বাংলা নিউজ > ময়দান > দেশে দুই সিনিয়ার বোলার খেলানো মুশকিল, প্রাক্তন নির্বাচক প্রধানের মন্তব্যে ফের জল্পনা ইশান্ত শর্মার ভবিষ্যৎ নিয়ে
ইশান্ত শর্মা। ছবি- পিটিআই। (PTI)

দেশে দুই সিনিয়ার বোলার খেলানো মুশকিল, প্রাক্তন নির্বাচক প্রধানের মন্তব্যে ফের জল্পনা ইশান্ত শর্মার ভবিষ্যৎ নিয়ে

  • দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের পরেই ইশান্তের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারে ইতি পড়তে পারে বলে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে।

সাম্প্রতিক সময়ে ভারতীয় দলের বিদেশের মাটিতে ভাল ফল করার প্রধান কারণ হল শক্তিশালী পেস বোলিং আক্রমণ। দলে যেমন জসপ্রীত বুমরাহ, মহম্মদ শামিরা নিয়মতি তেমন উমেশ যাদব, শার্দুল ঠাকুররাও রয়েছেন। মহম্মদ সিরাজের টেস্ট ক্রিকেটে ঊত্থানও বেশ চমকপ্রদ। আর সিরাজের উত্থানেই ধন্ধ ইশান্ত শর্মার ভবিষ্যৎ নিয়ে।

ভারতের আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকা সফরই ইশান্তের শেষ আন্তর্জাতিক সফর বলে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে। ১০৫ টি টেস্ট খেলা ইশান্তের ফর্ম সামান্য পড়েছে। সেখানে ঐতিহাসিক অস্ট্রেলিয়া সফরে অভিষেক ঘটানোর পর থেকেই সিরাজের গ্রাফ উর্ধ্বমুখী। এমনকী নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সম্প্রতি মুম্বই টেস্টেও দুই দলের মধ্যে একমাত্র ফাস্ট বোলার হিসেবে সিরাজ উইকেট নেন।

প্রাক্তন ভারতীয় প্রধান নির্বাচক এমএসকে প্রসাদ মনে করছেন সিরাজই বর্তমানে ভারতের তিন নম্বর ফাস্ট বোলার। India Today-কে এক সাক্ষাৎকারে প্রসাদ জানান, ‘আমার মতে ও (সিরাজ) ভারতের ফাস্ট বোলারদের তালিকায় তৃতীয় এবং প্রথম দুই স্থানের জন্য ও নিজের পারফরম্যান্সের মাধ্যমে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছে। আমার মতে বর্তমানে বুমরাহ, শামি এবং সিরাজই ভারতের প্রথম তিন পছন্দের ফাস্ট বোলার।’

ইশান্তের ভারতীয় দলে থাকা নিয়ে সরাসরি প্রশ্ন তুলে দিয়ে ভারতীয় দল যে কানপুরে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্টে সিরাজকে না খেলিয়ে ভুল করেছে, তাও কোনো রাখঢাক না করেই সাফ জানিয়ে দেন প্রসাদ। ‘ভারতীয় সিরাজকে প্রথম টেস্টে না খেলিয়ে ভুল করেছে। এখনকার সময়ে দেশের মাটিতে দুই সিনিয়ার ফাস্ট বোলার খেলানোটা একটু মুশকিলই বটে। সিরাজ এবং ইশান্ত বা সিরাজ এবং উমেশ (যাদব) জুটি নিয়ে ভারতের মাঠে নামা উচিত ছিল। তারুণ্যের উচ্ছ্বাস যে কোনো দলের জন্যই প্রয়োজনীয় এবং আমি মনে করি কানপুর টেস্টে ভারত সিরাজকে না খেলিয়ে বড় ভুল করেছিল।’

কানপুরে কিউয়িদের বিরুদ্ধে অল্পের জন্য ভারতের জয় হাতছাড়া হয়। মুম্বই টেস্টে ইশান্ত চোটের জন্য না খেলায় তাঁর জায়গায় সিরাজ দলে ঢুকেই প্রথম ইনিংসে নিজের স্পেলে হইচই ফেলে দেন। সিরাজ বা ইশান্ত কারুর দক্ষতা নিয়েই প্রশ্ন উঠতে পারে না। তবে সিরাজের তারুণ্যে এবং আগ্রাসনের সামনে ইশান্তের অভিজ্ঞতার লড়াইয়ে এই মুহূর্তে সিরাজই এগিয়ে। এমএসকে প্রসাদের মন্তব্যে ভারতীয় ক্রিকেটের অন্দরের চিন্তাভাবনা কিছুটা হলেও স্পষ্ট হয় যা ইশান্তের কেরিয়ার নিয়ে ফের একবার প্রশ্ন তুলে দেয়।

বন্ধ করুন