হতাশ শামি (ছবি সৌজন্য এপি)
হতাশ শামি (ছবি সৌজন্য এপি)

India vs New Zealand 2nd Test: ব্যাটে-বলে ব্যর্থতা ভারতের, প্রথম দিনে সুবিধাজনক অবস্থায় নিউজিল্যান্ড

ভারতের ব্যাটিং বিপর্যয়ের পর প্রথম ইনিংসে সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে নিউজিল্যান্ড।

কার্যত প্রথম টেস্টের অ্যাকশন রিপ্লে দেখা গেল ক্রাইস্টচার্চে। ভারতের ব্যাটিং বিপর্যয়ের পর প্রথম ইনিংসে সুবিধাজনক অবস্থায় রয়েছে নিউজিল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংস

২৩ ওভারে ৬৩-০

ক্রাইস্টচার্চের পিচ যে ব্যাটিংয়ের পক্ষে খুব একটা প্রতিকূল নয়, তা প্রথম দিনের শেষ লগ্নে প্রমাণ করল নিউজিল্যান্ড। তবে কিউয়ি ব্যাটসম্যানদের কাজটা আরও সহজ করে দিয়েছেন ভারতীয় বোলাররা। খুব কম বলই কিউয়িদের পরীক্ষার মুখে ফেলেছে। প্রথম দিনের শেষে ১৭৯ রানে পিছিয়ে রয়েছে নিউজিল্যান্ড। ক্রিজে রয়েছেন টম ল্যাথাম। তিনি ৬৫ বলে ২৭ রান করেছেন। অন্যদিকে ৭৩ বলে ২৯ রানে অপরাজিত রয়েছেন টম ব্লান্ডেল।

ভারতের প্রথম ইনিংস

৬৩ ওভারে ২৪২-১০

আবারও ব্যাটিং বিপর্যয়। তিন ব্যাটসম্যান ছাড়া দাঁড়াতে পারলেন না কেউই। তাও শেষ উইকেটে মহম্মদ শামি ও জসপ্রীত বুমরার ২৬ রানের পার্টনারশিপের সৌজন্য ২৪২ রান তুলতে পেরেছে ভারত। একটা সময় ভারতের স্কোর ছিল চার উইকেটে ১৯৪ রান। সেখান থেকে ২৪২ রানে অলআউট টিম ইন্ডিয়া। ১২ বলে ১৬ রান করেন শামি। ১১ বলে ১০ রানে অপরাজিত থাকেন বুমরা।

স্বপ্নের অভিষেকের পর দ্বিতীয় ম্যাচেও নিজের ফর্ম ধরে রাখলেন কাইল জেমিসন। তিনি পাঁচ উইকেট নিয়েছেন। বোলিং ফিগারও চমকপ্রদ তাঁর। ১৪ ওভারে মাত্র ৪৫ খরচ করেছেন তিনি। দুটি করে উইকেট পেয়েছেন টিম সাউদি ও ট্রেন্ট বোল্ট। সেভাবে পরিশ্রম করতেই হয়নি নিল ওয়্যাগনারকে। তিনি একটি উইকেট পেয়েছেন।

৫৭.২ ওভারে ২০৭-৭

পন্থ রইলেন পন্থেই। প্রথম থেকে মনে হচ্ছিল যে কোনও আউট হয়ে যাবেন। একবার ক্যাচও পড়েছিল। তারপরও সুযোগ কাজে লাগাতে পারলেন না। কাইল জেমিসনের গুড লেংখের বল বাইরে যাচ্ছিল। অনায়াসে বল ছাড়তে পারতেন। কিন্তু তা করেননি পন্থ। শক্ত হাতে খেলতে গিয়ে ব্যাটেন কানায় বল লাগে। তা স্টাম্পে লাগে। ১৪ বলে ১২ রান করেন তিনি। বিশেষজ্ঞ ব্যাটসম্যান হিসেবে দলে জায়গা পেয়েও সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে ব্যর্থ।

