রোহিত-শামি জাদুতে জয় ভারতের
রোহিত-শামি জাদুতে জয় ভারতের

India vs New Zealand: শেষ ওভারে শামি-সুপার ওভারে হিটম্যান শো! সিরিজ জয় ভারতের

সেডান পার্কে আজ ম্যাচ জিতে টি-টোয়েন্টি সিরিজ পকেটে পুরে নিল টিম ইন্ডিয়া। শুধু তাই নয়, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে এই প্রথম টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতল ভারত।

হার কার্যত নিশ্চিত ছিল। সেখান থেকে প্রথম ম্যাচের মোড় ঘোরালেন মহম্মদ শামি। শেষ চার বলে দিলেন মাত্র এক রান। তাঁর সুবাদেই ম্যাচ গেল সুপার ওভারে। আর সেখানে দলকে জেতানোর দায়িত্ব নিজের কাঁধে নিলেন রোহিত শর্মা। শেষ দু'বলে দুটি ছয় মেরে নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথমবার ভারতকে জেতালেন হিটম্যান।

আরও পড়ুন : India vs New Zealand: সুপার ওভারে কীভাবে খেলব, তা নিয়ে দোটানায় ছিলাম - রোহিত

বুধবার হ্যামিলটনে টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় নিউজিল্যান্ড। উইনিং কম্বিনেশন ধরে রাখেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। শুরুটা দুর্দান্ত করেন রোহিত। হিটম্যানের মারকুটে ফর্ম দেখে বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে তাঁকে বেশি স্ট্রাইক দিতে থাকেন রাহুল। তা পুরোপুরি সদ্ব্যবহার করেন রোহিত। মাত্র ২৩ বলে অর্ধশতরান করেন তিনি। এরপর আউট হয়ে যান রাহুল। ১৯ বলে ২৭ রান করেন। তখন ভারতের স্কোর ছিল ন'ওভারে এক উইকেটে ৮৯। কিছুক্ষণ পর প্যাভিলিয়নে ফেরেন রোহিত। তিনি ৪০ বলে ৬৫ রান করেন তিনি।

এরপরই ভারতীয় ইনিংসে রান তোলার গতি কমে যায়। তিন নম্বরে শিবম দুবেকে তুলে এনে সুযোগ দিলেও তা কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। পরপর তিন উইকেট কিছুটা চাপে পড়ে যায় ভারত। এরপর বিরাট ও শ্রেয়স আইয়ার স্টার্ট পেলেও তা বড় রানে পরিণত করতে পারেননি।

২৭ বলে ৩৮ রান করেন বিরাট। ১৬ বলে ১৭ করেন শ্রেয়স। শেষের দিকে মণীশ পান্ডের ৬ বলে ১৪ ও রবীন্দ্র জাদেজার সৌজন্যে নির্ধারিত ২০ ওভারে পাঁচ উইকেট হারিয়ে ১৭৯ রান তোলে ভারত।

রান তাড়া করতে নেমে ধুন্ধুমার শুরু করেছিলেন মার্টিন গাপ্টিল। ৫.৪ ওভারে প্রথম ধাক্কা দেন শার্দুল ঠাকুর। গাপ্টিলকে (২১ বলে ৩১ রান) আউট করেন তিনি। চার বল পরেই প্যাভিলিয়নে ফেরেন কলিন মুনরো। ডানহাতি ও বাঁ হাতি কম্বিনেশনের জন্য কিছুটা চমক দেয় নিউজিল্যান্ড। কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের পরিবর্তে ক্রিজে আসেন মিচেল স্যান্টনার। সেই চাল পুরোপুরি কাজে না লাগলেও দুরন্ত ছন্দে ছিলেন কেন উইলিয়ামসন। নন-স্ট্রাইকার ব্যাটসম্যানদের দাঁড় করিয়ে রেখে একাহাতেই কার্যত ম্যাচ বের করে নিচ্ছিলেন তিনি। এমনকী জসপ্রীত বুমরাও এদিন কেনের ব্যাটিংয়ের সামনে তেমন কিছু করতে পারেননি।

শেষ ওভারে কিউয়িদের প্রয়োজন ছিল ৯ রান। বল করতে আসেন শামি। প্রথম বলেই ছক্কা হাঁকান রস টেলর। পরের বলেে এক রান নেন তিনি। তারপরই শুরু হয় শামি-ম্যাজিক। কিউয়ি অধিনায়ককে প্যাভিলিয়নে ফেরান তিনি। আটটি চার ও চারটি ছয়-সহ মাত্র ৪৮ বলে ৯৫ রান করেন কেন। চার বলে নিউজিল্যান্ডের প্রয়োজন ছিল দু'রান। ২০ তম ওভারের চতুর্থ বলে কোনও রান হয়নি। পরের বলে বাইয়ে এক রান নেন টিম সেফার্ট। শেষ বলে কিউয়িদের প্রয়োজন ছিল এক রান। টেলরের স্টাম্প ছিটকে দেন শামি। নির্ধারিত ২০ ওভারের কিউয়িদের স্কোর হয় ছ'উইকেটে ১৭৯ রান। ফলে সুপার ওভার হয়।

সুপার ওভারে বুমরা ১৭ রান দেন। জেতার জন্য ভারতের প্রয়োজন ছিল ১৮ রান। প্রথম চার বলে আট রান তোলে ভারত। দু'বলে দরকার ছিল ১০ রান। তখন আরও একবার হিটম্যান শোয়ের সাক্ষী হয় সেডান পার্ক। পরপর দু'বলে ছয় মেরে ভারতকে জেতান রো-হিট। ম্যাচের সেরাও নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

বন্ধ করুন