বাংলা নিউজ > ময়দান > IND vs WI: হুডার বোলিং সিরিজের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি, মুগ্ধ অধিনায়ক শিখর
শিখর ধাওয়ান।

IND vs WI: হুডার বোলিং সিরিজের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি, মুগ্ধ অধিনায়ক শিখর

  • এই সিরিজে ভারতের অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান ফাস্ট বোলারদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন। বিশেষ করে মহম্মদ সিরাজ, দীপক হুডাদের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি বলেছেন যে, গত কয়েক বছরে অনেক দূর এগিয়েছেন তাঁরা।

শিখর ধাওয়ানের নেতৃত্বে ভারতের তরুণ প্লেয়াররা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করে সিরিজ জিতেছে। দুই দলের মধ্যে শেষ ম্যাচটি ত্রিনিদাদের কুইন্স পার্ক ওভাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। এই ম্যাচে টিম ইন্ডিয়া বোলিং এবং ব্যাটিং উভয় ক্ষেত্রেই উইন্ডিজকে একেবারে গুড়িয়ে দিয়েছে।

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন শিখর ধাওয়ান। বারবার বৃষ্টির ঝামেলার মধ্যে টিম ইন্ডিয়া ৩৬ ওভার ব্যাট করার সুযোগ পেয়েছিল। আর ৩৬ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২২৫ রান করে। এর পরে ক্যারিবিয়ান দল ডাকওয়ার্থ-লুইস নিয়মের কারণে ৩৫ ওভারে ২৫৭ রানের লক্ষ্য পায়। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ মাত্র ১৩৭ রানে অলআউট হয়ে যায়। যে কারণে ভারত ১১৯ রানে জিতে ৩-০ সিরিজ পকেটে পুড়ে ফেলে।

আরও পড়ুন: ব্যাট হাতে অনন্য নজির শিখরের, ভাঙলেন ধোনির রেকর্ড

এই সিরিজে ভারতের অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান ফাস্ট বোলারদের নিয়ে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন। বিশেষ করে মহম্মদ সিরাজ, দীপক হুডাদের পারফরম্যান্স নিয়ে তিনি বলেছেন যে, গত কয়েক বছরে অনেক দূর এগিয়েছেন তাঁরা।

সিরাজকে নিয়ে ম্যাচ-পরবর্তী সাংবাদিক সম্মেলনে ধাওয়ান বলেছেন, ‘ও একজন উন্নত মানের বোলার। ও এখন অনেক দিন ধরেই খেলছে। ওর অনেক আত্মবিশ্বাস আছে। কখনও কখনও, যখন আমি কোনও নির্দিষ্ট ফিল্ডারকে কোথাও রাখি, ও দ্রুত বলে, না, আমি এটা চাই না। এবং তার পরে একটি ভিন্ন ফিল্ডিং প্লেসমেন্টের পরামর্শ দেয়। আর আমি এটা পছন্দ করি।’

আরও পড়ুন: অতীতে কখনও হয়নি, সেখানে ২০২২-এ উইন্ডিজকে জোড়া হোয়াইটওয়াশের নজির ভারতের

তৃতীয় ওডিআই-এ সিরাজ ৩ ওভার বল করে ১৪ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন। শিখর বলেছেন, ‘ও জানত ওকে কী করতে হবে। ও উইকেট নিয়ে আমার জন্য পরিস্থিতি সহজ করে তোলে। ও যে ভাবে বোলিং করেছে, যে গতিতে বোলিং করেছে এবং যে সুইং পেয়েছে, তা বেশ চিত্তাকর্ষক ছিল।’

ধাওয়ান শুধু সিরাজ নন, দীপক হুডাকে নিয়েও উচ্ছ্বসিত ছিলেন। দীপক হুডা দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ৯ ওভার বল করেছিলেন। ৪২ রান দিয়ে তিনি ১ উইকেটও নিয়েছিলেন। যদিও তিনি তৃতীয় ম্যাচে ৪ ওভার বল করে ১৬ রান দিলেও কোনও উইকেট পাননি।

ধাওয়ান বলছিলেন, ‘সিরিজের আগে আমরা জানতাম, ও একজন অলরাউন্ডারের ভূমিকায় পালন করতে পারে। প্রথম ম্যাচে যে ভাবে খেলেছে, তাতে আত্মবিশ্বাস বেড়েছে ওর। আমরা বুঝতে পেরেছি যে ও চার বা পাঁচের পরিবর্তে ৭-৮ ওভার বল করতে পারে। বাঁহাতি বোলিং করতে পারে ও। যে কারণে দু'টি ম্যাচের পরে আমি ওকে দিয়ে বোলিং ওপেন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম এবং ও একটি মেডেন ওভারও নেয়।’

বন্ধ করুন