বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > 'আমার বিছানায় ঘুমাবে, আমি মেঝেতে ঘুমাব', সাসপেনশন থেকে ফেরা হার্দিককে বলেন ধোনি
হার্দিক পান্ডিয়া এবং মহেন্দ্র সিং ধোনি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য বিসিসিআই)
হার্দিক পান্ডিয়া এবং মহেন্দ্র সিং ধোনি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য বিসিসিআই)

'আমার বিছানায় ঘুমাবে, আমি মেঝেতে ঘুমাব', সাসপেনশন থেকে ফেরা হার্দিককে বলেন ধোনি

  • তুমুল বিতর্কের জেরে সাসপেন্ড হয়েছিলেন। সেই নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার সময় কাছে টেনে নিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি।

তুমুল বিতর্কের মুখে সাসপেন্ড হয়েছিলেন। সেই নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরার সময় কাছে টেনে নিয়েছিলেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। এমনটাই জানালেন ভারতীয় ক্রিকেট দলের তারকা ক্রিকেটার হার্দিক পান্ডিয়া। তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে নিউজিল্যান্ডে কোনও ঘর ছিল না। সেইসময় ধোনি বলেছিলেন যে পান্ডিয়া তাঁর বিছানায় থাকবেন। মেঝেতে শুয়ে পড়বেন ধোনি।

ইএসপিএন ক্রিকইনফোর মাসিক ক্রিকেট ম্যাগাজিনে হার্দিক বলেন, '(সাসপেনশন উঠে যাওয়ার পর ২০১৯ সালে) যখন নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য আমায় বেছে নেওয়া হয়েছিল, তখন প্রাথমিকভাবে কোনও হোটেল রুম ছিল (নিউজিল্যান্ডে হার্দিকের জন্য)। তারপর আমি একটা ফোন পাই। বলা হয়, তুমি চলে এস। এমএস (ধোনি) বলেছে যে ও (এমনিতেই) বিছানায় ঘুমায় না। হার্দিক আমার (ধোনির) বিছানায় ঘুমিয়ে নেবে। আমি (ধোনি) মেঝেতে শুয়ে পড়ব।'

তবে শুধু সাসপেনশনের সময় নয়, কেরিয়ারের শুরু থেকেই 'দাদা' ধোনিকে পাশে পেয়ে এসেছেন বলে জানান হার্দিক। ওই সংবাদমাধ্যমে ভারতীয় দলের তারকা অল-রাউন্ডার বলেন, 'শুরু থেকেই আমায় বুঝেছে এমএস। আমি কীভাবে কাজ করি, আমি কীরকম মানুষ, কোন কোন জিনিস আমার ভালো লাগে না - সবকিছু (বুঝতে পারত)। ' সঙ্গে হার্দিক বলেন, 'ব্যক্তি হিসেবে আমি কীরকম, তা ও (ধোনি) জানে। আমার বেশ গভীরভাবেই জানে। আমি ওর খুব কাছের লোক। ও একমাত্র আমায় শান্ত রাখতে পারে। যখন এইসব (কফি উইথ করণের মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক) হয়েছিল, তখন ও (ধোনি) জানত যে আমার সাহায্য দরকার। আমার একটা কাঁধের দরকার ছিল। যা ও আমার ক্রিকেটীয় কেরিয়ারে একাধিক বার দিয়েছে। আমি কখনওই ওকে সর্বকালের সেরা মহেন্দ্র সিং ধোনি হিসেবে দেখিনি। মাহি হচ্ছে আমার দাদা। আমি এই বিষয়টা শ্রদ্ধা করি যে যখন আমার সবথেকে বেশি দরকার ছিল, ও তখন ছিল। '

বন্ধ করুন