বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতে বিরাটের মেয়েকে ‘ধর্ষণের হুমকি দেওয়া’ IIT-র প্রাক্তনী
পরিবারের সঙ্গে বিরাট কোহলি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @imVkohli)
পরিবারের সঙ্গে বিরাট কোহলি। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @imVkohli)

পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতে বিরাটের মেয়েকে ‘ধর্ষণের হুমকি দেওয়া’ IIT-র প্রাক্তনী

  • আগামী সোমবার (১৫ নভেম্বর) পর্যন্ত ২৩ বছরের সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার রামগণেশ আকুবাথিনিকে পুলিশি হেফাজতে রাখা হবে।

বিরাট কোহলির মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়ার অভিযোগে ধৃত যুবকের পাঁচদিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিল আদালত। অর্থাৎ আগামী সোমবার (১৫ নভেম্বর) পর্যন্ত ২৩ বছরের সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার রামগণেশ আকুবাথিনিকে পুলিশি হেফাজতে রাখা হবে।

বৃহস্পতিবার আকুবাথিনিকে মুম্বইয়ের এসপ্ল্যানেডের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের কোর্টে তোলা হয়। সেখানে সরকারি আইনজীবী জানান, বারবার অ্যাকাউন্ট পরিবর্তন করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্রিকেটারদের ট্রল করত। অবশেষে তাকে চিহ্নিত করে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গত ২৪ অক্টোবর পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ভারতের শোচনীয় পরাজয়ের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণের মুখে পড়েছিলেন কোহলিরা। আক্রমণ থেকে বাদ যাননি ভারতীয় ক্রিকেটারদের পরিবারের সদস্যরাও। বিরাট এবং অনুষ্কা শর্মার নয় মাসের মেয়েকেও ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। ‘Amena @criccrazygirl’ (বর্তমানে ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে) নামে একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে বিরাটের মেয়েকে ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয়েছিল। প্রাথমিকভাবে দাবি করা হয়েছিল, অ্যাকাউন্টটি আদতে পাকিস্তানি বট অ্যাকাউন্ট। যদিও পরে তথ্য-যাচাইকারী পোর্টাল অল্ট নিউজের তরফে দাবি করা হয়, টুইটটি কোনও পাকিস্তানি করেনি, বরং করেছে এক ভারতীয়।

তারইমধ্যে গত ৮ নভেম্বর বিরাটের ম্যানেজারের অভিযোগের ভিত্তিতে এফআইআর দায়ের করে মুম্বই পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪এ (যৌন হেনস্থা) এবং ৫০৬ (অপরাধমূলক প্রবণতা) ধারায় মামলা রুজু করা হয়। সেইসঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৬৭ (বৈদ্যুতিন মাধ্যমে কোনও অশ্লীল জিনিস প্রকাশ করা বা প্রেরণ করা) এবং ৬৭ বি ধারায় (শিশুদের যৌন আচরণে লিপ্ত দেখিয়ে কোনও জিনিস প্রকাশ করা) মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করে পুলিশ। গত বুধবার মুম্বই পুলিশের এক আধিকারিককে উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা পিটিআই জানিয়েছিল, ২৩ বছরের আকুবাথিনিকে তেলাঙ্গানার সাঙ্গারেড্ডি থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের একটি বিশেষ দল। যে স্নাতকোত্তরে ভরতি হওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

বন্ধ করুন