বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > T20 WC: ভাগ্যই সহায়, ভারতকে কুপোকাত করা মিচেলের বছরখানেক আগে কিউয়ি দলে সুযোগ পাওয়াই ছিল কঠিন
ভারতের বিরুদ্ধে আগ্রাসী মিচেল। ছবি- এএনআই। (ANI)
ভারতের বিরুদ্ধে আগ্রাসী মিচেল। ছবি- এএনআই। (ANI)

T20 WC: ভাগ্যই সহায়, ভারতকে কুপোকাত করা মিচেলের বছরখানেক আগে কিউয়ি দলে সুযোগ পাওয়াই ছিল কঠিন

  • ভারতের বিরুদ্ধে ৩৫ বলে ৪৯ রান করেন ডারিল মিচেল।

নিউজিল্যান্ড বোলাররা ভারতকে মাত্র ১১০ রানে রোখার পর ব্যাট হাতে ভারতীয় বোলারদের খবর নেন কিউয়ি ওপেনার ডারিল মিচেল। ৩৫ বলে আগ্রাসী ৪৯ রান করে বেশ নজর কাড়েন ৩০ বছর বয়সী অলরাউন্ডার। অথচ বছরখানেক আগে সঠিক সময়ে বিশ্বকাপ হলে হয়তো নিউজিল্যান্ডের হয়ে সুযোগই পেতেন না মিচেল।

গত বছর সঠিক সময়ে বিশ্বকাপ আয়োজিত হলে হয়তো মিচেল কিউয়ি দলে সুযোগই পেতেন না। তবে প্রায় গোটা ২০২০-২১ মরশুম কলিন ডি'গ্রান্ডহোম চোটের কবলে খেলতে না পারায় দলে দ্বিতীয় অলরাউন্ডার হিসেবে মিচেলের ভাগ্যে শিঁকে ছেড়ে। তাও আদপে তাঁর মিডল অর্ডারে খেলার কথা ছিল। এখানেও ভাগ্য সহায় হয় তাঁর। টিম সেফার্ত কলকাতা নাইট রাইডার্সের সঙ্গে আইপিএলে ব্যস্ত থাকায় কিউয়িদের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে সেফার্তের বদলে মিচেলকে ওপেনিংয়ে পাঠানো হয় ২২ বলে ৩৩ রান করে তিনি প্রভাবিত করেন।

এই বিশ্বকাপের আগে মিচেল ১১৬টি ২০ ওভারের ম্যাচ খেললেও কোনোদিনও ওপেন করেননি। তবে  এর ফলে বিশ্বকাপেও তাঁকে ওপেনিংয়ে পাঠানো হয় এবং সেফার্ত স্পিনারদের বিরুদ্ধে ভাল হওয়ায় তাঁকে মিডল অর্ডারে সুযোগ দেওয়া হয়। ভারতের বিরুদ্ধে তার প্রতিদান দিয়েছেন মিচেল। নিউজিল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে তিন নম্বরে ব্যাট করায় তাঁকে খুব একটা কিছু পরিবর্তন করতে হয়নি বলেই জানান তিনি। 

এক ভার্চুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে মিচেল বলেন, ‘নিজেকে আমি সবসময় সব পরিস্থিতিতে মানিয়ে নেওয়ার জন্য প্রস্তুত করি, তা সে ব্যাট হাতে ওপেনিংই হোক বা অন্য কোন স্থানে ব্যাট করাই হোক। দিনের শেষে আমার দেশকে ম্যাচ জেতাতে যা প্রয়োজনীয় সেটা করতে আমি সবসময় রাজি। গত সুপার স্ম্যাশে (নিউজিল্যান্ডের টি-টোয়েন্টি লিগ) আমি তিন নম্বরে ব্যাট করেছি যা ওপেনিংয়ের থেকে খুব একটা পৃথক নয়। ঠান্ডা মাথায় নিজের দক্ষতার ওপর ভরসা রেখেই আমি যে ভূমিকাই আমাকে দেওয়া হোক তা পালন করার চেষ্টা করি। যেখানেই ব্যাট করি আমার জন্য ব্যক্তিগতভাবে কিছুই বদলায় না। ’

জসপ্রীত বুমরাহের মতো বোলারদের বিরুদ্ধে ওপেনিংয়ে খেলাটা বড় চ্যালেঞ্জ হলেও নিউজিল্যান্ডের পরিবেশে টেস্ট ক্রিকেট খেলায় সুইং খেলতে সমস্যায় পড়তে হয়নি বলে জানান কিউয়ি অলরাউন্ডার। মিচেলের ঘটনা প্রমাণ করে দেয় যে কোন সময় সুযোগ দরজায় এসে কড়া নাড়তে পারে, তাই সবসময় সবকিছুর জন্য নিদেনপক্ষে মানসিকভাবে নিজেকে তৈরি রাখাটা জরুরি।

বন্ধ করুন