৫৫.২ ওভারে ১৯৭-৬

ফের ক্রিজে জমে গিয়েও উইকেট ছুড়ে দিলেন চেতেশ্বর পূজারা। এতক্ষণ ধরে যে লড়াই করলেন, তার প্রতিদান নিজেই দিতে পারলেন না। শর্ট ও ওয়াইড বল তাড়া করতে গিয়ে আউট হলেন তিনি। উইকেট নিলেন কাইল জেমিসন। ১৪০ বলে ৫৪ রান করেন পূজারা।

৫৩.৪ ওভারে ১৯৪-৫

চা-পানের বিরতির আগে সম্ভবত শেষ ওভার ছিল। প্রথম বলে চার মেরে অর্ধশতরান পূরণ করেন হনুমা বিহারি। দুরন্ত খেলছিলেন তিনি। বেশিরভাগ ব্যাটসম্যানরা যেখানে যথেষ্ট সমস্যায় পড়ছিলেন, সেখানে স্বাভাবিক ছন্দে খেলছিলেন তিনি। কিন্তু চতুর্থ বলে পুল করতে গিয়ে আউট হয়ে যান তিনি। উইকেট নেন ওয়্যাগনার। ৭০ বলে ৫৫ রান করেন তিনি।

৪৪.২ ওভারে ১৪৯-৪

নীল ওয়্যাগনারের বলে এক রান নিয়ে অর্ধশতরান পূরণ করলেন চেতেশ্বর পূজারা। টেস্টে এটি তাঁর ২৫ তম অর্ধশতরান হলেও নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথম।

৩২.১ ওভারে ১১৩-৪

টিম সাউদির আউটসুইঙ্গারে মাত খেলেন অজিঙ্কা রাহানে। স্লিপে ভালো ক্যাচ ধরলেন রস টেলর। ২৭ বলে সাত রান রাহানে।

২৪.১ ওভারে ৮৫-৩

আবারও টিম সাউদির শিকার হলেন বিরাট কোহলি। নিউজিল্যান্ড সফর যেন তাঁর কাছে ক্রমশ দুঃসহ হয়ে উঠছে। যে বলে আউট হলেন সেটা এমন কিছু অসাধারণ ছিল না। বরং ফুলিশ লেংথে আউটসুইঙ্গার ছিল। তা পুরোপুরি মিস করেন কোহলি। বল কোহলির প্যাডে আছড়ে পড়ে। বল যে উইকেটে লাগছে তাতে দ্বিমত ছিল না। কিন্তু চেতেশ্বর পূজারার সঙ্গে আলোচনার পর রিভিউ নেন। যথারীতি তিনটি লাল সিগন্যাল দেখায়। ২৪.১ ওভারেই দুটি রিভিউ হাতছাড়া হল ভারতের। বলতেই হবে, রিভিউয়ের সিদ্ধান্ত অত্যন্ত খারাপ ছিল। তাঁর অবদান ১৫ বলে তিন।

১৯.১ ওভারে ৮০-২

গত ম্যাচের ব্যর্থতা ভুলে দারুণ খেলছিলেন পৃথ্বী শ। তা সে ফ্রন্ট ফুট হোক বা ব্যাক ফুট - যথেষ্ট সাবলীল লাগছিল। কিন্তু কাইল জেমিসনের বল তাঁর ব্যাট কাণায় লেগে স্লিপের দিকে উড়ে যায়। ডানদিকে ঝাঁপিয়ে দুরন্ত ক্যাচ নেন টম ল্যাথাম। ৬৪ বলে ৫৪ রান করেন পৃথ্বী।

টস

টসে জিতে এদিন ক্রাইস্টচার্চে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড। ভারতীয় দলে দুটি পরিবর্তন হয়েছে। রবিচন্দ্রন অশ্বিনের পরিবর্তে দলে এসেছে রবীন্দ্র জাদেজা। চোটের জন্য ছিটকে যাওয়া ইশান্ত শর্মার পরিবর্তে খেলছেন উমেশ যাদব।

বন্ধ করুন