বাংলা নিউজ > ময়দান > টি২০ বিশ্বকাপ > ‘দিনের পর দিন পেইন কিলার খেয়ে খেলি’, হারের পর বিদ্রুপের শিকার হওয়ায় ক্ষুব্ধ মাহমুদউল্লাহ
সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ
সাংবাদিক সম্মেলনে বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ

‘দিনের পর দিন পেইন কিলার খেয়ে খেলি’, হারের পর বিদ্রুপের শিকার হওয়ায় ক্ষুব্ধ মাহমুদউল্লাহ

  • বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। পাপুয়া নিউ গিনিকে ৮৪ রানে উড়িয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন মাহমুদউল্লাহ। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের উত্থান-পতনের প্রশ্নে তার উত্তরে মিশে থাকল ক্ষোভের ছোঁয়া।

বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। পাপুয়া নিউ গিনিকে ৮৪ রানে উড়িয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন মাহমুদউল্লাহ। টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের উত্থান-পতনের প্রশ্নে তার উত্তরে মিশে থাকল ক্ষোভের ছোঁয়া। বাংলাদেশের অধিনায়কের মুখেই ভেসে উঠল সেই ছবি। আসলে সমালোচনার ধরনটা মানতে পারেননি মাহমুদউল্লাহ। তিনি বলেন, ‘সমালোচনা হবেই। এটা কাম্য। কিন্তু সুস্থ সমালোচনা হলে সবার জন্য ভালো। আমরাও অনুভব করি। বাংলাদেশের জার্সিটা যখন আমরা গায়ে দেই তখন আমাদেরও ওই অনুভূতি হয় আমরা দেশের জন্য কতটুকু করি। সবারই ত্যাগ থাকে। কারও ব্যথা থাকে। কারও অনেক ইনজুরি থাকে। ওগুলো নিয়ে আমরা খেলি। দিনের পর দিন পেইন কিলার খেয়ে আমরা খেলি। পেছনের গল্পগুলো অনেকেই জানে না। এজন্য কমিটমেন্ট নিয়ে কখনও প্রশ্ন করা ঠিক নয়।’

টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে হারের পরেই বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের সামনে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল। কিন্তু পরের ম্যাচ জয়ের ফলে কিছুটা হলেও স্বস্তি পেয়েছে শাকিবরা। এই জয়ের কৃতিত্ব সকলকে দিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘আশা করি, এখন কিছুটা স্বস্তি পাব। সবচেয়ে বড় কথা, দলের ভেতরে যে উদগ্রীবতা (তাড়না), সেটা ইতিবাচক ছিল। এজন্য খেলোয়াড় এবং টিম ম্যানেজমেন্টকে কৃতিত্ব দেওয়া উচিত। শুধু আমরাই নই। আমাদের স্টাফ, সোহেল ভাই (ম্যাসাজম্যান), রমজান (বল থ্রোয়ার), প্রত্যেককে কৃতিত্ব দিতে হবে। সবাই দলের অংশ। আশা করছি, ভালো কিছু হবে সামনে।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক প্রশ্ন এসেছে। আমাদের ব্যাটিংয়ের স্ট্রাইক রেট প্রসঙ্গে। আমাদের তিন সিনিয়র ক্রিকেটারের স্ট্রাইক রেট নিয়ে। আমরা তো চেষ্টা করেছি। চেষ্টার বাইরে তো আমাদের কাছে কিছু নেই। এরকম না যে আমরা চেষ্টা করিনি। আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। কিন্তু ফল আমাদের পক্ষে আনতে পারিনি।’ নানা সমালোচনার পরে নিজের ক্ষোভ উগড়ে দেন বাংলাদেশের অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘অনেক প্রশ্ন এসেছে। আমাদের ব্যাটিংয়ের স্ট্রাইক রেট প্রসঙ্গে। আমাদের তিন সিনিয়র ক্রিকেটারের স্ট্রাইক রেট নিয়ে। আমরা তো চেষ্টা করেছি। চেষ্টার বাইরে তো আমাদের কাছে কিছু নেই। এরকম না যে আমরা চেষ্টা করিনি। আপ্রাণ চেষ্টা করেছি। কিন্তু ফল আমাদের পক্ষে আনতে পারিনি।’

‘শক্ত হওয়াটাই স্বাভাবিক। গত কয়েকদিনে… ঠিক আছে, আমরা মানুষ, আমরা ভুল করি। এ কারণে একেবারে ছোট করে ফেলা ঠিক নয়। এটা আমাদের দেশ। আমরা যখন খেলি, পুরো দেশ একসঙ্গে খেলি। এটা মাথায় থাকে সবসময়। আমাদের চেয়ে ফিলিংস কারও বেশি নয়, আমার মনে হয়। সমালোচনা অবশ্যই হবে, খারাপ খেলেছি। তবে একেবারেই ছোট করে ফেলা ঠিক নয়। আমাদের সবার কাছেই খারাপ লেগেছে। আমরাও আশা করি, সমালোচনা হোক। খারাপ খেলেছি, অবশ্যই সমালোচনা হবে। কেন হবে না? কিন্তু সমালোচনার মাধ্যমে যদি কেউ কাউকে ছোট করে ফেলে, তখন সেটা খারাপ লাগে।’

বন্ধ করুন