বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > রাহুল থেকে পাণ্ডিয়া, ক্রমশ বেড়েছে রানের গতি, অন্যন্য নজির ভারতের
রাহুল-রোহিত জুটি আফগানদের বিরুদ্ধে প্রথম উইকেটে ১২৯ রান করে।
রাহুল-রোহিত জুটি আফগানদের বিরুদ্ধে প্রথম উইকেটে ১২৯ রান করে।

রাহুল থেকে পাণ্ডিয়া, ক্রমশ বেড়েছে রানের গতি, অন্যন্য নজির ভারতের

  • রাহুল, রোহিত,পন্ত, হার্দিক- আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে এই অর্ডারে ব্যাটসম্যানরা খেলতে নেমেছিলেন। এই অর্ডারে পরপর চার ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইকরেট ক্রমশ বেড়েছে। অর্থাৎ রাহুলের স্ট্রাইকরেট ছিল ১৪৩.৭৫। রোহিতের স্ট্রাইকরেট ছিল ১৫৭.৪৪। ঋষভের এবং হার্দিকের স্ট্রাইকরেট ছিল যথাক্রমে ২০৭.৬৯ এবং ২৬৯.২৩।

অবশেষে কেএল রাহুল, রোহিত শর্মারা নিজেদের ছন্দে ফিরলেন। বুধবার আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে তাঁরা রানের পাহাড় গড়লেন। ২ উইকেট হারিয়ে ২১০ রান করল ভারত। সেই সঙ্গে ভারতের প্রথম চার জন ব্যাটসম্যান গড়ে ফেললেন অদ্ভূত এক নজির। কেএল রাহুল থেকে হার্দিক পাণ্ডিয়া- ক্রমশ বেড়েছে রানের গতি। বেড়েছে স্ট্রাইকরেট।

কেএল রাহুল, রোহিত শর্মা, ঋষভ পন্ত, হার্দিক পাণ্ডিয়া- আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে এই অর্ডারে ব্যাটসম্যানরা খেলতে নেমেছিলেন। রাহুল, রোহিত ওপেন করেছেন ঠিকই, তবে স্ট্রাইক নেন রাহুল। সেই দিক থেকে দেখতে গেলে, এই অর্ডারে পরপর চার ব্যাটসম্যানের স্ট্রাইকরেট ক্রমশ বেড়েছে। অর্থাৎ রাহুলের স্ট্রাইকরেট ছিল ১৪৩.৭৫। রোহিতের স্ট্রাইকরেট ছিল আবার ১৫৭.৪৪। ঋষভ পন্তের স্ট্রাইকরেট ছিল ২০৭.৬৯। আর চারে ব্যাট করতে নামা হার্দিক পাণ্ডিয়ার স্ট্রাইকরেট ছিল ২৬৯.২৩। এই রকম অদ্ভূত নজির টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে আর নেই। ভারতের ব্যাটসম্যানরা এই প্রথম এমন নজির গড়েন। এখানে আরও একটি উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, প্রত্যেকের স্ট্রাইকরেটই ছিল ১৪০-এর উপরে।

আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে শুরুটা করেছিল রাহুল-রোহিত জুটি। শেষ করেন পন্ত এবং হার্দিক। প্রথম উইকেটে এ দিন বিধ্বংসী মেজাজে ১২৯ রান করে রাহুল-রোহিত জুটি। চেনা ছন্দে ৪৭ বলে ৭৪ রানের অসাধারণ ইনিংস খেলেন রোহিত। যোগ্য সঙ্গেত দেন কেএল রাহুল। তিনি ৪৮ বলে ৬৯ করেছেন। এর পরে পন্ত ১৩ বলে অপরাজিত ২৭ এবং হার্দিক ১৩ বলে অপরাজিত ৩৫ রান করে ভারতের ইনিংসের মধুরেণ সমাপয়েৎ করেন। প্রথমে ব্যাট করে ২ উইকেটে ২১০ রানের ইনিংস গড়ে ভারত।

বন্ধ করুন