বাংলা নিউজ > ময়দান > চিপকের বাইশগজে ভারতীয় বোলারদের নাস্তানাবুদ করে নয়া নজির ইংল্যান্ডের
ডাবল সেঞ্চুরির পর রুট। ছবি- টুইটার।
ডাবল সেঞ্চুরির পর রুট। ছবি- টুইটার।

চিপকের বাইশগজে ভারতীয় বোলারদের নাস্তানাবুদ করে নয়া নজির ইংল্যান্ডের

  • ১৭ বছর পরে ফের টেস্টের এক ইনিংসে ১৯০ ওভারের বেশি বল করতে হল ভারতকে।

শুভব্রত মুখার্জি

শ্রীলঙ্কার মাটিতে ম্যাথিউজদের কার্যত ধরাশায়ী করে ভারতের মাটিতে পা রাখেন রুটরা। শ্রীলঙ্কাকে হোয়াইটওয়াশ করার পরে তাঁদের আত্মবিশ্বাস স্বাভাবিকভাবেই তুঙ্গে। চিপকের উইকেটে সেটা বারবার প্রমান করে চলেছেন রুটরা।

চিপকের প্রথম দুদিনে ভারতীয় বোলাররা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছেন যে ইংরেজ ব্যাটসম্যানরা তাঁদের রাতের ঘুম কেড়ে নেওয়ার ক্ষমতা রাখেন। প্রথম দুদিন রুট, সিবলিরা যেভাবে উইকেট কামড়ে পড়েছিলেন, তাতে তাঁদের অল-আউট কিভাবে করবে তাই বুঝে উঠতে পারছিলেন না ভারতীয় বোলাররা।

তবে তৃতীয় দিনের শুরুতেই ভারতীয় বোলাররা রুটদের ৫৭৮ রানে অল-আউট করতে সমর্থ হন। অসাধারণ দ্বিশতরান করেন অধিনায়ক রুট। সিবলি অর্ধশতরান করলেও একটুর জন্য শতরান করতে অসমর্থ হন। স্টোকস ঝোড়ো গতিতে তাঁর অর্ধশতরান সম্পন্ন করেন। সবমিলিয়ে যাকে বলে একেবারে নিখুঁত পারফরম্যান্স করেন ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যানরা।

আর ইংরেজ ব্যাটসম্যানদের এই পারফেক্ট পারফরম্যান্সের উপর নির্ভর করেই ভারতীয় বোলারদের বিরুদ্ধে টেস্টে ইতিহাসে এক বিরল নজির স্থাপন করে ফেললেন তারা। ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে আমদাবাদে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে শেষবার ভারতীয় বোলারদের ১৮০ ওভারের বেশি বল করতে হয়েছিল। তার ঠিক ১২ বছর বাদে চিপকে রুটদের বিরুদ্ধে ভারতীয় বোলারদের বল করতে হল ১৯০.১ ওভার। বলা বাহুল্য এটি ভারতীয় বোলারদের এক ইনিংসে দ্বিতীয় দীর্ঘতম বোলিং।

প্রসঙ্গত ২০০৪-০৫ সালে কানপুরে হ্যান্সি ক্রোনিয়ের নেতৃত্বাধীন প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ১৯০.৪ ওভার বল করতে হয়েছিল কুম্বলেদের। তারপরে ১৭ বছর বাদে ফের ১৯০-এর বেশি ওভার টেস্টের এক ইনিংসে বিপক্ষ ব‌্যাটসম্যানদের বল করতে হল ভারতীয় বোলারদের।

বন্ধ করুন