বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > Noble uses foul language against India: সারেগামাপা থেকে পরিচিতি, এখন বাংলাদেশ হারায় ভারতকে গালিগালাজ গায়ক নোবেলের

Noble uses foul language against India: সারেগামাপা থেকে পরিচিতি, এখন বাংলাদেশ হারায় ভারতকে গালিগালাজ গায়ক নোবেলের

ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ হেরে গিয়েছে। তারপরই ভারতের নামে গালিগালাজ নোবেলের। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে ফেসবুক Noble Man এবং এএফপি)

Noble uses foul language against India: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ হেরে যাওয়ার পরই গালিগালাজ করলেন নোবেল। এক বাংলাদেশি বলেছেন, ‘এভাবে বলতে নেই, আপনি কিন্তু ইন্ডিয়ার মাধ্যমে আজ নোবেল ম্যান।

ভারতের অনুষ্ঠান 'সারেগামাপা' থেকে পরিচিতি পেয়েছেন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্যায়ের ম্যাচে বাংলাদেশ হেরে যাওয়ায় ভারতকেই গালিগালাজ করলেন গায়ক নোবেল। সেজন্য তাঁকে ভারতে যেন ঢুকতে না দেওয়া হয়, সেই দাবি তুলেছেন নেটিজেনদের একাংশ।

গত বুধবার অ্যাডিলেডে বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচে ডিএলএস নিয়মে বাংলাদেশকে পাঁচ রানে হারিয়ে দিয়েছে ভারত। তারপরও নেদারল্যান্ডসের সৌজন্যে (দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে দেওয়ায় পাকিস্তান-বাংলাদেশ ম্যাচ ভার্চুয়াল কোয়ার্টার-ফাইনাল হয়ে গিয়েছিল) বাংলাদেশের সামনে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার সুযোগ এসে গিয়েছিল। কিন্তু পাকিস্তানের বিরুদ্ধে হেরে গিয়ে ছিটকে গিয়েছেন শাকিব আল হাসানরা। 

তারপরই রবিবার সন্ধ্যায় ফেসবুক পোস্টে প্রথমে আইসিসিকে আক্রমণ শানান নোবেল। ‘ICC’-কে ‘ইন্ডিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল’ বলেন। গালিগালাজ করেন। সেইসঙ্গে ওই পোস্টের কমেন্ট বক্সেই ভারতকে নিয়ে চূড়ান্ত নোংরা এবং অশ্লীল মন্তব্য (যে শব্দ প্রয়োগ করেছেন, তা ছাপার অযোগ্য) করেন নোবেল। যিনি হামেশাই বিতর্কিত মন্তব্য করে শিরোনামে চলে আসেন।

সেই পোস্টে অনেকেই নোবেলকে ট্রোল করতে থাকেন। ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচের তিনদিন পর কেন সেই পোস্ট করলেন, তা নিয়ে ট্রোলের মুখে পড়েন নোবেল। একজন বলেন, 'এতদিন পর নেশা কাটল। পিওর জিনিস ছিল মনে হয়।' এক বাংলাদেশি নেটিজেন আবার বলেন, ‘হাইলাইটস দেখলেন নাকি?’ অপর একজন মন্তব্য করেন, ‘ভাইয়ের মনে হয় নেট শেষ হয়ে গিয়েছিল,তাই পোস্ট আটকে গিয়েছিল।’

তারইমধ্যে আবার অনেক বাংলাদেশি নোবেলকে সমর্থন করেন। তেমনই এক বাংলাদেশি বলেন, ‘এই পোস্টের কারণে নোবেলকে ক্ষমা করে দিলাম।’ একইসুরে অপর একজন বলেন, ‘প্রথমবার আপনার পোস্ট লাভ রিয়্যাক্ট দিলাম।’ আবার এক বাংলাদেশি নেটিজেন কমেন্ট করেন, ‘ভাই অনেক দিন পর একটা অসাধারণ পোস্ট।’ অপর এক বাংলাদেশি নেটিজেন বলেন, ‘দারুণ কাজ করেছেন।’

