বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs ENG: ‘হ্যাটস অফ পন্ত, কিন্তু আমরা ভীত নই’, মচকালেও ভাঙছেন না ব্রিটিশ সহকারী কোচ
ঋষভ পন্ত।

IND vs ENG: ‘হ্যাটস অফ পন্ত, কিন্তু আমরা ভীত নই’, মচকালেও ভাঙছেন না ব্রিটিশ সহকারী কোচ

  • ব্রেন্ডন ম্যাকালাম টেস্ট দলের কোচ হওয়ার পর থেকেই ইংল্যান্ড এমন আগ্রাসী এমন ক্রিকেট খেলছে। আর পন্ত যেন ম্যাকালামের সেই আগ্রাসী পদ্ধতিকেই অবলম্বন করেছেন। কলিংউড তাই বলেছেন, ‘পন্ত যেন বাজবল খেলতে এসেছেন। সকলেই তাই বলছেন।’

জ্যাক লিচ এবং জেমস অ্যান্ডারসনদের নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলা করলেন ঋষভ পন্ত। বিরাট কোহলি, চেতেশ্বর পূজারারা যখন ল্যাজেগোবরে হয়ে ড্রেসিংরুমে ফিরে গিয়েছেন, পরপর উইকেট হারিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকে গিয়েছিল ভারতের, তখন চরম ঔদ্ধত্যের সঙ্গে লড়াই করলেন পন্ত। একেবারে ব্রিটিশ বোলারদের কচুকাটা করে।

ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট খেলতে নেমেও আগ্রাসী মেজাজেই দেখা দিলেন ঋষভ পন্ত। ধৈর্য ধরে প্রাথমিক চাপ কাটিয়ে পাল্টা আক্রমণ শুরু করলেন তরুণ উইকেটরক্ষক-ব্যাটার। পরে তো একেবারে টি-টোয়েন্টির মেজাজে পন্ত ১১১ বলে ১৪৬ রান করে ফেলেন। তাঁর এই ঝকঝকে ইনিংসে রয়েছে ১৯টি চার এবং ৪টি ছক্কা। ভারতের যখন ৩ উইকেটে ৬৪ রান, তখন ক্রিজে এসেছিলেন পন্ত। তার পরেও ভারতের উইকেট হারানোর ধারা অব্যাহত ছিল। সেখানে থেকে ক্রিজে টিকে থেকে নিজের মেজাজেই লড়াই করে গিয়েছেন পন্ত।

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডকে কচুকাটা করলেন পন্ত, দেখুন ৬ মিনিটের হাইলাইটস

আর পন্তের এই ইনিংস দেখে উচ্ছ্বসিত ইংল্যান্ডের কোচ পল কলিংউড। তবে তিনি এও বলেছেন, তারা ভারতের এই ঘুরে দাঁড়ানোতে মোটেও ভীত নয়। তিনি বলেছেন, ‘পন্ত যে ইনিংস খেলেছে, তাতে ওকে হ্যাটস অফ! বিশ্বমানের ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে খেলার সময় বিশ্বমানের নানা ঘটনা ঘটেই থাকে। চতুর্থ ইনিংসে কত রান তাড়া করতে হবে সেটা ভেবে আমরা মোটেই ভীত নই। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে যেভাবে তিনটি টেস্টে আমরা রান তাড়া করে জিতেছি তাতে একটা বিষয় স্পষ্ট, প্রথম ইনিংসে প্রতিপক্ষ কত রান তুলল তাতে আমরা একেবারেই চিন্তিত হই না।’

আরও পড়ুন: চলো একটা পার্টনারশিপ গড়ি- জাদেজাকে সহজ পরামর্শ দেন পন্ত

প্রসঙ্গত, কিউয়িদের বিরুদ্ধে ইংল্যান্ড তিনটি টেস্টেই আড়াইশোর উপর রান তাড়া করে জিতেছে। শেষ দুটি টেস্টে তো একদিনের মেজাজে ব্যাটিং করেছে। ব্রেন্ডন ম্যাকালাম টেস্ট দলের কোচ হওয়ার পর থেকেই ইংল্যান্ড এমন আগ্রাসী এমন ক্রিকেট খেলছে। আর পন্ত যেন ম্যাকালামের সেই আগ্রাসী পদ্ধতিই অবলম্বন করছেন পন্ত। 

কলিংউড তাই বলেছেন, ‘পন্ত যেন বাজবল খেলতে এসেছেন। সকলেই তাই বলছেন।’ তিনি এর সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘আমরা চিরাচরিত পদ্ধতিতে টেস্ট ক্রিকেট খেলছি না। যতটা সম্ভব আক্রমণাত্মক হওয়া যায়, তেমনটাই খেলছি। আক্রমণাত্মক ফিল্ড প্লেসিংয়ের মাধ্যমে উইকেট তুলে নেওয়াই আমাদের লক্ষ্য থাকে।’

ইংল্যান্ড যে আক্রমণাত্মক খেলার মানসিকতা থেকে সরছে না, সেটাও কলিংউড পরিষ্কার করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ‘প্রথম দিন আমরা যেভাবে খেলেছি তাতে খুশি। ৩৬০ থেকে ৩৭০ রানের মধ্যে ভারতকে বেঁধে ফেললে আমরাই সুবিধাজনক জায়গায় থাকব।’ প্রসঙ্গত, নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টানা তিনটি টেস্টে পরে ব্যাট করে জয় ছিনিয়ে নিয়েছে ইংল্যান্ড। তাই ভারতের বিরুদ্ধেও টসে জিতে ফিল্ডিংই নেন বেন স্টোকস।

পন্তকে প্রথম দিন যোগ্য সঙ্গত করছেন রবীন্দ্র জাদেজাও। একটা সময় ভারতের স্কোর ছিল ৯৮/৫। সেখান থেকে দুই বাঁ-হাতির দাপট দেখল ইংরেজরা। এক দিকে পন্ত দ্রুত রান তুলছেন, অন্য দিকে ক্রিজ কামড়ে পড়ে ছিলেন রবীন্দ্র জাদেজা। মাত্র ৮৯ বলে শতরান করেন পন্ত। টেস্টে তাঁর পঞ্চম শতরান। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয়। পাঁচটির মধ্যে চারটি শতরানই এসেছে বিদেশের মাটিতে। টেস্টে ভারতের উইকেটরক্ষক হিসাবে দ্রুততম শতরান করলেন পন্ত। ভেঙে দিলেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনির রেকর্ড।

জাদেজা-পন্ত জুটি ষষ্ঠ উইকেটে যোগ করে ২২২ রান। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্টে ভারতের সেরা ষষ্ঠ উইকেটের জুটি উপহার দিল দীর্ঘতম টেস্ট সিরিজের পঞ্চম টেস্ট। আর পন্ত-জাদেজা জুটিই ভারতকে পৌঁছে দিল লড়াই করার মতো মঞ্চে। প্রথম দিনের শেষে ভারতের স্কোর ৭ উইকেটে ৩৩৮।

বন্ধ করুন