বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ড্রেসিংরুমে ধোনির উপস্থিতিতেই যেন শান্তির অনুভূতি ফিরে এসেছে, আবেগপ্রবণ রাহুল
ধোনির উপস্থিতিতেই নাকি বদলে গিয়েছে ভারতীয় ড্রেসিংরুমের পরিবেশ।
ধোনির উপস্থিতিতেই নাকি বদলে গিয়েছে ভারতীয় ড্রেসিংরুমের পরিবেশ।

ড্রেসিংরুমে ধোনির উপস্থিতিতেই যেন শান্তির অনুভূতি ফিরে এসেছে, আবেগপ্রবণ রাহুল

  • ইংল্যান্ডে ভারতীয় দল থাকার সময় এবং সেখান থেকে ফেরার পর বহু সিনিয়র ক্রিকেটারই কোহলির নামে নালিশ জানিয়েছিলেন। হাতেগোনা কয়েক জনকে বাদ দিলে জুনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গেও যে কোহলির খুব ভাল সম্পর্ক, এমনটাও নয়। স্বভাবতই ভারতীয় ড্রেসিংরুমে উত্তাপের আঁচ দেখেই সম্ভবত ধোনিকে মেন্টর হিসেবে নিয়োগ করে বিসিসিআই।

মহেন্দ্র সিং ধোনিকে মেন্টর হিসেবে নিয়োগ করাটা সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের বোর্ডের একটা বড় পদক্ষেপ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলাকালীন যেন ভারতীয় দলের মধ্যে শান্তি বজায় থাকে, সে কারণেই ধোনিকে নিয়োগ করা হয়েছে। আর সেই প্রমাণ হাতেনাতে পাওয়া গিয়েছে। দলের তারকা ব্যাটসম্যান কেএল রাহুলই যেমন দাবি করেছেন, ধোনি ড্রেসিংরুমে থাকার ফলে নাকি শান্তির একটা অনুভূতি ফিরে এসেছে।

আসলে ইংল্যান্ডে ভারতীয় দল থাকার সময় এবং সেখান থেকে ফেরার পর বহু সিনিয়র ক্রিকেটারই বিসিসিআই-এর কাছে বিরাট কোহলির নামে নালিশ জানিয়েছিলেন। এমন কী হাতেগোনা কয়েক জনকে বাদ দিলে জুনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গেও যে তাঁর খুব ভাল সম্পর্ক, এমনটাও নয়। স্বভাবতই ভারতীয় ড্রেসিংরুমে উত্তাপের আঁচ দেখেই সম্ভবত ধোনিকে মেন্টর হিসেবে নিয়োগ করে বিসিসিআই।

কেএল রাহুল, যাঁর বিশ্বকাপের ম্যাচে রোহিত শর্মার সঙ্গে ওপেন করার কথা রয়েছে, তিনি বলেছেন, ‘এমএস ধোনির (দলের সাথে) ফিরে আসাটা নিঃসন্দেহে দারুণ বিষয়। কারণ আমরা ওর নেতৃত্বে খেলেছি এবং আমরা যখন ওর অধিনায়কত্বে খেলতাম, তখনও ওকে একজন মেন্টর হিসেবেই দেখতাম।’

রাহুল আরও বলেছেন, ‘ও যখন অধিনায়ক ছিল, তখনও ড্রেসিংরুমে ওর উপস্থিতি আমাদের ভাল লাগত। আসলে আমরা শান্তি পছন্দ করতাম। আমরা সবাই ওর দিকেই তাকিয়ে আছি। ও আমাদের সাহায্যও করবে। তবে ওর ড্রেসিংরুমে থাকাটাই অদ্ভূত অনুভূতি। আমাদের শান্তির অনুভূতি দেয়। প্রথম দু'তিন দিন ওর সঙ্গে খুব মজা করে সময় কাটিয়েছি। খুব মজা হয়েছে। এখন ওর শুধু মাথা খাব ক্রিকেট, অধিনায়কত্ব এবং ক্রিকেট সংক্রান্ত সব কিছু নিয়েই।’

বন্ধ করুন