান করে অপরাজিত থাকেন। ফখর জামান করেন ৫৩ রান। ১৫ বলে ৩৫ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন খুশদিল শাহ। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৩৮ রানে অলআউট হয়ে যায় গোটা দল। দলের কোনও ব্যাটার দুই অঙ্কের রান করতে পারেননি। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৮ রান করেন নিজাখাত খান। শাদাব খান মাত্র ৮ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন। মহম্মদ নওয়াজ মাত্র ৫ রান দিয়ে নেন তিনটি উইকেট।

বন্ধ করুন