বাড়ি > ময়দান > আইলিগে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে কোনও মতে ড্র ক্লান্ত ইস্টবেঙ্গলের
ইস্টবেঙ্গলের একমাত্র গোলদাতা জুয়ান মেরাকে নিয়ে উচ্ছ্বাস সতীর্থদের  (ছবি সৌজন্যে আইলিগ)
ইস্টবেঙ্গলের একমাত্র গোলদাতা জুয়ান মেরাকে নিয়ে উচ্ছ্বাস সতীর্থদের (ছবি সৌজন্যে আইলিগ)

আইলিগে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে কোনও মতে ড্র ক্লান্ত ইস্টবেঙ্গলের

  • এ ম্যাচের ফলাফল কী হবে, তা আগাম আঁচ করা গিয়েছিল। ক্লান্ত শরীরে ইস্টবেঙ্গলের ফুটবলাররা কতটা ভালোমানের ফুটবল খেলবেন, তা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মনে সংশয় তৈরি হয়েছিল। যেমন ভাবনা, ঠিক তেমনই ফলাফল। ক্লান্ত শরীর নিয়ে অ্যাওয়ে ম্যাচে পঞ্জাব এফসি’র বিরুদ্ধে হারতে হারতে কোনও রকমে ১-১ ব্যবধানে ড্র করল ইস্টবেঙ্গল।

একটানা প্রায় ১৪-১৫ ঘণ্টা সফর করার ঠিক ১২ ঘণ্টার মধ্যে লুধিয়ানায় টিম পঞ্জাব এফসি’র বিরুদ্ধে চলতি আইলিগে নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছিলেন কোলাডো, কাশিমরা। ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়েছিল ইস্টবেঙ্গল। যদিও হারতে থাকা ম্যাচে শেষ মুহূর্তে গোল করে দলকে সমতা ফিরিয়ে পঞ্জাব থেকে এক পয়েন্ট নিয়ে ফিরছেন আলেসান্দ্রোর শিষ্যরা। দুই ম্যাচে আপাতত তাঁদের সংগ্রহ ২ পয়েন্ট।

এ ম্যাচের শুরু থেকেই খেলার ফলাফল নিয়ে চিন্তায় ছিলেন ক্লাবকর্তারা থেকে শুরু করে সমর্থকরা। শুক্রবার রাজধানিতে পৌঁছনোর পর দিল্লি থেকে লুধিয়ানা যাওয়ার অমৃতসর শতাব্দী এক্সপ্রেস মিস করেন ইস্টবেঙ্গল ফুটবলাররা। যার জেরে একপ্রকার বাধ্য হয়ে বাসে লুধিয়ানায় ভোররাতে পৌঁছাতে হয় কোলাডো, মার্তি ক্রিসপিদের। ক্লান্তির ধাক্কায় যেন অর্ধেক হয়ে গিয়েছে ইস্টবেঙ্গলের শক্তি। আগের ম্যাচে তারা যে ফুটবল খেলেছিল, এ ম্যাচে তার ছিটেফোঁটাও লক্ষ্য করা যায়নি। যার ফলে গোটা বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই কোয়েসের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন অনেকে।

আগের ম্যাচে কাশ্মীরের বিরুদ্ধে দুরন্ত ফুটবল খেলা ইস্টবেঙ্গলকে অবশ্য পঞ্জাবের বিরুদ্ধে পাওয়া গেল একেবারে মালগাড়ির গতিতে। গত ম্যাচের মতোই এদিনও আক্রমণাত্মক ৪-৩-৩ ছকেই দল সাজিয়েছিলেন ইস্ট কোচ। অ্যাটাকে মার্কোসের দুই পাশে কোলাডো ও পিন্টু। এছাড়া প্রথম একাদশে শুধু একটিই পরিবর্তন করেছিলেন আলেসান্দ্রো মেনেন্ডেজ। এদিন তিনি রাইট ব্যাকে খেলান সামাদ আলি মল্লিককে। ডান দিকে সামাদ বার বার ওভারল্যাপে গেলেও, গোল করার সুযোগ তৈরি করতে পারেনি ইস্টবেঙ্গল।

ম্যাচের শুরুতেই পিছিয়ে পড়ে ইস্টবেঙ্গল। খেলার ১৩ মিনিটে প্রাক্তনী সঞ্জু প্রধানের ফ্রি-কিক থেকে অগাস্তো দানিলোর গোলে পিছিয়ে পড়ে লাল-হলুদ। এরপরও প্রচুর গোলের সুযোগ তৈরি করে টিম পঞ্জাব, যা দেখে দ্বিতীয়ার্ধে পিন্টু মাহাতোর জায়গায় লাল-হলুদ কোচ নামান রোনাল্ডো অলিভিয়েরাকে। তাতেও অবশ্য খেলায় গতি ফেরেনি। অবশেষে ম্যাচের একেবারে অন্তিম লগ্নে (৮৪ মিনিটে) বক্সের বাইরের কোণাকুনি শটে অসাধারণ গোল করে দলের মান বাঁচিয়ে ইস্টবেঙ্গলকে সমতায় ফেরান জুয়ান মেরা।

বন্ধ করুন