বাংলা নিউজ > ময়দান > HT NxT: ধার করা জুতো পরেই ভাগ্যক্রমে অল-রাউন্ডার হয়ে ওঠেন হার্দিক পান্ডিয়া
হার্দিক পান্ডিয়া। ফাইল ছবি- বিসিসিআই।
হার্দিক পান্ডিয়া। ফাইল ছবি- বিসিসিআই।

HT NxT: ধার করা জুতো পরেই ভাগ্যক্রমে অল-রাউন্ডার হয়ে ওঠেন হার্দিক পান্ডিয়া

  • টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান থেকে পেসার অল-রাউন্ডার হয়ে ওঠার গল্প শোনালেন টিম ইন্ডিয়ার তারকা ক্রিকেটার।

ধার করা জুতো পরেই অল-রাউন্ডারে পরিণত হয়েছেন হার্দিক পান্ডিয়া। টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যান থেকে নিজের পেসার অল-রাউন্ডার হয়ে ওঠার এমনই চমকপ্রদ গল্প শোনালেন হার্দিক।

HT NxT-এ আয়াজ মেমনের সঙ্গে আলোচনায় যোগ দিয়েছিলেন কিংবদন্তি কপিল দেব ও হার্দিক পান্ডিয়া। সেখানেই পান্ডিয়া জানান যে, তিনি ভাগ্যক্রমে কাকতলীয়ভাবেই পেস বোলিং শুরু করেন, যা তাঁকে পরবর্তী সময়ে অল-রাউন্ডার হিসেবে প্রতিষ্ঠা দেয়।

কীভাবে অল-রাউন্ডার হয়ে উঠলেন, এপ্রসঙ্গে পান্ডিয়া বলেন, ‘আমার কাছে বিষয়টা সহজ। আমি কাকতলীয়ভাবেই অল-রাউন্ডারে পরিণত হয়েছি। অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ে আমি সতীর্থ বোলারদের সাহায্য করার জন্যই বোলিং শুরু করি। ওরা প্রচুর বল করে ক্লান্ত হয়ে গেলে আমি কারও জুতো ধার করে বল করতাম। আসলে আমি ব্যাটসম্যান ছিলাম। তিন নম্বরে ব্যাট করতাম। ফাস্ট বোলিং করার মতো জুতো ছিল না আমার।’

পরক্ষণেই পান্ডিয়া বলেন, ‘সনৎ কুমার স্যার ২০০ মিটার দূর থেকে অনূর্ধ্ব-১৯’এ আমাদের অনুশীলন দেখছিলেন। পরের দিন আমাদের একটি লোকাল ম্যাচ দেখতে আসেন উনি। আমি কিরণ মোরে অ্যাকাডেমির হয়ে মাঠে নেমেছিলাম। গ্রিনটপ পিচ ছিল। বাড়তি পেসার ছিল না। তাই আমি কারও জুতো ধার করে বল করি এবং পাঁচ উইকেট নিই সেই ম্যাচে। একারণেই আমি বলি যে, ভগ্যক্রমে অল-রাউন্ডারে পরিণত হয়েছি। সনৎ স্যার এক মাস পরে আমাকে রঞ্জি ট্রফির স্কোয়াডে ঢুকিয়ে দেন। তার আগে পর্যন্ত আমি কখনও বল করিনি।'

বন্ধ করুন