বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs AUS: ‘অস্ট্রেলিয়া ঘুরে দাঁড়ালে নির্বাচকদের পদত্যাগ করা উচিত,’ ফের বিস্ফোরক গাভাসকর

IND vs AUS: ‘অস্ট্রেলিয়া ঘুরে দাঁড়ালে নির্বাচকদের পদত্যাগ করা উচিত,’ ফের বিস্ফোরক গাভাসকর

সুনীল গাভাসকর

গত কয়েক দিন ধরেই ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া সিরিজকে কেন্দ্র করে একাধিক বিস্ফোরক মন্তব্য করে গিয়েছেন সুনীল গাভাসকর। এবার অজি নির্বাচকদের একহাত নিলেন তিনি। 

ভারতে বর্ডার-গাভাসকর ট্রফি শুরুর আগে থেকেই পিচ নিয়ে বিতর্ক শুরু করে অস্ট্রেলিয়া। নাগপুরের পিচ দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করে তারা। অস্ট্রেলিয়ার সংবাদমাধ্যম ও অনেক প্রাক্তন ক্রিকেটার নাগপুরের পিচকে নিয়ে বিভিন্ন মন্তব্য করতে থাকেন। তারপর দ্বিতীয় টেস্টে দিল্লিতে এই বিতর্ক কিছুটা স্থগিত হলেও ইন্দোরের হোলকার স্টেডিয়ামের পিচ নিয়ে বিতর্ক শুরু হয়।

পিচ বিতর্কের সঙ্গে সঙ্গেই কিছু অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ক্রিকেটার বর্তমান দলের ক্রিকেটারদের দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। এই বিষয়ে ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার সুনীল গাভাসকর মনে করেন, ক্রিকেটারদের দোষ দেওয়ার আগে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকমন্ডলীর ব্যর্থতা দেখা উচিত। উল্লেখ্য এই অস্ট্রেলিয়া দলে কয়েকজন ক্রিকেটার চোট আঘাতের সমস্যায় জর্জরিত হয়ে প্রথম থেকে ম্যাচ খেলতে পারেননি।

অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ক্রিকেটার অ্যালেন বর্ডার স্টিভ স্মিথের সমালোচনা করেন। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ওপেনার ম্যাথিউ হেডেন এই সিরিজে ওপেনারদের দুর্বলতা নিয়ে সমালোচনা করেন। তবে ভারতীয় কিংবদন্তি সুনীল গাভাসকর একপ্রকার অস্ট্রেলিয়া দলের বর্তমান ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। চোট আঘাতে জর্জরিত দল নির্বাচনের জন্য অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় নির্বাচকদের কাঠগড়ায় তুলেছেন সানি। তিনি বলেন, ‘অনেক প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার বর্তমান দলের ক্রিকেটারদের সমালোচনা করছে। তবে আমার মনে হয়, অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচকদের সমালোচনা করা উচিত। তারা কী করে এমন ক্রিকেটারদের নির্বাচন করেছে, যারা প্রথম দুই টেস্ট ম্যাচের জন্য প্রথম একাদশে জায়গা পাবে না। প্রায় অর্ধেক সিরিজ ধরে অস্ট্রেলিয়ার টিম ম্যানেজমেন্ট ১৩ জনের মধ্যে থেকে প্রথম একাদশ বেঁছে নিতে বাধ্য হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘দলে এমন একজন নতুন ক্রিকেটার আনা হল যার বিকল্প আগে থেকেই অস্ট্রেলিয়া দলে মজুত ছিল। তারা যদি মনে করে দলে থাকার নির্দিষ্ট প্লেয়ারটি উপযুক্ত নয়, তাহলে তাঁকে কেন প্রথমে রাখা হল। তাহলে হিসাব করে দেখা যাচ্ছে ১২ জনের মধ্যে থেকে ১১ জনকে নিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। যা সত্যি হাস্যকর। যদি অস্ট্রেলিয়া শেষ ম্যাচ জিতে সিরিজে সমতা ফেরায় তাহলে সব দায়িত্ব মাথায় নিয়ে জাতীয় নির্বাচক কমিটির পদত্যাগ করা উচিত।’

বর্ডার-গাভাসকর ট্রফির চারটি টেস্ট ম্যাচের মধ্যে তিনটি খেলা হয়ে গিয়েছে। প্রথম দুটিতে বড় ব্যবধানে জয় পেয়েছে ভারত। প্রথম দুই ম্যাচে হারের পর তৃতীয় ম্যাচ জেতে অস্ট্রেলিয়া। প্রত্যেক ম্যাচই তিন দিনের মধ্যে শেষ হয়েছে। তৃতীয় ম্যাচ জিতে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এই সিরিজের শেষ এবং চতুর্থ ম্যাচ জিতে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে নিজেদের জায়গা মজবুত করে নিতে চাইবে ভারত।

বন্ধ করুন