বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > কী ভাবে বড় ম্যাচ শেষ করতে হয় পাকিস্তানকে শিখতে হবে: শান মাসুদ

কী ভাবে বড় ম্যাচ শেষ করতে হয় পাকিস্তানকে শিখতে হবে: শান মাসুদ

ম্যাথু হেডেনের সঙ্গে শান মাসুদ (ছবি-এএফপি)

বেন স্টোকসদের কাছে ফাইনাল হারের পরে পাক ব্যাটার শান মাসুদের স্পষ্ট বক্তব্য, এবার সময় এসেছে পাকিস্তানকেও শিখতে হবে। শিখতে হবে, কি করে বড় ম্যাচকে শেষ করে জিতে আসতে হয়।

শুভব্রত মুখার্জি: সদ্য শেষ হওয়া টি-২০ বিশ্বকাপের ফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে পাঁচ উইকেটে হারতে হয়েছে পাকিস্তানকে। ফাইনালে পৌঁছানোটা কম কৃতিত্বের ছিল না। তার উপর যে লড়াইটা পাকিস্তান বোলাররা ইংল্যান্ডকে দিয়েছিল তা এককথায় অসাধারণ। তবে তুল্য মূল্য লড়াই লড়ার পরেও শেষরক্ষা করতে পারেনি পাকিস্তান। ১ ওভার বাকি থাকতে পাঁচ উইকেট হাতে নিয়ে বিশ্বকাপের শিরোপা জয় নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড। বেন স্টোকসদের কাছে ফাইনাল হারের পরে পাক ব্যাটার শান মাসুদের স্পষ্ট বক্তব্য, এবার সময় এসেছে পাকিস্তানকেও শিখতে হবে। শিখতে হবে, কি করে বড় ম্যাচকে শেষ করে জিতে আসতে হয়। 

আরও পড়ুন… শাহিন আফ্রিদি চোট না পেলে- ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হতেই ফাইনাল নিয়ে সচিনের টুইট

মেলবোর্নে এ দিন পাকিস্তান মাত্র ১৩৭ রান করতে সমর্থ হয়। তাঁদের হয়ে সর্বোচ্চ স্কোর করেন শান মাসুদ। তিনি ২৮ বলে ৩৮ রান করেন। ম্যাচ শেষে শান মাসুদ জানিয়েছেন, ‘ম্যাচে বেশ কিছু এমন পর্যায় এসেছিল যেখানে দাঁড়িয়ে আমার মনে হয়েছে ব্যাট হাতেও আমরা ম্যাচটা ওদের নাগালের বাইরে নিয়ে যেতে পারতাম। ব্যক্তিগত ভাবে আমিও এর দোষটা নিজের কাঁধে নিচ্ছি। আমাদের লক্ষ্য ছিল ১৭০ রান করা। যে ভাবে আমাদের ইনিংসটা শেষ হয়েছে, সেটা দেখে একটা কথাই বলব আমাদের কোনও একজন ব্যাটার যদি শেষ পর্যন্ত টিকে থাকত তাহলে নিদেন পক্ষে ১৫৫-১৬০ রান করা সম্ভব ছিল। যা ওই পিচে যথেষ্ট ভালো একটা স্কোর হত।’

আরও পড়ুন… জোস বাটলাররা জিততেই ইংল্যান্ডকে উদ্দেশ্য করে পাক সমর্থকদের খোঁচা দেওয়া বার্তা দিলেন ইরফান পাঠান

শান মাসুদ আরও যোগ করে বলেন, ‘শেষ দিকে শাহিনের ওই দুই ওভারটা খুব একটা পার্থক্য গড়ে দিত না তাহলে। আমি আশা করব ও (শাহিন) ভালো আছে। ওর হাঁটুতেই ফের চোট লেগেছে। আমি যতটুকু জানতে পেরেছি ওর লিগামেন্টের যে সব পরীক্ষা করা হয়েছিল তাতে সব ভালো ফল এসেছে।’ 

তাঁর বক্তব্য, ‘যে সব ম্যাচ অস্ট্রেলিয়াতে আমরা জিতেছি তা বেশ সহজেই জিতেছি। আমাদের জন্য যেটা ভালো লক্ষণ সেটা হল আমরা হারলেও খুব লড়াই করে হেরেছি। এটা আমাদের এই উপলব্ধি করায় যে আমাদের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে সবটা। যে তিনটে ম্যাচ আমরা হেরেছি ভারত, জিম্বাবোয়ে এবং ইংল্যান্ডের কাছে সেই তিনটে ম্যাচেই এমন মুহূর্ত ছিল যেখানে আমরা ম্যাচটা জিততে পারতাম। এই তরুণ দলকে পরবর্তীতে যেটা শিখতে হবে তা হল বড় ম্যাচ কীভাবে শেষ (জেতা) করা যায়। মুহূর্তগুলোকে কী ভাবে নিজেদের কাজে লাগানো যায়। তবে যে ভাবে বাবর নেতৃত্ব দিচ্ছে। তাঁকে রিজওয়ান (মহম্মদ),শাদাব (খান) যেভাবে পরামর্শ দিচ্ছে আমি নিশ্চিত ভবিষ্যতে যেসব বিশ্বকাপ আসছে সেখানেও পাকিস্তান বিপজ্জনক হয়ে উঠবে।’

বন্ধ করুন