বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারত বুমরাহদের যত্নে লালন পালন করে, পাকিস্তানের মতো নয়- আমির
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

ভারত বুমরাহদের যত্নে লালন পালন করে, পাকিস্তানের মতো নয়- আমির

কঠিন সময় বোর্ডকে পাশে  থাকতে হবে, বলে মনে করেন অকালে অবসরপ্রাপ্ত পাক তারকা। 

উপমহাদেশে অর্থাৎ ভারত,পাকিস্তানে, শ্রীলঙ্কা বা বাংলাদেশে প্রতিভার কোন অভাব নেই। যে কোনও ক্ষেত্রে একাধিক প্রতিভাবান ক্রীড়াবিদের উপস্থিতি এই দেশগুলোতে পাওয়া যায়। ক্রিকেট ও তার ব্যতিক্রম নয়। তবে যে কোন প্রতিভার বিকাশে মূল শর্ত হল তার সঠিক লালন পালন।তবে উপমহাদেশের সবথেকে বড় সমস্যা একাধিক প্রতিভা উঠে আসলেও তারা সম্ভাবনা জাগানোর পরে অকালে হারিয়ে যান।

 এই তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন পাকিস্তানের তারকা, প্রতিভাবান পেসার মহম্মদ আমির। আমিরের প্রতিভার পরিচয় তিনি বারবার দিয়েছেন বিভিন্ন দেশের ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রের উইকেটে। এমন তারকাকে যখন পিসিবির উচিত ছিল সযত্নে লালন পালন তখন তারা তা করতে ব্যর্থ হন। অপরদিকে প্রতিবেশী দেশ ভারতে উঠে আসছে একের পর এক তরুণ পেসার, হার্ডহিটিং ব্যাটসম্যান। দুই দেশের সাম্প্রতিক কালের চোখে পড়ার মতন এই পার্থক্যটা তুলে ধরেছেন প্রাক্তন পাকিস্তানি পেসার মহম্মদ আমির।

পিসিবির উপর অভিমানে অবসর হঠাৎ করেই 'অকাল' অবসর ঘোষণা করেছিলেন আমির। তিনি জানিয়েছিলেন 'চার-পাঁচটি ম্যাচের উপর নির্ভর করে কোনো ক্রিকেটারের যোগ্যতা বিচার করা উচিত নয়। মনে রাখা উচিত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ১৬ ম্যাচে মাত্র ১টা উইকেট পেয়েছিল বুমরাহ। কিন্তু কেউ তাকে নিয়ে প্রশ্ন করেনি। কারণ সবাই জানে ও ম্যাচ উইনার।সেই সময় ভারতীয় বোর্ডের দরকার ছিল তার পাশে থাকা। তারা তাদের কাজটা করেছে।'

প্রসঙ্গত ম্যাচ ফিক্সিং করার দায়ে ৫ বছরের নির্বাসন কাটিয়ে ক্রিকেটে ফিরে জাতীয় দলে সুযোগ পান আমির। বেশ কিছুদিন নিয়মিত সুযোগ পাওয়ার পরে জাতীয় দল থেকে তাকে বাদ পড়তে হয়। তারপর জাতীয় দল থেকে বারবার তাকে ব্রাত্য থাকতে হয়।ফলে অভিমানে আমির ২০২০ সালের ডিসেম্বরে অবসর নেন। আমির জানান 'যখন ছন্দপতন ঘটে, তখন ক্রিকেটারদের পাশে দাঁড়ানোই বোর্ডের কাজ। হঠাৎ করে তাকে বাদ দিয়ে দেওয়া উচিত নয়। যদি এমনটা হয় তাহলের সবাই দলে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্দোর মতো ক্রীড়াবিদদের রেখে নিশ্চিন্ত থাকত।'

বন্ধ করুন