বাংলা নিউজ > ময়দান > T20 বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার জন্য IPL-কে কাঠগড়ায় তুললেন প্রাক্তন KKR কোচ আক্রম
পাকিস্তান কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রম। ছবি- ইন্সটাগ্রাম।
পাকিস্তান কিংবদন্তি ওয়াসিম আক্রম। ছবি- ইন্সটাগ্রাম।

T20 বিশ্বকাপে ভারতের ব্যর্থতার জন্য IPL-কে কাঠগড়ায় তুললেন প্রাক্তন KKR কোচ আক্রম

  • এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই আট বছরে প্রথমবার ভারতীয় দল কোনো আইসিসি ইভেন্টের সেমিফাইনালের আগেই ছিটকে যায়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের অপ্রত্যাশিত ব্যর্থতা নিয়ে এখনও চর্চা অব্যাহত ক্রিকেট মহলে। তারপর অধিনায়ক থেকে কোচিং স্টাফ বদল, ভারতীয় ক্রিকেটে নতুন জমানা শুরু হয়েছে। তবে বিশ্বকাপে ব্যর্থতার ক্ষত এখনও তাজা। টিম ইন্ডিয়ার বিশ্বকাপে মুখ থুবড়ে পড়া নিয়ে এবার নিজের মতামত জানালেন ওয়াসিম আক্রম।

পাকিস্তান কিংবদন্তির মতে ভারতীয় দল প্রথম ম্যাচের শুরুতেই শাহিন আফ্রিদির দেওয়া ধাক্কা থেকে নিজেদের সামলেই উঠতে পারেনি। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেই ভারতের দুই ওপেনার রোহিত শর্মা এবং লোকেশ রাহুলকে নিজের প্রথম দুই ওভারে সাজঘরে ফেরান পাকিস্তান বোলার শাহিন আফ্রিদি। তারপর ভারতের ১৫৫ রানে জবাবে পাকিস্তান কোনো উইকেট না হারিয়েই সেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায়। প্রথম ম্যাচেই হেরে গোটা বিশ্বকাপে ভারত পিছিয়ে পড়েছিল। আফগানিস্তান, স্কটল্যান্ড ও নমিবিয়ার বিরুদ্ধে জিতলেও নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় হারই ভারতকে আট বছর প্রখমবার আইসিসি ইভেন্টে সেমিফাইনালের আগে ছিটকে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল।

এই ব্যর্থতার পর আইপিএলকে কাঠগড়ায় তোলে সমর্থকদের একাংশ এবং সেই দাবিকে খানিকটা হলেও সমর্থন জানিয়ে Sport360-র আপলোড করা এক ভিডিয়োয় আক্রম বলেন, ‘ওরা তো বিশ্বকাপের ফেভারিট ছিল। তবে আমার মনে হয় প্রথম ম্যাচ, বিশেষত শাহিন আফ্রিদির প্রথম ওভারের পরেই ওরা আর নিজেদের সামলে উঠতে পারিনি। এরপরে ভারতীয় ক্রিকেটাররা আইপিএলে বেশি মন দেন বলে অনেক কথা উঠে। ওরা তো অন্য লিগে খেলেই না। ওদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগগুলো কিছুটা হলেও সঠিক। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে তো ওরা খেলেইনি। শাহিন আফ্রিদি, হাসান আলি, হ্যারিস রাউফদের খেলার অভিজ্ঞতা ছিল না ভারতীয় ব্যাটারদের।’

পাশপাশি আক্রম আরও জানান যেহেতু আইপিএল বাদে অন্য কোনো লিগে ভারতীয় তারকার খেলেন না, তাই বৈচিত্রপূর্ণ পরিবেশে ভিন্ন বোলারদের বিরুদ্ধে খেলার অভিজ্ঞতাও তাদের হচ্ছে না, যা নিয়ে ভারতীয় বোর্ডের ভাবনাচিন্তা করা উচিত। ‘যখন তুমি ভিন্ন দেশের বিভিন্ন লিগে খেলো-সব লিগে খেলার কথা আমি বলছি না। অন্তত একটা বা দুটো লিগে খেললে খেলোয়াড়রা ভিন্ন ধরনের বোলারদের বিরুদ্ধে খেলার অভিজ্ঞতা অর্জন করে। ভিন্ন ধরনের পিচ, আলাদা পরিবেশ, আলাদা প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে খেলতে হয়। তাই আমার মতে এই নিয়ে ওদের ভাবনাচিন্তা করা উচিত। হ্যাঁ, আইপিএল টাকা বা প্রতিভার বিচারে এক নম্বর। তবে ওদের অন্তত নিজেদের ক্রিকেটারদের বিশ্বের কিছু লিগে খেলার অনুমতি দেওয়া উচিত।’। দাবি আক্রমের।

বন্ধ করুন