বাংলা নিউজ > ময়দান > 'তোমরা না থাকলে'-ভারতীয় দলের নেপথ্যের নায়কদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলেন বিরাট-গিল

'তোমরা না থাকলে'-ভারতীয় দলের নেপথ্যের নায়কদের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিলেন বিরাট-গিল

তিন সাপোর্ট স্টাফের সঙ্গে বিরাট কোহলি এবং শুভমন গিল। ছবি- বিসিসিআই 

এই মুহূর্তে স্বপ্নের ফর্মে রয়েছেন বিরাট কোহলি। শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ওডিআইতে সিরিজের সেরা হয়েছেন প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক। সিরিজের সেরা হওয়ার বিরাট তিন সাপোর্ট স্টাফকে ধন্যবাদ জানালেন। 

বিরাট গর্জন। রবিবাসরীয় বিকেলে তিরুবনন্তপূরমের গ্রীন ফিল্ড স্টেডিয়ামে যে ইনিংসটা বিরাট খেললেন তা তাঁর নামের সঙ্গে যথার্থ। বিরাট ইনিংস খেললেন তিনি। ১১০ বলে করলেন ১৬৬ রান। ঘরের মাঠে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরি করা ব্যাটার হলেন তিনি। পিছনে ফেললেন সচিন তেন্ডুলকরকে।

রবিবার একদিনের ক্রিকেটে ৪৬তম সেঞ্চুরি করলেন তিনি। কিংবদন্তি ব্যাটার সচিন তেন্ডুলকরের থেকে মাত্র তিনটি সেঞ্চুরি পিছিয়ে রয়েছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে টেস্ট এবং ওয়ানডে মিলিয়ে ৭৪টিসেঞ্চুরির মালিক কোহলি। তবে তাঁর এই সাফল্যের কৃতিত্ব শুধু নিজেকে নয় দিচ্ছেন রঘুবেন্দ্র, নুয়ান ও দয়ানন্দ গড়ানিকে। ভারতীয় দলের তিন থ্রো ডাউন স্পেশালিস্টকে।

গত বছর এশিয়া কাপে শতরানের দেখা পেয়েছেন বিরাট। প্রায় তিন বছর পর শতরানের দেখা পান তিনি। সময় যত গড়ায় ধীরে ধীরে রানের মধ্যে ফিরে আসেন কোহলি। একটা সময় দীর্ঘ দিন ধরে অফ ফর্মে থাকায় সমালোচিত হতে হয়েছে তাঁকে। বিরাট বিরোধীরা তাঁকে দল থেকে বাদ দেওয়ারও প্রসঙ্গ তুলছিলেন। শুধু ব্যাট রানও না পাওয়া নয়। সমালোচনার মধ্যেও পড়তে হয়েছে ভিকেকে।

একদিনের ক্রিকেটের অধিনায়কত্ব ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন তিনি। খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে কাটাতে হয়েছে। গত বছর এশিয়া কাপে শতরান করেন তিনি। তখনই ফিরে আসার আভাস দিয়ে যান। তারপর ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ইনিংস। প্রথম ওয়ানডে ম্যাচেই সেঞ্চুরি। দ্বিতীয় ম্যাচে অবশ্য রান পাননি তিনি। তৃতীয় ম্যাচে সেই দুঃখ ভুলিয়ে দিলেন। খেললেন ১৬৬ রানের লম্বা ইনিংস।

বিরাট কোহলি জানাচ্ছেন, ম্যাচের আগে প্রস্তুতি সারতে সব থেকে সাহায্য করে ভারতের সাপোর্ট স্টাফরা। একজন জোরে বোলারের মত ঘন্টায় ১৪০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার গতি বেগে বল ছুরতে থাকেন তারা। যা বিরাট কোহেলি, শুভমন গিল, রোহিত শর্মাদের প্রস্তুতিতে সবথেকে সহায়ক হয়ে ওঠে। ম্যাচের শেষে বিসিসিআই টিভির সাক্ষাৎকার পর্বে বিরাট কোহলি তিন সাপোর্ট স্টাফকে সঙ্গে নিয়ে বলেন, ‘আমার সাফল্যের পিছনে এরা সব থেকে বেশি ভূমিকা পালন করেছে। আমি চাই এদের নামও সবাই মনে রাখুক।’ তিনি আরও বলেন, ‘ক্রিকেটার হিসাবে শুরুর দিন আমি যেরকম ছিলাম আর এখনও সেইরকম আছি, তার নেপথ্যে এদের সঙ্গে প্র্যাক্টিস অন্যতম কারণ। ওরা আমাকে সাহায্য করে বলেই মাঠে নেমে খেলতে পারি।'

বিরাটের সঙ্গে সুর মিলিয়েছেন শুভমন গিলও। তিনি বলেছেন, ‘একেবারেই তাই, আমরা মাঠে যা পারফরম্যান্স করছি, তার পিছনে এদের হাত আছে। অক্লান্ত পরিশ্রম করে ওরা।’

এই খবরটি আপনি পড়তে পারেন HT App থেকেও। এবার HT App বাংলায়। HT App ডাউনলোড করার লিঙ্ক https://htipad.onelink.me/277p/p7me4aup

 

 

বন্ধ করুন