বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs NZ: কানপুর টেস্টে চারে শুভমন, মানিয়ে নিতে অসুবিধা হবে না, দাবি প্রাক্তন নির্বাচকের
শুভমন গিল। ছবি- পিটিআই।
শুভমন গিল। ছবি- পিটিআই।

IND vs NZ: কানপুর টেস্টে চারে শুভমন, মানিয়ে নিতে অসুবিধা হবে না, দাবি প্রাক্তন নির্বাচকের

  • বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে চার নম্বরে শুভমন গিলকে ব্যাট করতে দেখা যেতে পারে। 

নিউজিল্যান্ডকে টি-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশ করে শুরু হয়েছে কোচ রাহুল দ্রাবিড় জমানার। এবার সব ফোকাস টেস্টের দিকে। ২৫ নভেম্বর কানপুরে কিউয়িদের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট খেলতে নামছে ভারতীয় দল। সেই দলে লোকেশ রাহুল, মায়াঙ্ক আগরওয়াল এবং শুভমন গিল, তিন ওপেনার রয়েছে। বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে ওই ম্যাচে ওপেনিংয়ের বদলে চার নম্বরে শুভমন গিলকে ব্যাট করতে দেখা যেতে পারে বলে খবর।

টেস্ট সিরিজে দলে নেই রোহিত শর্মা, ঋষভ পন্তরা। প্রথম টেস্টে খেলবেন না কোহলিও। এমন অবস্থায় চেতেশ্বর পূজারা, অজিঙ্কা রাহানে, ঋদ্ধিমান সাহা মিডল অর্ডারে দ্রুত আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলার বদলে সাবেকি মেজাজে রান করা ব্যাটারদের আধিক্য, তেমনই ওপেনিংয়ে রয়েছে একাধিক বিকল্প। সেই কথা মাথায় রেখেই কোহলির জায়গায় গিলকে চারে ব্যাট করতে দেখা যেতে পারে বলে খবর। ইতিমধ্যেই নাকি তাঁকে এই বিষয়ে জানিয়েও দেওয়া হয়েছে।

গিল যেমন একাধিক শট খেলে আক্রমণ বিপক্ষের দিকে ঠেলে দিতে সক্ষম, তেমনই ওপেনার হওয়ায় সুযোগ পেলে দ্বিতীয় নতুন বল সামলাতেও তাঁর সুবিধা হবে। তাই এই সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে দাবি করে এতে ভারতীয় দলের সুবিধাই হবে বলে মনে করছেন প্রাক্তন জাতীয় নির্বাচক যতীন পরাঞ্জপে। PTI-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি দল বাছাইয়ের ক্ষেত্রে গোঁয়াতুর্মি খুব একটা লাভদায়ক হয়না। আমার মতে শুভমনকে মিডল অর্ডারে খেলালে আদপে ভারতীয় দলের লাভের লাভই হবে। দলে নির্দিষ্ট পরিমাণ বৈচিত্র ও বহুমুখতা থাকা দলকে লাভই দেয়।’

তবে একজন ওপেনারকে মিডল অর্ডারে খেলালে সেই ক্রিকেটারেরও তো মানিয়ে নিতে অসুবিধা হতে পারে। ভারতীয় পরিবেশে এমনটা হবে না বলেই দাবি পরাঞ্জপের। রাহুলের উদাহরণ দিয়ে গিলকে টেস্ট অভিষেক ঘটানোর সুযোগ দেওয়া নির্বাচকমন্ডলীর অংশ পরাঞ্জপের দাবি করেন এতে বরং গিলেরই লাভ হতে পারে। ‘বিদেশের মাটিতে ওপেনার, মিডল অর্ডার, সব জায়গায় বিশেষজ্ঞ লাগে, তবে ভারতের মাটিতে তাতে খুব একটা কিছু যায় আসবে না। ওরা যদি শুভমনকে মিডল অর্ডারে খেলায় তাতে লাভই হবে, কারণ আমার মতে এসজি বল তাড়াতাড়ি তার চমক হারিয়ে ফেলে। লোকেশ রাহুলও তো শুরুর দিকে মিডল অর্ডারে ব্যাট করে সাফল্য পেয়েছিল। শুভমনও একই কাজ করতে পারে।’ বলে মনে করেন তিনি।

রাহানে, পূজারা দুই ব্যাটারই ফর্মে নেই। মায়াঙ্ক ব্যাট হাতে ভাল না খেললেও পরের সফরেই দলে ফিরবেন রোহিত। আর রাহুলের ওপেনিং পজিশন নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। তাই দলে এই মুহূর্তে ওপেনার হিসেবে ঢোকাটা গিলর জন্য বেশ চাপেরই লাগছে। এমন পরস্থিতিতে মিডল অর্ডারে রান, তাঁকে জাতীয় দলে জায়গা পাইয়ে দিতে পারে। যদিও বা বদলাতে হবে তাঁর ভূমিকা।

বন্ধ করুন