বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > Shoaib Malik crying: ‘ইউনিস খান আমায় বলেছিল…..’, লাইভ টিভিতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন শোয়েব মালিক!

Shoaib Malik crying: ‘ইউনিস খান আমায় বলেছিল…..’, লাইভ টিভিতেই কান্নায় ভেঙে পড়লেন শোয়েব মালিক!

আবেগতাড়িত শোয়েব মালিক। (ছবি সৌজন্যে ভিডিয়ো এ স্পোর্টস)

Shoaib Malik crying: ২০০৭ সালের উদ্বোধনী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনালে হেরে গিয়েছিল পাকিস্তান। ২০০৯ সালে ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ জিতেছিলেন শোয়েব মালিকরা। সেই ম্যাচের কথা স্মরণ করে কেঁদে ফেললেন পাকিস্তানের প্রাক্তন তারকা।

উদ্বোধনী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়ের সুবর্ণ সুযোগ ছিল। কিন্তু একটুর জন্য বিশ্বকাপ জিততে পারেনি পাকিস্তান। দু'বছর পর যখন পাকিস্তান বিশ্বকাপ জিতেছিল, তখন স্বভাবতই আবেগের বিস্ফোরণ ঘটেছিল। সেই মুহূর্তের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে লাইভ টিভিতে কেঁদে ফেললেন শোয়েব মালিক।

শনিবার পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম এ স্পোর্টসে পাকিস্তানের প্রাক্তন ক্রিকেটার শোয়েব বলেন, ‘মিসবাহ ভাই যেখানে শেষ করেছে, সেখান থেকেই বলব আমি। ইউনিস ভাইয়ের কথা অবশ্যই বলব। ইউনিস (২০০৯ সালের বিশ্বকাপে পাকিস্তানের অধিনায়ক ছিলেন ইউনিস খান) ভাইও আমার সঙ্গে একই কাজটা করেছিল। ২০০৯ সালের ফাইনালে আমায় ডেকে বলেছিল যে তুমি ট্রফিটা ধর। ওটা অত্যন্ত স্পেশাল মুহূর্ত ছিল। ওটা অত্যন্ত স্পেশাল মুহূর্ত ছিল।'

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে দুর্দান্ত ছন্দে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অভিযান শুরু করেছিল পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে হারিয়ে দিয়েছিল স্কটল্যান্ড। দ্বিতীয় ম্যাচে বল-আউটে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল। তারপর টানা চারটি ম্যাচ জিতেছিল পাকিস্তান। হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রেলিয়া, বাংলাদেশ এবং নিউজিল্যান্ডকে। ফাইনালে ভারতের কাছে পাঁচ রানে হেরে গিয়েছিল পাকিস্তান।

আরও পড়ুন: Pakistan vs England Final Live Updates: হ্যারি ব্রুককে সঙ্গে নিয়ে লড়াই চালাচ্ছেন বেন স্টোকস

ওই সংবাদমাধ্যমে শোয়েব বলেছেন, ‘২০০৭ সালের বিশ্বকাপের শুরুটা আমরা করেছিলাম করাচি থেকে। আমার এখনও মনে আছে, আকিব ভাই নিশ্চিত করেছিলেন যে আমরা পর্যাপ্ত সংখ্যক ম্যাচ ফেলি। আমরা নিজেদের মধ্যে প্রায় ১৫ টি ম্যাচ খেলেছিলাম। (পাকিস্তানের) এ দল এবং ভালো খেলোয়াড়রা সকলে করাচিতে ছিল। উনি দুটি দল বানিয়ে দিয়েছিলেন। আমরা ১২-১৫ টি ম্যাচ খেলেছিলাম। বিশ্বকাপের আগে কেনিয়ায় ম্যাচের আয়োজন করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। বিভিন্ন ধরনের ক্রিকেট খেলে আমরা এতটাই তৈরি হয়ে গিয়েছিলাম যে বাকি দলগুলির থেকে এক কদম এগিয়েছিলাম। সেজন্য ২০০৭ সালের বিশ্বকাপে দেখবেন, আমরা বড় দলগুলির উপর ছড়ি ঘুরিয়ে আমরা জিতেছিলাম। দুর্ভাগ্যজনকভাবে আমরা ফাইনাল জিততে পারিনি।’

আরও পড়ুন: PAK vs ENG: ক্যাচ মিস, ওভার থ্রোতে ৩ রান- কে বলবে বিশ্বকাপ ফাইনাল!

দু'বছর পরে ইংল্যান্ডে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ (T20 World Cup 2009) জিতেছিল পাকিস্তান। অথচ বিশ্বকাপের শুরুটা একেবারে বাজে হয়েছিল শাহিদ আফ্রিদিদের। ওভালে ৪৮ রানে হেরে গিয়েছিল পাকিস্তান। পরের ম্যাচটা জিতলেও তৃতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ১৯ রান হেরে গিয়েছিলেন ইউনিসরা। তারপর থেকেই পাকিস্তানের জয়রথ শুর হয়েছিল। গ্রুপ লিগের ম্যাচে নিউজিল্যান্ড এবং আয়ারল্যান্ডকে হারিয়ে দিয়েছিল। সেমিফাইনালে হারিয়েছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে। তারপর ফাইনালে শ্রীলঙ্কাকে আট উইকেটে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেছিল পাকিস্তান।

বন্ধ করুন