বাংলা নিউজ > ময়দান > মহিলা এশিয়া কাপে দুরন্ত রেকর্ড ভারতের, প্রতিবারেই ফাইনাল খেলার অনন্য নজির

মহিলা এশিয়া কাপে দুরন্ত রেকর্ড ভারতের, প্রতিবারেই ফাইনাল খেলার অনন্য নজির

প্রতিবারেই ফাইনাল খেলার অনন্য নজির

২০০৪ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হয়েছিল মহিলা এশিয়া কাপের আসর। সেবার ওয়ানডে ফর্ম্যাটে খেলা হয়েছিল এশিয়া কাপ। সেবার ও চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর ২০০৫-০৬, ২০০৬, ২০০৮ মরশুম খেলা হয় ওয়ানডে ফর্ম্যাটেই।

শুভব্রত মুখার্জি: মহিলা ক্রিকেটে এশিয়া মহাদেশে অবিসংবাদিত চ্যাম্পিয়ন ভারতীয় দল। সেই বিষয়ে কোনও সন্দেহের অবকাশ নেই। পরিসংখ্যান অন্ততপক্ষে সেই কথাকেই ফের একবার প্রতিষ্ঠা দিচ্ছে। এখন পর্যন্ত মহিলা এশিয়া কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ৭বার ফাইনাল খেলা হয়েছে। আর ৭ বারেই ফাইনালে উঠেছে ভারতীয় দল। চলতি মহিলা এশিয়া কাপের অষ্টম সংস্করণের আসর বসেছে বাংলাদেশে। সেখানেও ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে ভারতীয় দল। আর এর মধ্যে দিয়েই তারা এক অনন্য নজির গড়ে ফেলেছেন। যে নজির নেই আর এশিয়া মহাদেশের অন্য কোনও দেশের। এখন পর্যন্ত মহিলা এশিয়া কাপের সবকটা ফাইনালে পৌঁছনো একমাত্র দল ভারত।

২০০৪ সালে প্রথমবার অনুষ্ঠিত হয়েছিল মহিলা এশিয়া কাপের আসর। সেবার ওয়ানডে ফর্ম্যাটে খেলা হয়েছিল এশিয়া কাপ। সেবার ও চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর ২০০৫-০৬, ২০০৬, ২০০৮ মরশুম খেলা হয় ওয়ানডে ফর্ম্যাটেই। সেখানেও পরপর তিনবার চ্যাম্পিয়ন হয় ভারতীয় দল। ২০১২ সাল থেকে টি-২০ ফর্ম্যাটে শুরু হয় মহিলা এশিয়া কাপ। প্রথমবারেও বাজিমাত করেছিল ভারতীয় দল। পরবর্তীতে ২০১৬ সালেও টি-২০ ফর্ম্যাটে হওয়া এশিয়া কাপের শিরোপা জেতেন মিতালি রাজরা। ২০১৮ সালে মহিলা এশিয়া কাপের ফাইনালে প্রথমবার হারের মুখ দেখতে হয়েছিল ভারতকে। সেবারও টি-২০ ফর্ম্যাটে খেলা হয়েছিল। এবারও টি-২০ ফর্ম্যাটে খেলা হচ্ছে মহিলা এশিয়া কাপ। আর এখানেও ফাইনালে প্রবেশ করেছে ভারতীয় দল। যেখানে তাদের প্রতিপক্ষ চামারি আতাপাত্তুর শ্রীলঙ্কা।

প্রসঙ্গত সিলেটে অনুষ্ঠিত সেমিফাইনাল ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে ফাইনালে পৌঁছে গিয়েছে শ্রীলঙ্কা দল। শ্রীলঙ্কা এদিন প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১২২ রান করে। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৫ রান করেছেন হর্ষিতা সামারাবিক্রমা। অনুষ্কা সঞ্জীবনী করেন ২৬ রান। নাসরা সান্ধু ১৭ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে একেবারে শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত লড়াই করেও মাত্র ১ রানে হারতে হয় পাকিস্তান দলকে। অধিনায়ক বিসমাহ মাহরুফ ৪১ বলে ৪২ রান করে লড়াই করলেও শেষ রক্ষা করতে পারেননি।

অপরদিকে ভারতীয় দল সহজেই হারায় থাইল্যান্ডকে। প্রথমে ব্যাট করে ভারত করে ১৪৮ রান। শেফালি ভার্মা ৪২ এবং হরমনপ্রীত কৌর করেন ৩৬ রান। থাইল্যান্ডের হয়ে সোরনারিন তিপোচ ২৪ রান দিয়ে নেন তিন উইকেট। জবাবে মাত্র ৭৪ রান করতেই সমর্থ হয় থাইল্যান্ড। তাদের হয়ে যৌথভাবে সর্বোচ্চ ২১ রান করেন নারিউমল চাইওয়াই এবং নাট্টায়া বুচ্যান্থাম।ভারতের হয়ে দীপ্তি শর্মা ৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট নেন। ফাইনালে ভারত মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কার।

বন্ধ করুন