বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs NZ: ১ নম্বর র‌্যাঙ্কিং নিয়ে উচ্ছ্বাস নেই,তবে সেঞ্চুরির খরা কাটিয়ে হাঁফ ছাড়লেন রোহিত

IND vs NZ: ১ নম্বর র‌্যাঙ্কিং নিয়ে উচ্ছ্বাস নেই,তবে সেঞ্চুরির খরা কাটিয়ে হাঁফ ছাড়লেন রোহিত

রোহিত শর্মা।

সেঞ্চুরি করে তাঁর যে স্বস্তি ফিরেছে, তা গোপন করলেন না। বরং স্পষ্ট ভাষায় বলে দিলেন, ‘৩০ তম সেঞ্চুরি আমার কাছে অনেক কিছু। আমি চাইও যতটা বেশি সম্ভব উইকেটে সময় কাটাতে। যাতে দলকে বড় রানের পথে নিয়ে যেতে পারি।’

অবশেষে তিন বছরের খরা কাটল। ওডিআই-এ সেঞ্চুরি করলেন রোহিত শর্মা। ৮৩ বলে তিনি এ দিন শতরান করে ফেলেন। ৩০তম সেঞ্চুরি করে যেন হাঁফ ছাড়লেন রোহিত। মঙ্গলবার ইন্দোরে ৮৫ বলে রোহিতের ১০১ রানের ইনিংস সাজানো ছিল ৯টি চারের পাশাপাশি ছ'টি ছক্কাতে।

সেঞ্চুরি করে তাঁর যে স্বস্তি ফিরেছে, তা গোপন করলেন না। বরং স্পষ্ট ভাষায় বলে দিলেন, ‘৩০ তম সেঞ্চুরি আমার কাছে অনেক কিছু। আমি চাইও যতটা বেশি সম্ভব উইকেটে সময় কাটাতে। যাতে দলকে বড় রানের পথে নিয়ে যেতে পারি।’

এ দিন নিউজিল্যান্ডকে ৯০ রানে হারায় টিম ইন্ডিয়া। যার নিট ফল, ভারতের কাছে পুরো হোয়াইটওয়াশ হয়ে গেল কিউয়িরা। আর এই ফলের সুবাদে ভারত ওডিআই একে উঠে এল। টি-টোয়েন্টি আগেই এক নম্বর জায়গা দখল করেছিল টিম ইন্ডিয়া। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে আসন্ন টেস্ট সিরিজ জিতলে তিন ফরম্যাটেই আইসিসি র‌্যাঙ্কিংয়ে এক নম্বরে জায়গা করে নেওয়ার সুযোগ থাকছে ভারতের সামনে। যদিও এই সব নিয়ে একেবারেই ভাবতে রাজি নন রোহিত।

আরও পড়ুন: স্বপ্নের ফর্মে শুভমন,কোহলির রেকর্ড ভাঙলেন, স্পর্শ করলেন পাক অধিনায়ককে

রোহিত বলেছেন, ‘সত্যি বলতে আমরা র‌্যাঙ্কিং নিয়ে খুব বেশি ভাবছি না। আমাদের কাচে ম্যাচ জেতাটাই আসল। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে আমরা টেস্ট সিরিজ খেলব। তবে লক্ষ্য আলাদা হবে না। এই চ্যালেঞ্জ মোটেও সহজ হবে না। তবে আমরা এর জন্য প্রস্তুত।’

আরও পড়ুন: ৩ উইকেট নিলেও রান দেওয়ার সেঞ্চুরি করলেন ডাফি, গড়লেন লজ্জার নজির

দলের সাফল্য নিয়ে রোহিতের দাবি, ‘ব্যাটিং এবং বোলিংয়ে আমরা ধারাবাহিক ভাবে পারফর্ম করতে পারছি। আমাদের বেশির ভাগ জিনিসই ঠিকঠাক হচ্ছে। এটাই গুরুত্বপূর্ণ। এই ম্যাচে আমরা মহম্মদ শামি এবং মহম্মদ সিরাজকে বিশ্রাম দিয়েছিলাম। সাজঘরে বসে থাকা ক্রিকেটারদের সুযোগ দিতে চেয়েছিলাম। ওরা সকলেই দুর্দান্ত ক্রিকেটার। যুজবেন্দ্র চহাল এবং উমরান মালিককে দু’প্রান্ত থেকে বল করানোর পরিকল্পনা ছিল আমাদের। ওদের চাপের মুখে ফেলতে চেয়েছিলাম। কারণ আমাদের হাতে যথেষ্ট রান ছিল।’

তিনি যোগ করেছেন, ‘আমরা নিজেদের পরিকল্পনায় স্থির থাকতে চেয়েছিলাম। স্নায়ুর চাপ সামলাতে পারা গুরুত্বপূর্ণ হয় কখনও কখনও। শার্দুল ঠাকুর অনেক সময়ই সেটা করে দেখিয়েছে। তাই অনেকেই ওকে জাদুকর বলে। যখনই কুলদীপ যাদবকে বল দিয়েছে, ও আমাদের উইকেট দিয়েছে। ওকে আমরা আরও ম্যাচ খেলার সুযোগ দিতে চাই। কারণ যে স্পিনাররা কব্জির মোচড়ে বল ঘোরায়, তারা যত বেশি খেলার সুযোগ পায়, তত দক্ষ হতে পারে। শুভমন গিলের কথাও বলব। এই সিরিজে দারুণ খেলল। তরুণ ক্রিকেটার। অথচ কী সহজ ভাবে ইনিংস শুরু করছে।’

বন্ধ করুন