বাংলা নিউজ > ময়দান > ৩৬ অল আউটের পর ভোকাল টনিক দেন সৌরভ, ফাঁস করলেন রাহানে

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে ব্রিসবেনের গাব্বাতে দ্রুত গতির বাউন্স পূর্ণ উইকেটে তাঁর করা ১৪৪ রানের ইনিংসটা আজও ভারতীয় ক্রিকেটের ইতিহাসের লোকগাথায় অমর হয়ে রয়েছে। সেই সিরিজ ভারত জিততে না পারলেও ১-১ ফলে সিরিজ ড্র হয়েছিল। আর বলা বাহুল্য সেই সিরিজের 'টোন' সেট করে দিয়েছিল তৎকালীন ভারত অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সেই ইনিংস। মূলত সেই সিরিজের পর থেকেই অজিভূমে ভারতীয় দলের পারফরম্যান্স ধারাবাহিক ভাবে উন্নতি করেছে। ২০১৮-১৯ সালে বিরাটরা অজিদের মাটিতে প্রথম টেস্ট সিরিজ ও জেতে। আর সদ্য শেষ হওয়া টেস্ট সিরিজে জয়লাভ করে ভারত বর্ডার গাভাস্কার ট্রফি নিজেদের কাছে রেখে দিয়েছে।

তবে এবারের সিরিজ জয়টি সবদিক থেকে ছিল অনন্য। চোট আঘাতে জর্জরিত ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দল, রেগুলার অধিনায়ক তথা বিশ্ব শ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যান বিরাটের অনুপস্থিতি, তার উপর অ্যাডিলেড টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৬ রানে অলআউটের লজ্জা কাটিয়ে আজিঙ্কা রাহানে যেভাবে দলকে তথা দেশকে সিরিজ জয়ের মধ্যে দিয়ে সম্মানিত করেছেন তা এককথায় অনবদ্য। সেই রাহানে এবার ফাঁস করলেন অজানা এক কাহিনী।

১৯ ডিসেম্বর, ২০২০ ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে অন্যতম কালো দিন বললে ও অত্যুক্তি হবে না । অ্যাডিলেডে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সিরিজের প্রথম টেস্টে মাত্র ৩৬ রানে শেষ হয় ভারতের দ্বিতীয় ইনিংস। টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে এক ইনিংসে যা ভারতের সর্বনিম্ন স্কোর। ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি পিতৃত্বকালীন ছুটির কারণে দেশে ফিরে গেলে অ্যাডিলেড বিপর্যয়ের পর নেতৃত্বের গুরুদায়িত্ব পড়ে আজিঙ্কা রাহানের উপর। রাহানে জানান সেসময় বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ফোন করে তাদেরকে ভরসা দিয়েছিলেন,আস্থা রাখার কথা জানিয়েছিলেন,তাতানোর চেষ্টা করেছিলেন রাহানেকে। যা মূহুর্তে বাড়িয়েছিল দলের মনোবল।

এক সাক্ষাৎকারে রাহানে বলেন 'অ্যাডিলেড টেস্টের পর দাদা ফোন করে শক্ত থাকার কথা বলেন । নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে বলেন। বিশ্বাস রাখতে বলেন দলের ক্ষমতার উপরেও। আর এই ফোন মনোবল বাড়ানোর টনিক হিসেবে কাজ করে দলনেতা রাহানের জন্য । দাদা-র পেপ টকেই চাঙ্গা হয়ে খাদের কিনারা থেকে ঘুরে দাঁড়ানোর সাহস পায় তারা। ফলস্বরূপ মেলবোর্নে দুরন্ত কামব্যাক করে টিম ইন্ডিয়া। অধিনায়ক রাহানে ও অসাধারণ শতরান করেন। টেস্টে সিরিজে সমতা ফেরায় ভারত। বাকিটা তো ইতিহাস। 

বন্ধ করুন