বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ভবিষ্যতে ডি'ককের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে না, আশাবাদী প্রাক্তন সতীর্থ ডেভিড ওয়াইজ
কুইন্টন ডি'কক। ছবি- গেটি ইমেজেস।
কুইন্টন ডি'কক। ছবি- গেটি ইমেজেস।

ভবিষ্যতে ডি'ককের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটবে না, আশাবাদী প্রাক্তন সতীর্থ ডেভিড ওয়াইজ

  • দলগতভাবে এই বিষয়ে আগে থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া প্রয়োজন ছিল বলে মনে করেন ওয়াইজ।

শুভব্রত মুখার্জি

একদা প্রোটিয়া জাতীয় দলের সদস্য তথা বর্তমানে বিয়া দলের হয়ে চলতি টি-২০ বিশ্বকাপ খেলা অলরাউন্ডার ডেভিড ওয়াইজ মনে করেন সদ্য ঘটে যাওয়া কুইন্টন ডি'কক ইস্যু ক্রিকেটে চলতে থাকা বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে 'টেকিং দ্যা নি' অর্থাৎ হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানানোর যে রীতি এবং তাকে ঘিরে তৈরি হওয়া বিতর্কের অবসান ঘটাবে। চলতি টি-২০ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচে বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানানোর যে সিদ্ধান্ত ক্রিকেট দক্ষিণ আফ্রিকার তরফে নেওয়া হয়েছিল, তা মেনে না নিয়ে ম্যাচে দলের প্রথম একাদশ থেকেই সরে দাঁড়িয়েছিলেন ডি'কক।

নমিবিয়ার অলরাউন্ডার ওয়াইজ মনে করেন এই বিষয়গুলো নিয়ে মাঠে নামার আগেই দলগত একটা মিটিং করে নেওয়া ভাল। ডি'ককের ঘটনা এই ধরনের বিতর্ককে আর ঘটতে দেবে না বলেই তার বিশ্বাস। উল্লেখ্য, ডি'কক পরবর্তীতে এই বিষয়তে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, 'যদি বিষয়টি সবাইকে প্রকৃতভাবে শিক্ষিত করত তাহলে তার এতে কোন আপত্তিই নেই।' ডি'কক জানান তিনি অবশ্যই বর্ণবৈষম্যের বিরুদ্ধে। তবে তিনি সরে দাঁড়ানোর পরে তাকে 'রেসিস্ট' বলে দাগিয়ে দিয়ে যে প্রচার চলেছে তাতে তিনি ব্যথিত।

ডি'কক প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে ওয়াইজ বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল তা ডি'কক চিরতরে শেষ করেছে বলে মনে করি। সবাই এখন জানে কি কারণে ও এটা করেছিল। ও নিজে এগিয়ে এসেছে । ওর আচরণের কারণ ব্যাখ্যা করেছে। প্রত্যেকটা মানুষের আলাদা আলাদা ভাবনা রয়েছে। আমার মতে দলগতভাবে একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া প্রয়োজনীয়। দলে ঐক্যটা খুব জরুরি। আমি হাঁটু মুড়ে বসে প্রতিবাদ জানাবো না পাকিস্তানের মত হাতে হাত ধরে বুকে হাত রেখে প্রতিবাদ জানাবো সেটা সবাই মিলে বসে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত ছিল।’

বন্ধ করুন