বাংলা নিউজ > ময়দান > শুরু থেকে ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করেছি, দাবি পিটারসেনের

শুরু থেকে ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই বড় ইনিংস খেলার চেষ্টা করেছি, দাবি পিটারসেনের

নিজের ছন্দে কিগান পিটারসেন। ছবি: রয়টার্স

পিটারসেনের ৮২ রানে ভর করেই এই টেস্ট জিততে সমর্থ হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজ জেতার পর উচ্ছ্বসিত পিটারসেন বলেছেন, বড় ইনিংস গড়ার লক্ষ্যে ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই খেলতে নেমেছিলেন তিনি।

শুভব্রত মুখার্জি: ভারতের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ জয়ের পাশাপাশি, এই সিরিজ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকার সব থেকে বড় পাওনা নিঃসন্দেহে তরুণ ব্যাটার কিগান পিটারসেনের ব্যাট হাতে পারফরম্যান্স। ব্যাট হাতে যে ভাবে ঠান্ডা মাথার পরিচয় তিনি দিয়েছেন, গোটা সিরিজ জুড়ে তা এক কথায় অনবদ্য। কেপটাউনে তৃতীয় টেস্টে ম্যাচ এবং সিরিজ জেতানো ইনিংস খেলেন তিনি। মূলত তাঁর ৮২ রানে ভর করেই এই টেস্ট জিততে সমর্থ হয় দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজ জেতার পর উচ্ছ্বসিত পিটারসেন বলেছেন, বড় ইনিংস গড়ার লক্ষ্যে ইতিবাচক মানসিকতা নিয়েই খেলতে নেমেছিলেন তিনি।

২-১ ফলে সিরিজ জয়ের পরে ম্যাচ শেষের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এসে পিটারসেন বলেন, ‘জয়ের উপলব্ধি এখন ও থিতু হয়নি। মিশ্র প্রতিক্রিয়া বলা যায়। খুশি,আবার কিছুটা আবেগপ্রবণও বটে। আমি প্রথম থেকেই পজিটিভ থাকার চেষ্টা করেছি। আর সেই ইতিবাচক মানসিকতার উপর ভিত্তি করেই বড় রানের ইনিংস গড়ার চেষ্টা করেছি। পরিস্থিতি খুব কঠিন ছিল। আমি আমার পরিকল্পনাকে মাথায় রেখে খেলেছি। লম্বা সফর ছিল। পুরো গল্পটা এখন বলতে পারব না। কালকের সকালের আগে গল্পটা শেষ হবে না।’

পিটারসেন আরও বলেছেন, ‘প্রতিটা ম্যাচই খুব চ্যালেঞ্জিং ছিল। বোলিং অ্যাটাক খুব কঠিন ছিল। ওদের (ভারতের) বোলিং অ্যাটাক খুব শক্তিশালী। আমাদের মানসিকতা ছিল‌ শেষ পর্যন্ত লড়াই করব। সাফল্যকে উপভোগ করছি। এই ধরনের পিচে যত লম্বা ইনিংস খেলা হবে, ততই খেলাটা সহজ হয়ে যাবে। আমি আমার ইনিংস খুব উপভোগ করেছি।’

বন্ধ করুন