বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > শাহিন আফ্রিদি চোট না পেলে- ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হতেই ফাইনাল নিয়ে সচিনের টুইট

শাহিন আফ্রিদি চোট না পেলে- ইংল্যান্ড চ্যাম্পিয়ন হতেই ফাইনাল নিয়ে সচিনের টুইট

শাহিন আফ্রিদির চোট নিয়ে সচিন তেন্ডুলকরের টুইট (ছবি-গেটি ইমেজ)

নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে সচিন তেন্ডুলকর পোস্ট করে লিখেছেন, ‘আপনাদের দ্বিতীয় টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের জন্য ইংল্যান্ডকে অভিনন্দন। অসাধারণ কৃতিত্ব। এটি একটি ক্লোজ লড়াই করা ফাইনাল ছিল এবং আফ্রিদি আহত না হলে এটি আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠত। বিশ্বকাপের রোলার কোস্টারটা অসাধারণ।’

রবিবার ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ -এর ফাইনালে পাকিস্তানকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে ইংল্যান্ড। ফাস্ট বোলার স্যাম কারানের একটি দুর্দান্ত স্পেলের সৌজন্যে, বিজয়ীরা ২০ ওভারে পাকিস্তানকে ১৩৭/৮ রানে সীমাবদ্ধ করে রাখে। ইংল্যান্ডের রান চেস করার সময়,অলরাউন্ডার বেন স্টোকস তার দলকে লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করেন। তার জন্য একটি ম্যাচ জয়ী অর্ধশতক করেন স্টোকস। এছাড়াও ওডিআই ক্রিকেটে বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা ২০১৯ সালে ট্রফি তুলেছিল,ইংল্যান্ড প্রথম দল হয়ে উঠেছে যারা একই সময়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং ওডিআই বিশ্বকাপ উভয়ই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।

আরও পড়ুন… দলে যখন দ্রাবিড় আছে তখন ব্যাটিং কোচের দরকার কেন? গাভাসকরের বড় প্রশ্ন

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক হিসেবে জোস বাটলার অ্যান্ড কোম্পানির হাতে মর্যাদাপূর্ণ বিশ্ব খেতাব উঠেছে। বিশ্বব্যাপী নতুন মুকুট পরা চ্যাম্পিয়নদের জন্য অভিনন্দন বর্ষিত হয়েছে। প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক সচিন তেন্ডুলকর ইংল্যান্ড দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন এবং তাদের জয়কে‘অসাধারণ অর্জন’বলে অভিহিত করেছেন।

নিজের সোশ্যাল মিডিয়াতে সচিন তেন্ডুলকর পোস্ট করে লিখেছেন,‘আপনাদের দ্বিতীয় টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ের জন্য ইংল্যান্ডকে অভিনন্দন। অসাধারণ কৃতিত্ব। এটি একটি ক্লোজ লড়াই করা ফাইনাল ছিল এবং আফ্রিদি আহত না হলে এটি আরও আকর্ষণীয় হয়ে উঠত। বিশ্বকাপের রোলার কোস্টারটা অসাধারণ।’

আরও পড়ুন… BWF World Tour Finals থেকে নিজের নাম প্রত্যাহার করলেন পিভি সিন্ধু

শাহিন আফ্রিদি চোট পেয়ে মাঠ ছাড়াটাই পাকিস্তানের বিরুদ্ধে গিয়েছে বলে মনে করেন সকলে। পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজমও সেটার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। ২.১ ওভার বল করেই মাঠ ছাড়তে হয় শাহিন শাহ আফ্রিদিকে। বাবর তাই বলছিলেন, ‘আমাদের বোলিং অন্যতম সেরা। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত শাহিনের চোটের কারণে আমরা চাপে পড়ে যাই। ফলও তাই পাল্টে যায়। তবে এটা তো খেলারই অংশ।’

সেমিফাইনালের মতো ফাইনালেও টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ব্রিটিশ অধিনায়ক জস বাটলার। শুরু থেকেই স্যাম কারান,আদিল রশিদের দাপটের সামনে পাকিস্তানের ব্যাটিং অর্ডার নড়বড়ে হয়ে পড়ে। প্রথমে বল করে মেলবোর্নের উইকেট ভালো ভাবে কাজে লাগান ইংল্যান্ডের বোলাররা। নিয়মিত ব্যবধানে পাকিস্তানের উইকেট পড়তে থাকে। নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১৩৭ রান করে পাকিস্তান। রান তাড়া করতে নেমে ৬ বল বাকি থাকতে ৫ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় ইংল্যান্ড। অর্ধশতরান করেন বেন স্টোকস। ২০১০ সালের পরে আরও এক বার ২০ ওভারের বিশ্বকাপ জিতল ইংল্যান্ড। মাঝে ২০১৯ সালে তারা ওডিআই বিশ্বকাপ জিতেছিল ব্রিটিশ বাহিনী।

 

বন্ধ করুন