বাংলা নিউজ > ময়দান > প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে গড়পড়তা পারফরম্যান্সের পরেও রুতুরাজে আস্থা কোচ দ্রাবিড়ের
রাহুল দ্রাবিড়। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে এএফপি)

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে গড়পড়তা পারফরম্যান্সের পরেও রুতুরাজে আস্থা কোচ দ্রাবিড়ের

  • দ্রাবিড় আরও জানিয়েছেন কারুর পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি হতাশ নন। অর্থাৎ ইঙ্গিত স্পষ্ট যে গড়পড়তা পারফরম্যান্সকারীদেরও ভবিষ্যতে সুযোগ দেওয়া হবে। বিশাখাপত্তনম টি-২০তে রুতুরাজ গায়রকোয়াড় ২৫ বলে ৫৭ রান করেন। যা ওই ম্যাচে ভারতের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল।

শুভব্রত মুখার্জি: চেন্নাই সুপার কিংস দলের হয়ে শেষ কয়েকটা আইপিএলে দুরন্ত পারফরম্যান্স করেছেন রুতুরাজ গায়রকোয়াড়। ওপেনারের ভূমিকায় সাবলীল ব্যাটিং করেছেন এই নবীন তারকা। ফলস্বরূপ ভারতীয় সিনিয়র টি-২০ দলেও জায়গা করে নিয়েছিলেন। ঘরের মাঠে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজে অবশ্য আশানুরূপ পারফরম্যান্স তিনি ব্যাট হাতে করতে পারেননি। তৃতীয় ম্যাচ বাদ দিলে সেভাবে রান পাননি তিনি। তবে এক্ষুনি এই নবীন তারকার উপর আস্থা হারাতে নারাজ ভারতের হেড কোচ রাহুল দ্রাবিড়। তার দৃঢ় বিশ্বাস ভারতের জার্সিতে রুতুরাজের ব্যাট হাতে সফল হওয়া সময়ের অপেক্ষা।

দ্রাবিড়ের স্পষ্ট বক্তব্য মাত্র একটা সিরিজ দিয়ে আমি কোনও ক্রিকেটার ভালো বা খারাপ সেটা বিচার করি না। দ্রাবিড় আরও জানিয়েছেন কারুর পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি হতাশ নন। অর্থাৎ ইঙ্গিত স্পষ্ট যে গড়পড়তা পারফরম্যান্সকারীদেরও ভবিষ্যতে সুযোগ দেওয়া হবে। বিশাখাপত্তনম টি-২০তে রুতুরাজ গায়রকোয়াড় ২৫ বলে ৫৭ রান করেন। যা ওই ম্যাচে ভারতের জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ছিল। তবে বাকি ম্যাচগুলোতে রুতুরাজকে নড়বড়ে মনে হয়েছে। ২৫ বছর বয়সি মহারাষ্ট্রের এই ব্যাটার ভারতের হয়ে এখন পর্যন্ত ৮টি টি-২০ ম্যাচ খেলে করেছেন মাত্র ১৩৫ রান। গড় ১৬.৮৭। পাশাপাশি দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে খারাপ ফর্মে থাকা শ্রেয়স আইয়ারের পাশেও দাঁড়িয়েছেন তিনি। শ্রেয়স সিরিজে মাত্র ৯৪ রান করেছেন।

দ্রাবিড় জানিয়েছেন 'আমি কোনও ক্রিকেটারকে মাত্র একটা সিরিজের পরে বিচার করব না। যারা দলে সুযোগ পেয়েছিল তাদের প্রত্যেকেই যোগ্য বলেই সুযোগ পেয়েছিল। এই ফর্ম্যাটে (টি-২০) আপনার কখন বেশ কিছু ম্যাচ খারাপ যাবে আবার কখনও বেশ কিছু ম্যাচ ভালো যাবে। শ্রেয়স রান করার মানসিকতা দেখিয়েছে। আমাদের হয়ে খুব পজিটিভ ক্রিকেট খেলেছে। একটা ইনিংসে রুতুরাজও বুঝিয়েছে ওর স্কিল এবং ব্যাটার হিসেবে মান। একটা আধটা ম্যাচে আপনার পারফরম্যান্স উপর-নীচে হতেই পারে। সেই কারণে আমরা কারও পারফরম্যান্স নিয়ে হতাশ না। অধিনায়কত্ব শুধু মাত্র জিত বা হার দিয়ে বিচার করা যায় না। ০-২ পিছিয়ে থেকে ২-২ করাটা বুঝিয়ে দেয় কতটা ভালো আমরা কামব্যাক করেছি। ও (পন্ত) একজন নবীন অধিনায়ক। রোজ শিখছে, উন্নতি করছে। ওকে এক্ষুণি বিচার করার সময় আসেনি।'

বন্ধ করুন