বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs SL: ভবিষ্যতের ভাবনা থেকেই শেষ ওভার অক্ষরকে, বললেন ক্যাপ্টেন হার্দিক

IND vs SL: ভবিষ্যতের ভাবনা থেকেই শেষ ওভার অক্ষরকে, বললেন ক্যাপ্টেন হার্দিক

প্রথম ম্যাচে মাত্র ২ রানে জয় পায় ভারত।

শেষ ওভারে শ্রীলঙ্কার মোট দরকার ছিল ১৩ রান। দুই শিবিরেই নতুন করে কৌশল তৈরি করা হচ্ছিল। এমন পরিস্থিতিতে হার্দিক পাণ্ডিয়ার একটি সিদ্ধান্ত ম্যাচের তাপমাত্রা বাড়িয়ে দেয়। শেষ ওভারে তিনি অক্ষর প্যাটেলকে আক্রমণে নিয়ে আসেন। যিনি প্রথম ২ ওভারে হরির লুটের মতো রান বিলিয়েছিলেন।

ভারত-শ্রীলঙ্কা প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে একেবারে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয়। তবে শেষ হাসি হাসে টিম ইন্ডিয়া। তারা শেষ পর্যন্ত মাত্র দুই রানে হলেও, জয় ছিনিয়ে নেয়। সেই সঙ্গে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ১-০ এগিয়ে যায় ভারত।

তবে এই ম্যাচের শেষ বল পর্যন্ত ছিল রোমহর্ষক উত্তেজনা। শেষ বলে জিততে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল চার রান। তিন রান করলে ম্যাচ ড্র হত। শেষ বলে ১ রান হলেও রান আউট হন দিলসন মাদুশঙ্কা। ফলে ২ রানে ম্যাচ জেতে ভারত। কিন্তু শেষ ওভারে কেন অক্ষর প্যাটেললকে বল করতে এনেছিলেন হার্দিক?

আসলে শেষ ওভারে শ্রীলঙ্কার মোট দরকার ছিল ১৩ রান। দুই শিবিরেই নতুন করে কৌশল তৈরি করা হচ্ছিল। এমন পরিস্থিতিতে হার্দিক পাণ্ডিয়ার একটি সিদ্ধান্ত ম্যাচের তাপমাত্রা বাড়িয়ে দেয়। শেষ ওভারে তিনি অক্ষর প্যাটেলকে আক্রমণে নিয়ে আসেন। অক্ষরের এটি তৃতীয় ওভার ছিল। প্রথম দুই ওভারেই হরির লুটের মতো রান দিয়েছিলেন তিনি। তা সত্ত্বেও, অক্ষর প্যাটেলের উপর আস্থা রাখেন হার্দিক।

আরও পড়ুন: T20I অভিষেকেই ৪ উইকেট নিয়ে রেকর্ড GT তারকার, মাভির আগুনে খাঁক লঙ্কা

অক্ষর প্রথম বলে ওয়াইড করেন এবং পরের বলে সিঙ্গেল নেন কাসুন রঞ্জিতা। ওভারের তৃতীয় বলে ছক্কা মেরে ভারতের হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দেন করুণারত্নে। ছক্কার পরে ইশান কিষাণ, হার্দিক এবং অক্ষরের মধ্যে দীর্ঘ কথোপকথন হয়। এবং এর পরেই পুরো ম্যাচের রং বদলে যায়। অক্ষরের ওভারের শেষ ৩ বলে শ্রীলঙ্কার জয়ের জন্য দরকার ছিল ৫ রান। চতুর্থ বলটি ছিল একটি ডট। পঞ্চম বলে রান আউট হন রঞ্জিতা।

এই উইকেটের পর জয়ের জন্য শেষ বলে শ্রীলঙ্কার প্রয়োজন ছিল ৪ রান। সবার চোখ ছিল অক্ষরের দিকে। একটি বাউন্ডারি ভারতের হাত থেকে ম্যাচ ছিনিয়ে নিত। করুণারত্নে স্ট্রাইকে উপস্থিত ছিলেন এবং বড় বাউন্ডারি মারতে প্রস্তুত ছিলেন। শেষ বলে তাকে বাউন্ডারি মারার সুযোগ দেননি অক্ষর প্যাটেল। ডিপ মিড উইকেটের দিকে শট খেলে রানের জন্য ছুটে যান তিনি। এক রান পূর্ণ করলেও দ্বিতীয় রানের চেষ্টা করতে গিয়ে দিলসন মাদুশঙ্কা রান আউট হন এবং এতে শ্রীলঙ্কার পুরো ইনিংস ১৬০ রানে গুটিয়ে যায়।

এর উত্তরে ভারত অধিনায়ক বলেন, ‘আমরা এখানে, সেখানে ম্যাচ হারতে পারি। কিন্তু এটা ঠিক আছে। তরুণ খেলোয়াড়রাই আমাদের খেলায় ফিরিয়ে এনেছে। আমি ওকে দেখেছি।’

আরও পড়ুন: কিপার না বাজপাখি! ইশানের ছোঁ মেরে নেওয়া ক্যাচ দেখে হতবাক সকলে- ভিডিয়ো

মঙ্গলবার শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসে হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে ভারত। কিন্তু শুরু থেকেই টিম ইন্ডিয়ার ব্য়াটিং বিপর্যের ধারা চলে। ৪৬ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বসেছিল ভারত। এর পরেও পড়ে আরও ২ উইকেট।

তবে দীপক হুডার অপরাজিত ৪১ (২৩ বলে) এবং অক্ষর প্যাটেলের ২০ বলে অপরাজিত ৩১ রান ভারতকে ১৫০ রানের গণ্ডি পার করিয়ে দেয়। এ ছাড়া ওপেন করতে নেমে ইশান কিষাণ ৩৭ (২৯ বল) করেছিলেন। আর হার্দিক পাণ্ডিয়া ২৯ (২৭ বল) করেন। এর বাইরে বাকিরা কেউ দুই অঙ্কের ঘরেই পৌঁছতে পারেনি। নির্দিষ্ট ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ভারত করে ১৬২ রান।

শ্রীলঙ্কার দিলসন মাদুশঙ্কা, মহেশ থিকসানা, চামিকা করুণারত্নে, ধনঞ্জয় ডি'সিলভা, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা ১টি করে উইকেট নিয়েছেন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শ্রীলঙ্কাও শুরু থেকে একের পর এক উইকেট হারাতে থাকে। ৫১ রানে তারা চার উইকেট হারিয়ে বসেছিল। চরিথ আশালঙ্কা তৃতীয় ব্যাটার হিসেবে সাজঘরে ফেরেন। তবে অধিনায়ক দাসুন শনাকার ২৭ বলে ৪৫ লঙ্কাকে লড়াইয়ে ফেরায়। এ ছাড়া চামিকা করুণারত্নে ১৬ বলে ২৩ রান করে অপরাজিত থাকেন। হাসারঙ্গা ১০ বলে ঝড়ো ২১ রান করেন। যার ফলে জেতার মতো জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। ওপেন করতে নেমে কুশল মেন্ডিসও ২৮ করেছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২ রানে তারা হেরে যায়। ২০ ওভারে শ্রীলঙ্কা ১৬০ রান করে।

অভিষেক শিবম মাভি দুরন্ত পারফরম্যান্স করেন। ৪ ওভার বল করে ২২ রান দিয়ে ৪ উইকেট নেন। এ ছাড়াও উমরান মালিক এবং হর্ষাল প্যাটেল ২টি করে উইকেট নিয়েছেন।

বন্ধ করুন