বাংলা নিউজ > ময়দান > কথা মতো বল করেননি, এবিডি'র উইকেট নিয়েও ধোনির ঝাড় খেয়েছিলেন CSK-র প্রাক্তনী
ধোনির ঝাড় খেয়েছিলেন CSK-র প্রাক্তনী

কথা মতো বল করেননি, এবিডি'র উইকেট নিয়েও ধোনির ঝাড় খেয়েছিলেন CSK-র প্রাক্তনী

  • ২০১৫ সালের আইপিএলে সেই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল রয়্যাল চ্যালেজ্ঞার্স ব্যাঙ্গালোর এবং চেন্নাই সুপার কিংস দল। ওই মরশুমের ৩৭ তম ম্যাচ ছিল সেটি। প্রথমে ব্যাট করে ধোনির সিএসকে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪৮ রান করেছিল।

শুভব্রত মুখার্জি: বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম বিপদজনক ব্যাটার ছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন ব্যাটার এবি ডিভিলিয়ার্স। তার উইকেট নেওয়া যে কোনও বিপক্ষ অধিনায়কের কাছে ছিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আর সেই এবিডির উইকেট তুলে নেওয়ার পরেও নাকি খেতে হয়েছিল চেন্নাই সুপার কিংস অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির বকা! এমন কাহিনিই সামনে আনলেন সিএসকের পেসার ঈশ্বর পাণ্ডে।

২০১৫ সালের আইপিএলে সেই ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল রয়্যাল চ্যালেজ্ঞার্স ব্যাঙ্গালোর এবং চেন্নাই সুপার কিংস দল। ওই মরশুমের ৩৭ তম ম্যাচ ছিল সেটি। প্রথমে ব্যাট করে ধোনির সিএসকে ২০ ওভারে ৯ উইকেটে ১৪৮ রান করেছিল। রান তাড়া করতে নেমে অনবদ্য ব্যাট করছিলেন এবিডি। ১৩ বলে ২১ রান করে ফেলেন। হাঁকান পাচটি বাউন্ডারি। ফলে এবিডির উইকেট নেওয়াটা খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। ঈশ্বর পাণ্ডে নিজের ওভারের শেষ বলে এবিডিকে আউট করেন। তবে ঈশ্বর পাণ্ডে যে পদ্ধতিতে আউট করেছিলেন এবিডিকে তা নাকি পছন্দ হয়নি ধোনির। ফলে ধোনির বকা ও নাকি শুনতে হয়েছিল পাণ্ডেকে!

দৈনিক ভাস্করকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পাণ্ডে জানিয়েছেন 'আমরা ব্যাঙ্গালোরে একটা ম্যাচ খেলছিলাম আরসিবির বিরুদ্ধে। তখন এবি ডিভিলিয়ার্স ব্যাট করতে আসেন। মাহি ভাই আমার হাতে বল তুলে দেয়। ভালো বল করার পাশাপাশি ইয়র্কার দিতে বারণ করেন। আমি এবি ডিভিলিয়ার্সকে ৩-৪টে বলে বিট করি। পঞ্চম বলে আমাকে একটি চার মারেন ডিভিলিয়ার্স। ওভারের একটাই বল বাকি ছিল। আমি ঠিক করি একটা ইয়র্কার বল করি। আমি ইয়র্কার বল করতে গিয়ে একটা লো ফুলটস বল করে ফেলি। সেই বলেই এবিডি আউট হয়। উইকেট নেওয়ার পরেই ধোনি আমার দিকে এগিয়ে এসে আমাকে বকাঝকা করে। যদিও একেবারেই সিরিয়াস ছিল না ধোনি। আমাকে ধোনি বলে 'আমি তোমাকে ইয়র্কার করতে বারণ করেছিলাম না?' তারপর অবশ্য আবার পিঠ চাপড়ে দিয়ে বলেছিল কিছু মনে করো না। ভবিষ্যতে বিষয়টা খেয়াল রেখ।'

বন্ধ করুন