বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs NZ: একানার পিচ নিয়ে ক্ষোভ, চাকরি গেল পিচ কিউরেটরের

IND vs NZ: একানার পিচ নিয়ে ক্ষোভ, চাকরি গেল পিচ কিউরেটরের

একানার পিচ নিয়ে বিতর্ক চলছেই।

রবিবার ছয় উইকেটের জয়ের পর ভারতের অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া পিচ নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, ‘উইকেট ছিল ভয়াবহ’। এই পিচে ৩৯.৫ ওভারের মধ্যে ৩০টি স্পিন বোলিং করা হয়েছে এবং দুই ইনিংস মিলিয়ে এই পিচে ২০০-র কিছুটা বেশি রান হয়েছে।

রবিবার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে ভারত কোনও মতে জিতে, সিরিজে ১-১ সমতা ফেরায়। ভারত লখনউয়ে কিউয়িদের দেওয়া ১০০ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে এক বল বাকি থাকতে ম্যাচ পকেটে পুড়ে ফেলে। তবে ভারত জিতলেও পিচ নিয়ে চূড়ান্ত বিতজ্ঞক শুরু হয়েছে। ভারতীয় দলই রীতিমতো ক্ষোভ উগরে দিচ্ছে। এই বিতর্কের কারণে কাঠগড়ায় উঠেছেন পিচ কিউরেটর। যার জেরে নাকি চাকরি গিয়েছে তাঁর। উত্তরপ্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সূত্র অনুসারে, লখনউয়ের একানা স্টেডিয়ামের পিচ কিউরেটরকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

রবিবার ছয় উইকেটের জয়ের পর ভারতের অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া পিচ নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন, ‘উইকেট ছিল ভয়াবহ’। এই পিচে ৩৯.৫ ওভারের মধ্যে ৩০টি স্পিন বোলিং করা হয়েছে এবং দুই ইনিংস মিলিয়ে এই পিচে ২০০-র কিছুটা বেশি রান হয়েছে।

আরও পড়ুন: শিখরকে ফেরানো হবে, নাকি শুভমন-ইশানই ভরসা, ওপেনার বিতর্কে রং চড়ালেন অশ্বিন

ভারত অধিনায়ক রাঁচির জেএসসিএ স্টেডিয়ামের পিচের অবস্থা নিয়েও অসন্তুষ্ট ছিলেন। যেখানে কিউয়িদের কাছে ভারতকে ২১ রানে হারতে হয়েছিল। হার্দিক বলেছেন, ‘আমরা এখনও পর্যন্ত যে দু'টি পিচে খেলেছি, সেটা ছিল ভয়াবহ। কঠিন উইকেটে আমার আপত্তি নেই। আমি তার জন্য প্রস্তুত, কিন্তু এই দু'টি উইকেট টি-টোয়েন্টির জন্য তৈরি নয়। কিউরেটর বা আমরা যে মাঠে খেলতে যাচ্ছি তাদের নিশ্চিত করা উচিত যে তারা আগে থেকেই পিচ প্রস্তুত করেছে।’

সূত্রের খবর, কিউরেটর আগে থেকেই ম্যাচের জন্য দু'টি কালো মাটির পিচ প্রস্তুত করেছিলেন। তবে ম্যাচের তিন দিন আগে টিম ম্যানেজমেন্টের শেষ মুহূর্তের অনুরোধের প্রেক্ষিতে, কিউরেটরকে পরিবর্তে লাল মাটি দিয়ে তৈরি একটি নতুন পিচ প্রস্তুত করতে বলা হয়েছিল। নতুন পিচ স্বল্প নোটিশে পর্যাপ্ত ভাবে প্রস্তুত করা সম্ভব হয়নি। যাার ফল ভুগতে হয়েছে ক্রিকেটারদের।

আরও পড়ুন: তুমি এই বলে ম্যাচ শেষ করবে-হার্দিকের কথাতেই বৃদ্ধি পেয়েছিল মনোবল, জানালেন সূর্য

টিম ইন্ডিয়ার বোলিং কোচ পরশ মামরে আবার পিচ নিয়ে বলেন, ‘পিচ নিয়ে বলার জন্য একমাত্র যোগ্য ব্যক্তি পিচ প্রস্তুতকারক। এই বিষয়ে তিনি-ই জবাব দিতে পারবেন। ১২০-১৩০ রানের মধ্যে এই উইকেটে রান থাকলেই তা খুব শক্ত চ্যালেঞ্জ হত। আমরা খুব ভালো বল করেছি। ওদেরকে ৯৯ রানে আটকে রেখেছিলাম। যা কুর্নিশযোগ্য পারফরম্যান্স। জয়ের জন্য এই লক্ষ্যমাত্রা সহজেই করে ফেলা উচিত ছিল।’ আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি দল লখনউ সুপার জায়ান্টসের পরামর্শদাতা গৌতম গম্ভীর আবাার এই পিচকে ‘সাব-স্ট্যান্ডার্ড উইকেট’ বা নিম্নমানের বলে অভিহিত করেছেন।

লখনউয়ের পিচ কিউরেটরের পরিবর্তে এখন গোয়ালিয়রের সঞ্জীব আগরওয়ালকে নিযুক্ত করা হয়েছে। যাতে মার্চ মাসে আইপিএল শুরুর আগে এই পিচ সঠিক ভাবে প্রস্তুত করা সম্ভব হয়।

বন্ধ করুন