বাংলা নিউজ > ময়দান > ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভাল খেলেও পরের সিরিজে বাদ, হতাশ হয়েছিলেন এই ভারতীয় তারকা

ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভাল খেলেও পরের সিরিজে বাদ, হতাশ হয়েছিলেন এই ভারতীয় তারকা

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ভারতীয় দল

নিজের হতাশার কথা গোপন করলেন না কেএল রাহুল।

শুভব্রত মুখার্জি: ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ম্যাচ জয়ের কাছাকাছি পৌঁছেও ভারত শেষ পর্যন্ত ফাইনালে যেতে পারেনি। সেবার নিউজিল্যান্ড দলের কাছে হেরে গিয়েছিল বিরাটের নেতৃত্বাধীন ভারতীয় ক্রিকেট দল। রান তাড়া করতে নেমে প্রথম দিকে পরপর উইকেট হারিয়ে ভারত কার্যত ম্যাচ থেকে ছিটকে গিয়েছিল। সেখান থেকে রবীন্দ্র জাদেজা এবং মহেন্দ্র সিং ধোনির লড়াইয়ে ভারত ম্যাচ একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত নিতে সক্ষম হয়। তবে ম্যাচে কাঙ্ক্ষিত জয় আসেনি। টুর্নামেন্ট শুরুর আগেই ভারতের নিয়মিত ওপেনার শিখর ধাওয়ান চোটের কারণে ছিটকে গিয়েছিলেন। দলে জায়গা পাওয়া বিজয় শঙ্কর টুর্নামেন্টের মাঝপথে চোটের কারণে ছিটকে যান। সেই সময়তে ভারতের হয়ে চার নম্বরে ব্যাট করা কেএল রাহুলকে ওপেনার হিসেবে তুলে আনা হয়। ব্যাট হাতে যথেষ্ট ভাল পারফরম্যান্স করলেও ঠিক পরের সিরিজেই দল থেকে বাদ পড়তে হয়েছিল তাকে। এতদিন পরে সে বিষয়েই নিজের হতাশার কথা গোপন করলেন না কেএল রাহুল।

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপে ৯ টি ম্যাচে দুটি অর্ধশতরান, ১টি শতরান সহ মোট ৩৬১ রান করেছিলেন রাহুল। বিশ্বকাপ শেষেই ভারতের ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ ছিল। সেই সিরিজ থেকেই বাদ পড়েন রাহুল। তিনি জানান বিষয়টি খুব হতাশাজনক ছিল। সেই হতাশা কাটিয়ে উঠতে তাকে সাহায্য করেছিলেন উইন্ডিজ তারকা ক্রিস গেইল।

ইউটিউব শো 'ব্রেকফাস্ট উইথ চ্যাম্পিয়ন' অনুষ্ঠানে তিনি জানান 'আমার মনে আছে ২০১৯ বিশ্বকাপ ক্রিকেট খেলার পরবর্তীতে আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গিয়েছিলাম সিরিজ খেলতে। আমি বিশ্বকাপে খেলি। বিশ্বকাপে মোটামুটি ভাল পারফরম্যান্স আমি করেছিলাম। তারপরে আমরা যে সিরিজ খেলতে যাই সেই দল থেকে আমাকে বাদ দেওয়া হয়েছিল। আমি ওকে (গেইল) মেসেজ করছিলাম। আমাকেও লেখে তুমি পুলের পাশে এস। আমি পানীয় গ্রহণ করছি। ও পুলের পাশে আমার সঙ্গে বসে। আমাকে ব্যাখ্যা করে কেন আমি এই সফর থেকে বাদ পড়েছি। আমি অত্যন্ত হতাশ ছিলাম। আমি বিশ্বকাপে ভাল খেলার পরেও এই সিরিজে নেই। এর কোনও যুক্তি নেই। তারপর আমি ওর (গেইল) সঙ্গে ক্যাজুয়ালি কথা বলছিলাম। আমাকে বলছিল দেখ ১০০ টা কারণ থাকতে পারে কেন তুমি খেলছ না তার। তবে যে বিষয়টা তোমার হাতে আছে তা হল ওরা যদি ৭০ এ খুশি না হয় তুমি ১৫০ কর, ১৫০ করতে পারলে ২০০ কর। এইভাবেই তুমি জিনিসটা দেখ। আইপিএলের মরশুমে ৬০০ রানে ওদের মন না ভরলে ৮০০ কর। বিশ্বকাপে তুমি বেশ কয়েকটা ৫০,৬০ রানের ইনিংস খেলেছ তোমার উচিত ছিল ওইগুলোকে ১০০-১২০ রানের ইনিংসে কনভার্ট করা।'

বন্ধ করুন