ওয়েলিংটনে টসে হেরে প্রথম দিনের শেষে পাঁচ উইকেটের লোকসানে ১২২ রান করেছে ভারত। সবুজ পিচ বলে ব্যাটিংয়কে মজবুত করার জন্য ফার্স্ট চয়েস কিপার ঋদ্ধিমান সাহার পরিবর্তে ঋষভ পন্থ খেলাচ্ছে ভারত। ঋষভ এর আগে যেভাবে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডে ব্যাট হাতে ভালো খেলেছে, তার ওপরেই ভরসা করে এই বড় ফাটকাটি খেলেছে ভারত।

কিন্তু এতে অনেকেই খুশি নয়। ঋদ্ধিমান সাহা শুধু ভারত নয়, সম্ভবত দুুনিয়ার সেরা উইকেটরক্ষক। যেখানে ওয়েলিংটনে প্রচন্ড হাওয়া বয়ে, সেখানে ঋদ্ধি থাকলেই বোলাররা বেশি নিশ্চিত হত, এটা বলাই যায়। কিন্তু ব্যাটিংয়ে পন্থ এগিয়ে বলে তার পক্ষে ভোট যায় টিম ম্যানেজমেন্টের। প্রখ্যাত ধারাভাষ্যকার হর্ষ ভোগলে রীতিমত ক্ষুব্ধ। টুইটারে বেশ কিছু পোস্ট করেন তিনি এই নির্বাচনের বিপক্ষে। কে ভালো কিপার সেই অনুযায়ী দলে অন্তর্ভুক্ত হওয়া উচিত, বলে মনে করেন হর্ষ ভোগলে।

শ্রেয়া ঘোষাল সংক্রান্ত টুইটটি পরে ডিলিট করেন তিনি।
শ্রেয়া ঘোষাল সংক্রান্ত টুইটটি পরে ডিলিট করেন তিনি।

হর্ষ ভোগলে বলেন যে ভারতের সমস্ত তরুণ উইকেটরক্ষকের কাছে বার্তা যাচ্ছে, যে বিশ্বের সেরা হওয়ার দরকার নেই, ব্যাটিংটা জানলেই হল। তিনি প্রচন্ড হতাশ বলে জানান হর্ষ। এরপর তিনি বলেন যে তাঁর পন্থের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত কিছু নেই, কিন্তু সেরা কিপার নির্বাচন করা উচিত। ঋষভ ভালো করুক এই কামনা করে হর্ষ বলেন যে ঋদ্ধির জন্য খুব খারাপ লাগছে।

এরপর তিনি লেখেন যে কবে দেখব যে শ্রেয়া ঘোষালকে গানের কনসার্ট থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে কারণ অন্য মেয়েটি একটু ভালো গিটার বাজাতে পারেন! পরে অবশ্য সেই টুইটটি ডিলিট করে দেন হর্ষ যখন অনেকে আপত্তি করেন এই বলে যে ঋষভ যদি দলে থাকে তাহলে প্রথম একাদশে অন্তর্ভুক্ত হতেই পারে। গতকাল অবধি কিন্তু পন্থ খেলবে এমন কোনও পরিকল্পনা ছিল না। তিনি নিজের মতো প্র্যাকটিস করছিলেন, ভারতীয় দলের প্রধান নেট প্র্যাকটিসে ব্যাটিং করার সুযোগ পাচ্ছিলেন না তিনি।

যাদের প্রথম একাদশে খেলার কথা ছিল, তাদের প্র্যাকটিস হয়ে যাওয়ার পরেই তিনি নেটে ব্যাট করতে যাচ্ছিলেন। কিন্তু এদিন সবুজ পিচ দেখে পন্থের ওপর আস্থা রাখেন ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট।




বন্ধ করুন