বাংলা নিউজ > ময়দান > HTLS 2022: বদলে যাবে দৃষ্টিভঙ্গি, BCCI-এর যুগান্তকারী সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়বে সব খেলায়, দাবি মিতালি-ঝুলনের

HTLS 2022: বদলে যাবে দৃষ্টিভঙ্গি, BCCI-এর যুগান্তকারী সিদ্ধান্তের প্রভাব পড়বে সব খেলায়, দাবি মিতালি-ঝুলনের

হিন্দুস্তান টাইমস লিডারশিপ সামিটে মিতালি-ঝুলন। ছবি- হিন্দুস্তান টাইমস।

Hindustan Times Leadership Summit 2022: ছেলেদের মতোই সমান ম্যাচ ফি, হিন্দুস্তান টাইমস লিডারশিপ সামিটের আলোচনায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানালেন মিতালি রাজ ও ঝুলন গোস্বামী।

ছেলেদের আইপিএলের পাশাপাশি মেয়েদের পূর্ণাঙ্গ আইপিএল শুরু হতে চলেছে আগামী মরশুম থেকেই। তবে তার আগেই বিসিসিআই আরও বড়সড় সিদ্ধান্ত নিয়েছে গত এজিএমে। ছেলেদের মতোই প্রতি ম্যাচের জন্য সমপরিমাণ ম্যাচ ফি পাবেন মেয়েরাও। এতদিন ছেলেদের ম্য়াচ ফির-র সঙ্গে মেয়েদের ম্যাচ ফি-র ফারাক ছিল বিস্তর।

বিসিসিআইয়ের এমন যুগান্তকারী সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানান ভারতের দুই কিংবদন্তি মহিলা ক্রিকেটার মিতালি রাজ ও ঝুলন গোস্বামী। হিন্দুস্তান টাইমস লিডারশিপ সামিটে এই বিষয়ে নিজেদের মতামত জানান সদ্য প্রাক্তন দুই ভারতীয় তারকা।

মিতালি বলেন, ‘মহিলা ক্রিকেটের জন্য এটা একটা মাইলস্টোন। বিসিসিআই সঠিক সময়ে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যদি আমরা মেয়েদের ক্রিকেটকে সেই জায়গায় দেখতে চাই, যে পর্যায়ে আজ ছেলেদের ক্রিকেট দাঁড়িয়ে, তবে এটা যথাযথ পদক্ষেপ। উঠতি ক্রিকেটার ও তাদের মা-বাবাদের আত্মবিশ্বাস জোগাবে বিসিসিআইয়ের এই সিদ্ধান্ত। ক্রিকেটকে কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার ক্ষেত্রে বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত উদ্বুদ্ধ করবে।’

আরও পড়ুন:- কীভাবে সহজেই সচিনের ১০০ সেঞ্চুরির রেকর্ড ভাঙতে পারেন কোহলি, হিসাব দিলেন ব্রেট লি

তিনি আরও বলেন, 'যে সব মেয়েরা ক্রিকেটের জন্য যাবতীয় সময়, শক্তি ও মনোসংযোগ ব্যয় করতে চায়, তাদের মধ্যে বিশ্বাস জন্মাবে যে, পেশা হিসেবে ক্রিকেটকে বেছে নেওয়া যায়। ছেলেদের মতোই সমান ম্যাচ ফি পাওয়া গেলে অন্য কোনও পেশার খোঁজ করতে হবে না মেয়েদের। ক্রিকেট খেলেই পরিবারের দেখাশোনা করা যাবে এবং যাবতীয় খরচ বহন করা যাবে। সব মিলিয়ে সঠিক দিতে এটা একটা বড় পদক্ষেপ।'

এপ্রসঙ্গে ঝুলন গোস্বামী বলেন, ‘আমি বিষয়টাকে অন্যভাবে দেখছি। বোর্ডের এই সিদ্ধান্ত আমাদের সমাজে বড় প্রভাব ফেলবে। আমরা যে ধরণের পরিবেশ থেকে উঠে এসেছি, যেখানে শিশুকন্যাদের কাছে খেলা কখনই প্রাথমিক বিষয় নয়। এখন মানুষ অন্যভাবে ভাবতে শুরু করবে। এখন মা-বাবারা বলতে পারবেন যে, যাও খেলাকে পেশা হিসেবে বেছে নাও। সেটা যে কোনও খেলাই হতে পারে। এটা লিঙ্গবৈষম্য ঘোচানোর পথে একটা বড় উদ্যোগ।’

আরও পড়ুন:- Video: অ্যাডিলেডের নেটে চোট পেলেন রোহিত, সেমিফাইনালের আগে আতঙ্ক ছড়াল ভারতীয় শিবিরে, খেলতে পারবেন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে?

ঝুলন আরও বলেন, ‘দ্বিতীয়ত, ভারতে ক্রিকেটের পাশাপাশি মেয়েরা আরও অনেক খেলাধুলোয় অংশ নেয়। তারা ছেলেদের মতো সমান সুযোগ সুবিধা পায় না। আমাদের ভাগ্য ভালো যে, ক্রিকেটে আমরা ছেলেদের মতোই সমান সুযোগ সুবিধা পেয়ে এসেছি। হতে পারে সমান ম্যাচ ফি সবে মাত্র শুরু হয়েছে। তবে অন্যান্য খেলায় মেয়েরা ছেলেদের মতো একই রকম সুবিধা ভোগ করে না। বিসিসিআইয়ের এই সমান ম্যাচ ফি-র সিদ্ধান্ত অন্যান্য ক্রীড়া সংস্থাগুলিকেও মেয়েদের জন্য সমান সুযোগ সুবিধা ও একই রকম সম্মান দেওয়ার কথা ভাবতে বাধ্য করবে। এটা ভারতের ক্রীড়া সংস্কৃতির জন্য ভালো দিক। সুতরাং, এটা একটা বড়সড় পদক্ষেপ। এর জন্য় বিসিসিআইকে ধন্যবাদ। অনেকদিন ধরেই ভাবনা-চিন্তা চলছিল। আমরা দু'জনেও এই নিয়ে বহু আলোচনা করেছি। তবে সবকিছুই বদলাতে একটু সম লাগে এবং আমার মনে হয় এটাই সঠিক সময়।' 

উল্লেখ্য, আগে ভারতের মহিলা ক্রিকেটাররা প্রতিটি টেস্ট ম্য়াচের জন্য ৪ লক্ষ টাকা এবং প্রতিটি ওয়ান ডে ও টি-২০ ম্যাচের জন্য ১ লক্ষ টাকা করে ম্যাচ ফি পেতেন। এবার থেকে মহিলা ক্রিকেটাররাও প্রতিটি টেস্টের জন্য ছেলেদের মতোই ১৫ লক্ষ টাকা করে ম্যাচ ফি পাবেন। প্রতিটি ওয়ান ডে ম্যাচের জন্য ৬ লক্ষ এবং প্রতিটি টি-২০ ম্যাচের জন্য ৩ লক্ষ টাকা করে পারিশ্রমিক পাবেন হরমনপ্রীতরা।

বন্ধ করুন