বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs SA: ভারতে এসেই মন্দিরে ছুটলেন, ট্র্যাডিশনাল পোশাকে পুজো দিলেন প্রোটিয়া তারকা

IND vs SA: ভারতে এসেই মন্দিরে ছুটলেন, ট্র্যাডিশনাল পোশাকে পুজো দিলেন প্রোটিয়া তারকা

ভারতে নেমেই কেশব মহারাজ ছুটেছিলেন মন্দিরে।

দেশজুড়ে ধুমধাম করে পালিত হচ্ছে নবরাত্রি। নয় দিন চলবে শক্তির উৎসব। নবরাত্রির প্রথম দিনই দক্ষিণ আফ্রিকার তারকাও মন্দিরে গিয়েছিলেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত প্রোটিয়া বাঁ-হাতি স্পিনার ধুতি পরে ঐতিহ্যবাহী পদ্ধতিতে পূজো দিয়েছেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ক্রিকেটারের ভক্তির কথা কারও অজানা নয়। যে কারণে ভারতে পা রেখেই তিরুবনন্তপুরমের পদ্মনাভস্বামী মন্দিরে ছুটেছিলেন কেশব মহারাজ। সেই বিশেষ মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়াতেও তিনি শেয়ার করেছেন।

দেশজুড়ে ধুমধাম করে পালিত হচ্ছে নবরাত্রি। নয় দিন চলবে শক্তির উৎসব। নবরাত্রির প্রথম দিনই দক্ষিণ আফ্রিকার তারকাও মন্দিরে গিয়েছিলেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত প্রোটিয়া বাঁ-হাতি স্পিনার ধুতি পরে ঐতিহ্যবাহী পদ্ধতিতে পূজো দিয়েছেন। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন ‘জয় মাতা দি’। সবাইকে নবরাত্রির শুভেচ্ছা।

কেশব মহারাজার পোস্ট।
কেশব মহারাজার পোস্ট।

দক্ষিণ আফ্রিকা টিমের সদস্য কেশব ভারতের বিরুদ্ধে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি এবং তার পর সমসংখ্যক ওডিআই ম্যাচের সিরিজ খেলতে এসেছেন। ভারতে পা রেখেই তিরুবনন্তপুরমের পদ্মনাভস্বামী মন্দিরে পুজো করতে গিয়েছিলেন কেশব। তাঁর সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট দেখে তাঁকে বরাবর ধর্মপ্রাণ বলেই মনে হয়ে এসেছে। যে কারণে ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ খেলতে নামার আগে পুজোটা দিয়েই ফেললে কেশব। এর পর নামবেন ভারত-বধে।

আরও পড়ুন: Team India-তে কী উপেক্ষিত পন্ত? একটি ভাইরাল ভিডিয়োতে দেখে তেমনই দাবি ভক্তদের

দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজের প্রথম ম্যাচটি ২৮ অক্টোবর তিরুবনন্তপুরমের গ্রিনফিল্ড স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। বিমানবন্দর থেকে রোহিত শর্মার দল স্টেডিয়ামে পৌঁছানো মাত্রই সেখানে ভক্তদের ভিড় লেগে গিয়েছিল। রোহিতদের দেখে অনেকেই সঞ্জু স্যামসনের নামে স্লোগান তোলেন। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে সঞ্জু সুযোগ না পাওয়ায় স্থানীয় লোকজন হতাশ। তাই ভারতীয় দলকে কাছে পেয়ে ক্ষোভ উগরে দেন। তবে এই সবের মাঝে কেশব মহারাজ কিন্তু ভারতকে নাকানিচোবানি খাওয়ানোর জন্য প্রার্থনা সেরে ফেলেছেন।

আরও পড়ুন: বড় বড় কোহলির কাটআউট, T20 WC-এ ভারত-পাক ম্যাচের জন্য সাজছে MCG

ভারতের সঙ্গে বিশেষ যোগ রয়েছে কেশবের। ডারবানে ১৯৯০ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করলেও, কেশব মহারাজের পূর্বপুরুষরা কোনও এক সময় ভারতে থাকতেন। ১৮৭৪ সালে উত্তর প্রদেশের সুলতানপুর থেকে কাজ করার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছিল তাঁদের। তখন থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় রয়ে গিয়েছেন। কেশবের পরিবারে চারজন সদস্য। বাবা-মা এবং এক বোন রয়েছেন। যিনি আবার শ্রীলঙ্কার একজন ব্যক্তিকে বিয়ে করেছেন।

কেশব মহারাজের বাবা আত্মানন্দও একজন ক্রিকেটার ছিলেন। যিনি দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলতেন। আত্মানন্দ কখনো টেস্ট ক্রিকেট খেলার সুযোগ পাননি। তাঁর দাদাও ছিলেন ক্রিকেটার। প্রোটিয়া স্পিনার হনুমানজির বড় ভক্ত। দক্ষিণ আফ্রিকায় বসবাস করেও ভারতীয় রীতিনীতি মেনে চলেন। প্রতিটি ভারতীয় উৎসব পালন করে কেশবের পরিবার।

বন্ধ করুন