তবে ভারতের নামে গালিগালাজ করায় অনেক বাংলাদেশিও তীব্র ধিক্কার জানিয়েছেন নোবেলকে। তেমনই একজন বলেন, ‘এভাবে বলতে নেই, আপনি কিন্তু ইন্ডিয়ার মাধ্যমে আজ নোবেল ম্যান। এর আগে আপনাকে কোনও শিয়াল-শকুনও চিনত না। আপনার মতো একজন সেলিব্রিটির কাছ থেকে এমন ভাষা আশা করিনি। আপনি অন্যভাবে বলতে পারতেন।’ অপর এক বাংলাদেশি বলেন, ‘কিন্তু জনপ্রিয়তা পেয়েছে সেই ইন্ডিয়ার কারণেই।’

আরও পড়ুন: Pakistan fans disappointed: ভারতের বিরুদ্ধে হারল বাংলাদেশ, মেনে নিলেন শাকিব, কেঁদে ভাসাল পাকিস্তান!

আর ভারতীয়রা তো নোবেলকে ছেড়ে কথা বলেননি। এক ভারতীয় নেটিজেন বলেন, ‘যার খেয়ে বড় হলি, তাকে অপমান করতে লজ্জা লাগে না?’ একজন আবার তৃণমূল কংগ্রেস নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্যকে মেনশন করে কমেন্ট করেন, ‘কিছু বলবেন দাদা? একটু দেখবেন যাতে পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোনওদিন একে ঢুকতে না দেয়। কোন চ্যানেলে যাতে সুযোগ না পায়।’ অনেকে আবার নোবেলের ভাষায় নোবেলকেই পালটা দিয়েছেন।

কিন্তু ভারত ম্যাচ নিয়ে কেন এত বিতর্ক বাংলাদেশ?

বুধবার অ্যাডিলেডে প্রথমে ব্যাট করে ১৮৪ রান তুলেছিল ভারত। জবাবে দুর্দান্ত শুরু করেন লিটন দাস। একাই অ্যাডিলেডে ঝড় তোলেন। তাঁর সৌজন্যে সাত ওভারে বাংলাদেশের স্কোর দাঁড়িয়েছিল বিনা উইকেটে ৬৬ রান। কিন্তু তারপর বৃষ্টি নামে। ডিএলএস ‘পার স্কোর’-র নিরিখে সেইসময় ১৭ রানে এগিয়ে ছিল বাংলাদেশ। তবে সেই ‘পার স্কোর’-র হিসাব বিবেচনা করা হয়নি। বৃষ্টি থামতে খেলা শুরু করা হয়েছিল। খেলা শুরু হতেই রান-আউট হয়ে গিয়েছিলেন লিটন। দু'বার পা পিছলে গিয়েছিল তাঁর। সেই ধাক্কার পর ধসে যায় বাংলাদেশের ইনিংস।

আরও পড়ুন: IND vs BAN DLS Confusion: DLS শিটে ১৬ ওভারে ১৩৩ লেখা, তাহলে কেন ১৫১ তাড়া করল বাংলাদেশ? উত্তর লুকিয়ে নিয়মে

তারপর থেকেই ‘টাইগার’-দের প্রতি অবিচার হয়েছে বলে দাবি করতে থাকেন অনেক বাংলাদেশি। হারের জন্য শাকিব কোনও অজুহাত না দেখালেও বাংলাদেশের নেটিজেনরা অভিযোগ করতে থাকেন, পক্ষপাতিত্ব করে ভারতকে জেতানো হয়েছে। তাঁরা অভিযোগ করতে থাকেন, ভিজে আউটফিল্ড সত্ত্বেও জোর করে ম্যাচ খেলিয়েছিলেন আম্পায়াররা (শাকিব অবশ্য স্পষ্ট জানিয়েছেন, আউটফিল্ড ভিজে হলে সাধারণত বোলিং দলের অসুবিধা হয়, ব্যাটিং দল সুবিধা পায়)। সেইসঙ্গে বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে ফেক ফিল্ডিংয়ের অভিযোগ তুলেছিলেন বাংলাদেশি এবং পাকিস্তানিদের একাংশ।

বন্ধ করুন