বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs ENG: উমেশের ভালো বোলিং দেখে চমকে গেলেন হোল্ডিং, হতাশ অন্য ভারতীয়কে ঘিরে
মাইকেল হোল্ডিং। ছবি- রয়টার্স।
মাইকেল হোল্ডিং। ছবি- রয়টার্স।

IND vs ENG: উমেশের ভালো বোলিং দেখে চমকে গেলেন হোল্ডিং, হতাশ অন্য ভারতীয়কে ঘিরে

  • ৬২ রানে পাঁচ উইকেট হারালেও, ইংল্যান্ড ওভালে শেষ পর্যন্ত প্রথম ইনিংসে ২৯০ রান করে।

ওভালে চতুর্থ টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষে ভারত পিছিয়ে ৫৬ রানে। প্রথম ইনিংসে ভারতের থেকে ৯৯ রানের লিড নিয়ে ওলি পোপের দুরন্ত ৮১ ও ক্রিস ওকসের শেষবেলায় অর্ধশতরানের দৌলতে ২৯০ রান করে ইংল্যান্ড। দিনের শেষে ভারতের স্কোর ৪৩। দ্বিতীয় দিনে শার্দুল ঠাকুরের বোলিংয়ে নিজের হতাশা জাহির করেন ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান কিংবদন্তী মাইকেল হোল্ডিং। 

দিনের শুরুতেই ইংল্যান্ডের দুই উইকেট তুলে নিয়ে চাপ সৃষ্টি করতে সক্ষম হন উমেশ যাদব। বেশ কয়েকদিন পরে জাতীয় দলে সুযোগ পেয়ে নিজের জাত চেনান ৩৩ বছর বয়সী ভারতীয় ফাস্ট বোলার। উমেশের পারফরম্যান্সে বিস্মিত হোল্ডিং। Sky Sports-এ দিনের শেষে পর্যালোচনা সভায় তিনি বলেন, ‘(উমেশ) আমাকে অবাক করে দিয়েছে। কারণ সত্যি বলতে এই পরিবেশে ও (জসপ্রীত) বুমরাহের থেকেও বেশি কার্যকরী হবে বলে ভাবিনি। তবে ও সেটাই করে দেখিয়েছে। বুমরাহ এবং ও দুইজনেই বেশ কয়েকটি ভাল বল করে এবং দারুণ নিয়ন্ত্রণের পরিচয় দেয়।’

তবে মাত্র ৬২ রানে পাঁচ উইকেট হারানোর পরই ইংল্যান্ডের হয়ে জনি বেয়ারস্টো ও পোপের প্রতিআক্রমণে খানিকটা ফ্যাকাশে দেখায় ভারতীয় বোলিং আক্রমণকে। দিনের শুরুতে উমেশের তৈরি করা চাপ বজায় রাখতে ব্যর্থ হন বাকি বোলাররা। তার সুযোগ নিয়ে পর পর দুটি ভাল পার্টনারশিপ গড়ে ম্যাচে ফিরে আসে ইংলিশ বাহিনী। এই কারণেই কিছুটা হলেও বিশেষত শার্দুল ঠাকুরের বোলিং নিয়ে হতাশ হোল্ডিং।

‘প্রথম ঘন্টার পরে ওদের (ভারতের) তরফে কেউই চাপ বজায় রাখতে পারেনি, এটাই যা আমায় হতাশ করেছে। ঠাকুর বল করে ঠিকই, কিন্তু ও যাদব বা বুমরাহের মতো উইকেট নেয় না। পিচে তেমন কিছুই ছিল না এবং এমন পরিবেশে ও একদমই কার্যকরী হবে না।’ মত হোল্ডিংয়ের। তৃতীয় দিনে ভারতের হাতে দশ উইকেটই রয়েছে। ভারতীয় সমর্থকরা চাইবেন দল যেন এক বড় লিড নিয়ে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জয়ের জন্য ঝাঁপায়।

বন্ধ করুন