যুবরাজ সিং ও এমএস ধোনি। ছবি-বিসিসিআই।
যুবরাজ সিং ও এমএস ধোনি। ছবি-বিসিসিআই।

আমার বাড়িতে যখন পাথর ছোঁড়া হচ্ছিল, মনে হয়েছিল বুঝি কেরিয়ার ওখানেই শেষ, বিশ্বকাপ হারের স্মৃতিচারণায় যুবরাজ

  • ২০১৪ টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে শ্রীলঙ্কার কাছে ভারতের হারের পর ভিলেন বানানো হয়েছিল যুবিকে। 

২০০৭ টি-২০ ও ২০১১ ওয়ান ডে, জোড়া বিশ্বকাপ জয়ে টিম ইন্ডিয়ার অন্যতম সেরা তারকা ছিলেন যুবরাজ সিং। ২০১১ বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছিলেন যুবি। একারণেই যুবরাজ সিংকে সবসময় বড় মঞ্চের খেলোয়াড় বলে বিবেচনা করা হতো। 

স্বাভাবিকভাবেই ২০১৪ টি-২০ বিশ্বকাপে যুবরাজকে নিয়ে সমর্থকদের প্রত্যাশা ছিল মাত্রাতিরিক্ত, যা পূরণ করতে ব্যর্থ হন তারকা অল-রাউন্ডার। বিশেষ করে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ফাইনালে যুবরাজের ২১ বলে ১১ রানের ধীর ইনিংস কোনওভাবেই মেনে নিতে পারেননি ভারতীয় সমর্থকরা। তাই শ্রীলঙ্কার কাছে ভারত ফাইনালে হেরে বসায় যুবিকেই ভিলেন হিসেবে ধরে নেন সবাই।

একদা বিশ্বকাপ জয়ের নায়ক হিসেবে যাঁকে বরণ করে নিয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীরা, তাঁকেই বিশ্বকাপ হারার জন্য দায়ি করে বাড়িতে পাথর ছোঁড়া হয়। 

ঘটনার স্মৃতিচারণায় যুবরাজ বলেন, ‘আমি কখনই নিজের দায় এড়িয়ে যাইনি। আমি সেদিন সত্যিই ভালো খেলিনি। দূর্ভাগ্যের বিষয় এই যে, ওটা ছিল বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ। যদি আর পাঁচটা সাধারণ ম্যাচ হতো, তাহলে হয়ত সমর্থকদের মধ্যে এমন প্রতিক্রিয়া তৈরি হতো না। বাড়ি ফেরার পর মনে হচ্ছিল আমি বুঝি ভিলেন। সবার ক্ষোভ দেখে এটাও মনে হচ্ছিল যে, বোধহয় কাউকে খুন করেছি, এবার জেলে যেতে হবে।’

যুবরাজ আরও বলেন, ‘আমার বাড়িতে পাথর ছোঁড়াও হয়েছিল। আমি ছয় ছক্কার ব্যাটটার উপরে আমার ইন্ডিয়া ক্যাচটা ঝুলিয়ে রেখেছিলাম। মনে হয়েছিল বুঝি আমার কেরিয়ার ওখানেই শেষ।’

বন্ধ করুন