বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ২০১০ T20 WC-এর সেমিফাইনালের মাইক হাসিকে মনে করিয়ে দিলেন ম্যাথু ওয়েড
মাইক হাসি এবং ম্যাথু ওয়েড।
মাইক হাসি এবং ম্যাথু ওয়েড।

২০১০ T20 WC-এর সেমিফাইনালের মাইক হাসিকে মনে করিয়ে দিলেন ম্যাথু ওয়েড

  • ২০১০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বিধ্বংসী মাইক হাসির সৌজন্যে পাকিস্তানকে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। প্রথমে ব্যাট করে নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান করেছিল পাকিস্তান। লক্ষ্যটা নিঃসন্দেহে কঠিন ছিল। কিন্তু মাইক হাসির ২৪ বলে ৬০ রানের সৌজন্যে জয় ছিনিয়ে নেয় অস্ট্রেলিয়া।

২০১০ সালেরই পুরনারবৃ্ত্তি ঘটল ২০২১-এও। মাঝে ১১টা বছর কেটে গিয়েছে। কিন্তু কোনও পরিবর্তন হয়নি প্রেক্ষাপটের। বৃহস্পতিবার হুবুহু একই গল্প লেখা হল দুবাইয়ে। শুধু পাল্টে গেল স্থান আর চরিত্র।

২০১০ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে বিধ্বংসী মাইক হাসির সৌজন্যে পাকিস্তানকে হারিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। প্রথমে ব্যাট করে নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান করেছিল পাকিস্তান। লক্ষ্যটা নিঃসন্দেহে কঠিন ছিল। কিন্তু মাইক হাসির ২৪ বলে ৬০ রানের সৌজন্যে জয় ছিনিয়ে নেয় অস্ট্রেলিয়া।

বৃহস্পতিবার মাইক হাসির সে দিনের সেই দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেন ম্যাথু ওয়েড। একটা সময়ে অস্ট্রেলিয়ার ৩০ বলে ৬২ রান প্রয়োজন ছিল। এই রানটা করা মোটেও সহজ ছিল না। কিন্তু সেই জায়গা থেকে ৬ বল বাকি থাকতেই ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় অস্ট্রেলিয়া। সৌজন্যে ওয়েডের ১৭ বলে ৪১ রানের ইনিংস। এই ইনিংসে চারটি ছয় এবং দু'টি চার মারেন ওয়েড। স্বাভাবিক ভাবেই ১১ বছর আগের মাইক হাসির মতোই এ বারও পাকিস্তানের স্বপ্ন ভেঙে একেবারে চুরমার করে দিলেন ম্যাথু ওয়েড।

সুপার টুয়েলভ পর্বে পাকিস্তান দুরন্ত ছন্দে সব ম্যাচেই জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। ভারত, নিউজিল্যান্ডের মতো দলকে হেলায় হারিয়েছে। কিন্তু সেমিতে শেষ রক্ষা হল না। টসে হেরে প্রথমেই একটা ধাক্কা খেয়েছিল পাকিস্তান। তাও ৪ উইকেটে ১৭৬ রান করেছিল তারা। কিন্তু তাতেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি বাবর আজমরা।

বন্ধ করুন