বাংলা নিউজ > ময়দান > মোদীর পশুপ্রেমে মুগ্ধ প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক, হিন্দিতে লিখলেন বিশেষ বার্তা
প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেভিন পিটারসেন।

মোদীর পশুপ্রেমে মুগ্ধ প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক, হিন্দিতে লিখলেন বিশেষ বার্তা

  • শনিবার (১৭ সেপ্টম্বর) নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিনে প্রায় সাত দশক পর দেশে এসেছে ৮ চিতা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে উপস্থিত থেকে তাদের মধ্য প্রদেশের কুনো জাতীয় উদ্যানে ছেড়েছেন। শুধু তাই নয়, কেন্দ্রে ৮ বছরের জমানায় দেশে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে একাধিক পদক্ষেপ করতে দেখা গিয়েছে।

বিজেপি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকারের অধীনে বন্যপ্রাণী প্রজাতির সংখ্যায় উল্লেখযোগ্য বৃদ্ধি পাওয়ার রেকর্ড করেছে বলে দাবি করা হয়েছে বিজেপি-র তরফে। এই বিষয়ে তাদের তরফে একটি টুইট করা হয়েছে। আর সেই টুইটের পাল্টা জবাব দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রতি নিজের মুগ্ধতার কথা জানিয়েছেন প্রাক্তন ব্রিটিশ অধিনায়ক কেভিন পিটারসেন। তাও আবার হিন্দিতে।

পিটারসেন ভারতে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে সহায়তা করার জন্য প্রধানমন্ত্রী মোদীকে তাঁর নিরবিচ্ছিন্ন প্রচেষ্টার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন। তাকে বড় মনের মানুষ বলে অভিহিত করে পিটারসেন লিখেছেন, ‘সব নেতার আপনার নেতৃত্ব অনুসরণ করা উচিত।’

আরও পড়ুন: T20-তে ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার চালু করছে BCCI, আউট হওয়া ব্যাটারেরও পরিবর্ত নামানো যাবে

টুইটের মধ্যে দিয়েই মোদীর প্রতি পিটারসেনের মুগ্ধতা এবং শ্রদ্ধা প্রকাশ পেয়েছে। তিনি লিখেছেন, ‘ভারতে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে আপনার অব্যাহত প্রচেষ্টার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ! এটি আমার হৃদয়ের খুব কাছের বিষয়। কি চমৎকার মানুষ! সমস্ত নেতাদের আপনার নেতৃত্ব অনুসরণ করা উচিত @নরেন্দ্রমোদি @BJP4ইন্ডিয়া’।

শনিবার (১৭ সেপ্টম্বর) নরেন্দ্র মোদীর জন্মদিনে প্রায় সাত দশক পর দেশে এসেছে ৮ চিতা। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নিজে উপস্থিত থেকে তাদের মধ্য প্রদেশের কুনো জাতীয় উদ্যানে ছেড়েছেন। শুধু তাই নয়, কেন্দ্রে ৮ বছরের জমানায় দেশে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ নিয়ে একাধিক পদক্ষেপ করতে দেখা গিয়েছে। তার ফলাফলও পেয়েছে এই দেশ। ২০১৪ থেকে ২০২২ সাল অবধি বন্যপ্রাণীর জন্য সংরক্ষিত এলাকার জায়গা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে।

আরও পড়ুন: XYZ যা খুশি বলতে পারেন- হার্দিকের সঙ্গে তাঁর তুলনা টানায়, গাভাস্করকে খোঁটা রবির

২০১৪ সালে দেশের মোট ভৌগোলিক এলাকার ৪.৯০ শতাংশ ছিল সংরক্ষিত এলাকা। বর্তমানে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫.০৩ শতাংশ। শুধু তাই নয়, ২০১৪ সালে মোট ১,৬১,০৮১.৬২ বর্গকিলোমিটারের ৭৪০ টি সংরক্ষিত এলাকা ছিল। বর্তমানে তা বেড়ে ১,৭১,৯২১ বর্গকিলোমিটারের ৯৮১ টি সংরক্ষিত স্থান রয়েছে হয়েছে। শুধুমাত্র সংরক্ষিত এলাকার ক্ষেত্রেই নয় গত চার বছরে অরণ্য ও বৃক্ষের আয়তন বেড়েছে ১৬ হাজার বর্গকিলোমিটার। বনভূমির ক্ষেত্রে আয়তন বৃদ্ধির ক্ষেত্রে ভারত বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মধ্যে নিজের জায়গা করে নিয়েছে।

কমিউনিটি রিজার্ভের সংখ্যাও বেড়েছে। ২০১৪ সালে কমিউনিটি রিজার্ভের সংখ্যা ছিল ৪৩ টি। ২০১৯ সেই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০০টি। ভারতে ১৮ টি রাজ্যের প্রায় ৭৫ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে রয়েছে ৫২ টি টাইগার রিজার্ভ। বিশ্বের মোট বাঘের ৭৫ শতাংশ রয়েছে ভারতেই।

বন্ধ করুন