আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর মোহনবাগান। ছবি- টুইটার।
আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর মোহনবাগান। ছবি- টুইটার।

সরকারিভাবে মোহনবাগানকে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করল AIFF, স্বীকৃতি দিল AFC-ও

  • শনিবার আই লিগ কমিটির বৈঠকের পর এফসিও মোহনবাগানের লিগ জয়ের খরব ঘোষণা করে তাদের ওয়েবসাইটে।

শেষমেশ নাটকে যবনিকা পড়ল। করোনা মহামারির জেরে আই লিগ বাতিল হয়েছে মাঝপথেই। লিগের বাকি ২৮টি ম্যাচ পরিত্যক্ত ঘোষণা করেছে লিগ কমিটি। শুধু অহেতুক জলঘোলা হচ্ছিল মোহনবাগানের লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়া নিয়ে। অবশেষে সর্বভারতীয় ফুটবল সংস্থা সরকারিভাবে জানিয়ে দিল, খেতাব উঠছে মেরিনার্সদের হাতেই।

অর্থাৎ, একই মরশুমে এই নিয়ে তিনবার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার উৎসবে মাতল সবুজ-মেরুন শিবির। প্রথমত, পয়েন্টের নিরিখে বাকিদের ধরা ছোঁয়ার বাইরে চলে যেতেই নিশ্চিত হয়ে যায় বাগানের লিগ জয়। ১০ মার্চ আইজলকে হারিয়ে কল্যাণীর কর্পোরেশন স্টেডিয়ামে বিজয় উৎসবে মেতেছিল মোহনবাগান। তখনও জানা ছিল না, করোনার জেরে নাটকীয় মোড় নিতে পারে আই লিগ।

ভাইরাস সংক্রমণের আশঙ্কায় দেশজুড়ে লকডাউনে ঘোষিত হওয়ায় এআইএফএফ মাঝপথেই লিগ স্থগিত রাখতে বাধ্য হয়। পরে লকডাউন বর্ধিত হওয়ায় পুনরায় খেলা শুরুর সম্ভাবনা না থাকায় লিগ কমিটি আই লিগ বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় গত শনিবার।

ইস্টবেঙ্গল প্রবল আপত্তি তোলে বলেই লিগ কমিটির বৈঠকের আগে পর্যন্ত বাগান শিবির নিশ্চিত হতে পারছিল না লিগ তাদের তাঁবুতেই আসছে। সুতরাং, শনিবার লিগ কমিটিক বৈঠকের পর দ্বিতীয় দফায় আই লিগ জয়ের উচ্ছ্বাস দেখা যায় বাগান সমর্থকদের মধ্য।

লিগ কমিটির সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হলেও অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনের এক্সিকিউটিভ কমিটি সিলমোহর না দেওয়া পর্যন্ত না সরকারিভাবে লিগজয়ীর সার্টিফিকেট হাতে পাওয়া সম্ভব ছিল না বাগানের। মঙ্গলবার নিয়মরক্ষার শেষ কাজটুকুও সেরে ফেলে ফেডারেশের কর্মসমিতি। মঙ্গলবারই এআইএফএফের তরফে মোহনবাগানকে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হিসেবে ঘোষণা করা হয়

তার আগেই অবশ্য এশিয়ান ফুটবল কনফেডারেশনের তরফে মোহনবাগানের লিগ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কথা জানানো হয় অফিসিয়াল ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল মিডিয়ায়। পয়েন্টের নিরিখে মেরিনার্সরা লিগ জয় নিশ্চিত করার পরেই এএফসির তরফে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠানো হয়েছিল বাগান শিবিরে। শনিবার আই লিগ কমিটির বৈঠকের সিদ্ধান্ত প্রকাশ্যে আসার পর এফসিও মোহনবাগানের লিগ জয়ের খবর ঘোষণা করে তাদের তরফে।

বন্ধ করুন