বাংলা নিউজ > ময়দান > কোচের কাজ ক্রিকেটারদের উদ্দীপ্ত করা, রবি শাস্ত্রী উলটে ভেঙে দিয়েছিলেন অশ্বিনের মনোবল, সামনে এল রুক্ষ বাস্তব
শাস্ত্রীর নজরদারিতে অশ্বিনের অনুশীলন। ছবি- গেটি।

কোচের কাজ ক্রিকেটারদের উদ্দীপ্ত করা, রবি শাস্ত্রী উলটে ভেঙে দিয়েছিলেন অশ্বিনের মনোবল, সামনে এল রুক্ষ বাস্তব

  • কোচ রবি শাস্ত্রীর মন্তব্যে অস্ট্রেলিয়া সফরে কীভাবে ভেঙে পড়েছিলেন, নিজেই জানালেন রবিচন্দ্রন।

রবি শাস্ত্রীর কোচিংয়ে টিম ইন্ডিয়ার সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তোলার তেমন একটা জায়গা নেই। আইসিসি ইভেন্টে ভারত চ্যাম্পিয়ন হতে না পারলেও শাস্ত্রীর কোচিংকালে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজে ভারত বিস্তর সাফল্য পায়। তবে শাস্ত্রী কোচ থাকাকালীন ভারতীয় ড্রেসিংরুমের পরিবেশ যে মোটেও সুখী গৃহকোণ ছিল না, তার ইঙ্গিত মিলেছে আগেও। ফের একবার সেই বিষয়টাই সামনে আসে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের কথায়। তবে এক্ষেত্রে ক্রিকেটারদের মধ্যে মনোমালিন্য নয়, বরং কোচের আচরণ কীভাবে দলের ক্রিকেটারদের মানসিকভাবে কোণঠাসা করত, সেটাই স্পষ্ট হয়ে যায়।

The Cricket Monthly-কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে অশ্বিন সামনে আনেন সিডনি টেস্টের সময়কার একটি ঘটনার কথা, যেখানে কোচ শাস্ত্রীর মন্তব্যে ভেঙে পড়েছিলেন রবিচন্দ্রন। আসলে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সেই টেস্টে কুলদীপ যাদব ইনিংসে ৫ উইকেট নেওয়ার পর শাস্ত্রী প্রকাশ্যেই দাবি করেন যে, কুলদীপই হলেন বিদেশ সফরে ভারতের এক নম্বর স্পিনার। সেই সঙ্গে তাঁর কথায় এমন ইঙ্গিত ছিল যে, অশ্বিনের সময় শেষ হয়ে গিয়েছে।

সেই ঘটনা প্রসঙ্গে অশ্বিন বলেন, ‘রবি ভাইকে আমি খুবই সম্মান করি। আমরা সবাই সম্মান করি। আমি এটাও বুঝি যে, আমরা কোনও মন্তব্য করতে পারি এবং পরে সেটাকে ফিরিয়ে নিতেও পারি। যদিও সেই মুহূর্তে (কুলদীপকে নিয়ে শাস্ত্রীর মন্তব্যের পর) নিজেকে দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া মনে হয়। পুরোপুরি ভেঙে পড়ি। আমরা সবাই জানি, সতীর্থদের একে-অপরের সাফল্য উপভোগ করা কতটা গুরুত্বপূর্ণ। আমিও কুলদীপের সাফল্যে খুশি ছিলাম। আমি নিজে ৫ উইকেট নিতে পারিনি, ও অস্ট্রেলিয়ায় ৫ উইকেট নিয়েছে। আমি বুঝি এটা কত বড় বিষয়। আমি (অন্যসময়) যখন ভালো বল করি, তখনও ৫ উইকেট পাইনি। সুতরাং, ওর জন্য সত্যিই খুশি ছিলাম।’

পরক্ষণেই অশ্বিন বলেন, ‘আমাকে যদি সতীর্থর সাফল্যে উচ্ছ্বসিত হতে হয়, তবে নিজে সেই সাফল্যে সামিল রয়েছি বলে মনে হওয়া দরকার। যদি মনে হয় আমাকে বাসের নীচে ছুঁড়ে ফেলা হয়েছে, তবে কীভাবে দলের অথবা সতীর্থর সাফল্যের উত্সবে সামিল হতে পারব? আমি হোটেলের রুমে ফিরে যাই এবং স্ত্রীর সঙ্গে কথা বলি। আমার সন্তানও ছিল সেখানে। সুতরাং, সবকিছু ঝেড়ে ফেলে উত্সবে সামিল হই। কেননা দিনের শেষে আমরা একটা বড় সিরিজ জিততে পেরেছি।’

বন্ধ করুন