বাংলা নিউজ > ময়দান > বিরাটের মতো ক্যাপ্টেন বিরল, রোহিতকে নিয়ে সন্দেহ ছিল আগে, কিন্তু মুগ্ধ করল-সঞ্জয় মঞ্জরেকর
লর্ডস টেস্টে উচ্ছ্বসিত বিরাট কোহলি। ছবি- রয়টার্স। (Action Images via Reuters)
লর্ডস টেস্টে উচ্ছ্বসিত বিরাট কোহলি। ছবি- রয়টার্স। (Action Images via Reuters)

বিরাটের মতো ক্যাপ্টেন বিরল, রোহিতকে নিয়ে সন্দেহ ছিল আগে, কিন্তু মুগ্ধ করল-সঞ্জয় মঞ্জরেকর

  • ম্যাচের দুটি টার্নিং পয়েন্টও তুলে ধরেছেন প্রাক্তন তারকা

শুভব্রত মুখার্জি

লর্ডসে ভারত বনাম ইংল্যান্ড চলতি টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে ভারত যেভাবে জয় তুলে নিয়েছে তা এককথায় অনবদ্য। ভারতীয় বোলারদের দাপট, ভারত অধিনায়কের আগ্রাসী অধিনায়কত্বে ভর করেই এই অসম্ভবকে সম্ভব করতে সমর্থ হয়েছিল বিরাট বাহিনী। হিন্দুস্তান টাইমসের হয়ে বিরাট বাহিনীর সেই পারফরম্যান্স সহ গোটা সিরিজের এখনও পর্যন্ত পারফরম্যান্সের পর্যালোচনা করতে গিয়ে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার তথা ধারাভাষ্যকার সঞ্জয় মঞ্জরেকর জানালেন লর্ডস টেস্টের মূলত দু'টো টার্নিং পয়েন্ট ছিল। আর সেই দু'টিই ভারত নিজেদের দখলে করার ফলেই ঐতিহাসিক লর্ডস টেস্ট জয় সম্ভব হয়েছে।

মঞ্জরেকর লেখেন, 'প্রথমদিন ভারত টসে হারার পরে রোহিত (শর্মা) এবং (লোকেশ) রাহুল যেভাবে ইনিংস ওপেন করেছেন তা এককথায় অনন্য। মেঘলা পরিবেশে বল সুইং করছিল। লর্ডসের পিচটা অল্প স্লোও ছিল। টি-২০'র যুগে যেখানে ব্যাটসম্যানরা সবসময় 'অন দি আপ' খেলতে অভ্যস্ত সেই অভ্যাস একেবারে পরিত্যাগ করে রাহুল-রোহিত জুটি ক্রিজ আঁকড়ে পড়ে থাকে। ভারতকে একটা অনবদ্য ওপেনিং পার্টনারশিপ উপহার দেন। তারা অফ স্ট্যাম্পের বাইরের বলকে খেলার চেষ্টা করেননি,অনেকটা দেরি করে বলকে খেলেছেন। ঘন্টার পর ঘন্টা মাত্র ২০ স্ট্রাইক রেটে ব্যাট করে গেছেন। অপেক্ষা করেছেন বাজে বলের। রোহিতের ডিফেন্স এই মুহূর্তে ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে সেরা। ওয়ানডে ক্রিকেটে যার তিনটি দ্বিশতরান রয়েছে তারপক্ষে টেস্টে এতটা ধরে ধরে খেলাটা এককথায় অনবদ্য।'

মঞ্জরেকর জানান টেস্টে ওপেনার হিসেবে রোহিতের সাফল্য নিয়ে তিনিও সন্দিহান ছিলেন। রোহিতকে মূলত টি-২০ তে ফর্মের উপর ভিত্তি করেই এই সুযোগ দেওয়া হয়েছিল বলে মঞ্জরেকর তার সাফল্য নিয়ে চিন্তায় ছিলেন। দ্বিতীয় টার্নিং পয়েন্ট বাছতে গিয়ে প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার, তৃতীয় দিনের শেষে জেমস অ্যান্ডারসনকে করা বুমরাহের একাধিক বাউন্সারের ওভারটিকে তুলে ধরেন। 

সাধারণত বুমরাহ টেল এন্ডারদের ইয়র্কার বল করতে ভালবাসেন। সেদিন তিনি অ্যান্ডারসনকে লক্ষ্য করে একের পর এক বাউন্সার বল করতে থাকে, যা মঞ্জরেকরের মতে, বিরাট কোহলির এটা পরিকল্পনাও হতে পারে যা মাঠে নেমে বুমরাহ সঠিকভাবে প্রয়োগ করেছে। বিপক্ষের প্রধান অস্ত্রকে এইভাবে টার্গেট করার ফলে ইংল্যান্ড কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায়। তিনি আরও যোগ করেন যে তাঁর জীবনে একজন অধিনায়ক ছাড়া তিনি বিপক্ষের প্রধান ফাস্ট বোলিং 'অস্ত্রকে' এইভাবে বল হাতে আক্রমণ করতে দেখেননি কারণ তারা সকলেই প্রত্যাঘাতকে ভয় পেতেন। যা বিরাটের মধ্যে একেবারেই নেই। 

তিনি দাবি করেন, ‘বিরাট যে আক্রমণাত্মক ভঙ্গিমায় খেলেন, সেই স্পিরিটটা গোটা দলের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। তৃতীয় দিনের শেষে যখন অ্যান্ডারসন সাজঘরে ফিরে যাচ্ছিলেন তখন তাঁকে দেখে এই বাউন্সারগুলোর প্রভাব স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছিল। ব্যাটসম্যান বুমরাহ মাথায় দুবার শর্ট বলের আঘাত লাগার পরেও অদম্য জেদের সঙ্গেই তিনি লড়াই চালিয়ে যান। ওর সঙ্গে (মহম্মদ) শামি জুটি বেঁধে ভারতকে সুরক্ষিত জায়গায় পৌঁছে দেয়। ইংল্যান্ডের ব্যাটিং লাইন আপ খুব সাদামাটা। লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে তারা মাত্র ৬০ ওভারও ব্যাট করতে পারল না। তার কৃতিত্ব অবশ্য প্রাপ্য ভারতীয় পেসারদের।’ তাই সঞ্জয় মঞ্জরেকর মনে করেন চলতি সিরিজে সবক্ষেত্রেই ভারত, রুটের ইংল্যান্ডের থেকে বেশ কিছুটা এগিয়ে।

বন্ধ করুন