বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs NZ: কার জন্য আউট সত্ত্বেও DRS নেওয়া হয়নি? 'মেজাজ হারিয়ে' দোষী চিহ্নিত করলেন অশ্বিন!
কানপুরে জোরালো আপিল সত্ত্বেও রিভিউ নেয়নি ভারত। কিন্তু দেখা যায়, উইকেটে বল লাগছে। (ছবি সৌজন্য টুইটার @ICC এবং টুইটার)
কানপুরে জোরালো আপিল সত্ত্বেও রিভিউ নেয়নি ভারত। কিন্তু দেখা যায়, উইকেটে বল লাগছে। (ছবি সৌজন্য টুইটার @ICC এবং টুইটার)

IND vs NZ: কার জন্য আউট সত্ত্বেও DRS নেওয়া হয়নি? 'মেজাজ হারিয়ে' দোষী চিহ্নিত করলেন অশ্বিন!

  • কানপুরে জোরালো আপিল সত্ত্বেও রিভিউ নেয়নি ভারত। কিন্তু দেখা যায়, উইকেটে বল লাগছে।

কানপুরে জোরালো আপিল সত্ত্বেও রিভিউ নেয়নি ভারত। কিন্তু পরে দেখা যায়, উইকেটে বল লাগছে। সেই রিভিউ না নেওয়ার জন্য মজার ছলে কেএস ভরতকে ‘দায়ী’ করলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। জানালেন, অজিঙ্কা রাহানে এবং তিনি আত্মবিশ্বাসী ছিলেন। কিন্তু উইকেটকিপার ভরত আরও আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেন যে ব্যাটে লেগেছে বল।

শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে দ্বিতীয় দিনে কোনও উইকেট তুলতে পারেননি। তৃতীয় দিনের সকালেও প্রাথমিকভাবে সাফল্য মেলেনি। তারইমধ্যে ৭২.৪ ওভারে অশ্বিনের বল টম ল্যাথামের সামনে লাগে। জোরালো আপিল করেন অশ্বিন। কিন্তু আলোচনার পর ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) নেয়নি ভারত। রিপ্লেতে দেখা যায়, বল স্টাম্পে লাগছে। তারপর ক্যামেরায় দেখা যায়, বিরক্তি প্রকাশ করে মাঠে লাথি মারছেন অশ্বিন। অনেকেই রিভিউ না নেওয়ার জন্য অধিনায়ক রাহানেকে দায়ী করেন। কিন্তু আদতে কে ‘দোষী’, দিনের শেষে জানিয়ে দেন ভারতের তারকা অফস্পিনার।

অক্ষর প্যাটেল এবং ভরতের সঙ্গে কথা বলার সময় হাসতে হাসতে ভারতীয় উইকেটকিপারকে অশ্বিন প্রশ্ন করেন, ‘আমায় ডিআরএস না নিতে দেওয়ার বিষয়টি বল।’ তাতে রীতিমতো হুা-হুতাশ প্রকাশ করে ভরত বলেন, ‘অত্যন্ত দুঃখিত আমি। অত্যন্ত দুঃখিত। আমি একেবারে আত্মবিশ্বাসী ছিলাম যে বল ব্যাটে লেগেছে। পরে স্লো মোশনে দেখি যে প্রথমে সামনের প্যাডে লেগেছে। তারপর পিছনের প্যাডে লেগেছে। আমি অত্যন্ত দুঃখিত।’ 

ভরত রীতিমতো ক্ষমা চাইলেও অশ্বিন একেবারে ভালোভাবেই নেন বিষয়টি। হাসতে-হাসতে বলেন, ‘আমার কেন লেগেছিল, জান? আমি এত উত্তেজিতভাবে আবেদন করলাম। জিঙ্কসও (রাহানে) উত্তেজিত ছিল। কিন্তু ও বলল যে না, না। ব্যাটে লেগেছে অ্যাশ ভাই। তারপর ঘুরে চলে গেল।’ সেইসঙ্গে অশ্বিন জানান, রিপ্লেতে আউট দেখার পর প্রাথমিকভাবে হতাশ হয়েছিলেন। সেজন্য মাঠে লাথি মারেন। তাতে উলটে পায়ে ব্যথা শুরু করেন। তারপর ভাবেন যে আরও স্পেল তো আছেই। সেখানেই বাজিমাত করবেন।

বন্ধ করুন