বাংলা নিউজ > ময়দান > আমি ক্রিকেট দেখি না, তাই জানতাম না তিনি কে? পন্তকে উদ্ধার করা বাস চালকের উত্তরে অবাক সকলে

আমি ক্রিকেট দেখি না, তাই জানতাম না তিনি কে? পন্তকে উদ্ধার করা বাস চালকের উত্তরে অবাক সকলে

সুশীল কুমার।

সুশীল কুমার বলেন, ‘আমরা ওঁকে জিজ্ঞেস করতে থাকলাম, ঠিক আছে কিনা! ওঁকে জল খাওয়ার কথা বলেছিলাম। একটু ধাতস্থ হওয়ার পর জানালেন, তিনি ঋষভ পন্ত। আমি ক্রিকেট দেখি না, তাই আমি জানতাম না, তিনি কে, কিন্তু আমার কন্ডাক্টর তখন আমাকে বলেছিলেন সুশীল... উনি একজন ভারতীয় ক্রিকেটার।’

শুক্রবার সকালে একটি ভয়ঙ্কর গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিলেন ভারতের তারকা উইকেটরক্ষক ব্যাটার ঋষভ পন্ত। তাঁকে দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করেন স্থানীয় এক বাস চালক। তিনিই জানিয়েছেন যে, ভারতীয় ক্রিকেটারের গাড়িতে আগুন লেগে যাওয়ায় তিনি গাড়ি থেকে বের হয়ে এসেছিলেন। সেই দুর্ঘনার গল্প জানিয়েছিলেন বাসের চালক সুশীল কুমার। সুশীল দুর্ঘটনার সময়ে সেখানেই উপস্থিত ছিলেন এবং অবিলম্বে ক্রিকেটারকে উদ্ধার করতে এগিয়ে এসেছিলেন। সকলকে অবাক করার বিষয় হল যে পন্তকে উদ্ধার করার সময় সেই বাস চালক পন্তকে চিনতেই পারেননি। কারণ সুশীল কুমার নাকি ক্রিকেটই দেখেন না। সুশীল জানিয়েছেন যে, তিনি রাস্তার অন্য দিকে বাস নিয়ে হরিদ্বার থেকে হরিয়ানা যাচ্ছিলেন, তখন তিনি পন্তের গাড়িটিকে দুর্ঘটনার কবলে পড়তে দেখেন।

আরও পড়ুন… IPL-এ ধনী ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে ধোনিকে টপকে শীর্ষে রোহিত, হিটম্যানের আয় জানলে চমকে যাবেন

সুশীল কুমার সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘আমি হরিয়ানা রোডওয়েজ, পানিপত ডিপোর একজন চালক। আমাদের বাস হরিদ্বার থেকে সকাল ৪টে ২৫ মিনিটে ছেড়েছে। আমি যখন যাচ্ছিলাম, তখন আমি একটি গাড়ি দেখতে পেলাম, যেটা খুব দ্রুত গতিতে যাচ্ছিল। ভারসাম্যহীন হয়ে ধাক্কা খায় ডিভাইডারে। ধাক্কা খেয়ে গাড়িটি রাস্তার অন্য প্রান্তে চলে যায় - যেটি দিল্লির দিকে যায়। গাড়িটি রাস্তার দ্বিতীয় লেনের দিকে চলে গিয়েছিল, যা দেখে আমি সঙ্গে সঙ্গে ব্রেক লাগাই। আমি এবং কন্ডাক্টর ওঁকে গাড়ি থেকে নামানোর জন্য ছুটে আসি। ততক্ষণে আগুন ধরে গিয়েছে। তার পরে, আরও তিন জন দৌড়ে এসে ওঁকে নিরাপদে নিয়ে আসতে সাহায্য করে।’

আরও পড়ুন… শীঘ্রই সুস্থ হয়ে উঠুন- ভয়ঙ্কর গাড়ি দুর্ঘটনার পরে ঋষভ পন্তের জন্য বিরাট কোহলির বার্তা

সুশীল কুমার বলেন, ‘আমরা সাহায্যের জন্য চেষ্টা করছিলাম। কিন্তু কেউ আসেনি। আমি জাতীয় সড়কে সাহায্যের জন্য চিৎকার করছিলাম, কেউ সাড়া দেয়নি। তার পর আমি দৌড়ে পুলিশের কাছে গেলাম এবং কন্ডাক্টর একটি অ্যাম্বুলেন্সের জন্য ফোন করল। আমরা ওঁকে জিজ্ঞেস করতে থাকলাম, ঠিক আছে কিনা! ওঁকে জল খাওয়ার কথা বলেছিলাম। একটু ধাতস্থ হওয়ার পর জানালেন, তিনি ঋষভ পন্ত। আমি ক্রিকেট দেখি না, তাই আমি জানতাম না, তিনি কে, কিন্তু আমার কন্ডাক্টর তখন আমাকে বলেছিলেন সুশীল... উনি একজন ভারতীয় ক্রিকেটার।’

সেই বাস চালক আরও জানিয়েছেন, ‘তিনি আমাদেরকে ওঁর মায়ের নম্বর দিয়েছিলেন। আমরা তাঁকে ফোন করেছিলাম কিন্তু তাঁর ফোন বন্ধ ছিল। অ্যাম্বুলেন্সটি ১৫ মিনিট পর এসে পৌঁছায় এবং আমরা ওঁকে উঠিয়ে দিই। ওঁর টাকাও রাস্তায় ছড়িয়ে পড়েছিল, যা আমরা তুলে নিয়েছিলাম এবং ওঁর হাতে দিয়েছিলাম। আমি ওঁকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, উনি গাড়িতে একা আছেন কিনা। তিনি জানান, আর কেউ নেই। ওঁর মুখে রক্ত লেগে ছিল এবং ওঁর জামাকাপড় ছিঁড়ে গিয়েছিল। পিঠেও বাজে ভাবে চোট লেগেছিল। উনি আতঙ্কিত ছিলেন এবং তাঁর ঠোঁট কাঁপছিল।’

বন্ধ করুন