বাংলা নিউজ > ময়দান > আগাগোড়া দাপট দেখিয়েও ডে-নাইট টেস্ট জিততে পারল না ভারত, ড্র ম্যাচে আত্মতুষ্টি নিয়েই মাঠ ছাড়লেন মিতালিরা
ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্ট ড্র। ছবি- আইসিসি।
ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্ট ড্র। ছবি- আইসিসি।

আগাগোড়া দাপট দেখিয়েও ডে-নাইট টেস্ট জিততে পারল না ভারত, ড্র ম্যাচে আত্মতুষ্টি নিয়েই মাঠ ছাড়লেন মিতালিরা

  • ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন স্মৃতি মন্ধনা।

প্রকৃতিই বাধা হয়ে দাঁড়াল ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মহিলা ক্রিকেট দলের ঐতিহাসিক ডে-নাইট টেস্টর ফলাফল নির্ধারণে। মিতালিরা শেষ বেলায় মরিয়া চেষ্টা করেছিলেন বটে। তবে শেষমেশ ড্রয়েই নিষ্পত্তি হয় সিরিজের একমাত্র টেস্ট। বৃষ্টিতে ম্যাচের প্রথম দু'দিনের অনেকটা সময় নষ্ট হওয়াই প্রভাব ফেলে ম্যাচের ফলাফলে। 

প্রথম ইনিংসের নিরিখে ১৩৬ রানে এগিয়ে থাকা ভারত দ্বিতীয় ইনিংস ডিক্লেয়ার করে শেষ দিনে ম্যাচে ফলাফল নির্ধারণের চেষ্টা করে। তবে শেষমশ অস্ট্রেলিয়া নিজেদের দূর্গ রক্ষা করতে সমর্থ হয়। অগত্যা দুই ক্যাপ্টেনের হাত মিলিয়ে নেওয়া ছাড়া উপায় ছিল না।

প্রথম দফায় ভারত ৮ উইকেটে ৩৭৭ রান তুলে ইনিংস ডিক্লেয়ার করে দেয়। জবাবে ব্যাট করতে নেমে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করে ৯ উইকেটে ২৪১ রান তুলে। ভারত প্রথম ইনিংসের নিরিখে ১৩৬ রানের লিড নেয়।

দ্বিতীয় দফায় ব্যাট করতে নেমে ভারত যথারীতি ইনিংস শুরু করে দারুণভাবে। তবে তারা ৩ উইকেটে ১৩৫ রান তুলে দ্বিতীয় ইনিংসও ডিক্লেয়ার করে দেয়। ফলে প্রথম ইনিংসের খামতি মিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্যমাত্রা দাঁড়ায় ২৭২ রানের। ভারত শেষ ইনিংসে অজিদের ব্যাট করতে ডাকার সময় শেষ দিনে ৩২ ওভারের খেলা বাকি ছিল। সুতরাং, টি-২০ সুলভ গতিতে রান তুলতে পারলে অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ম্যাচ জেতা অসম্ভব ছিল না। যদিও কাজটা কঠিন ছিল সন্দেহ নেই।

শেষ পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়া ১৫ ওভারে ২ উইকেটের বিনিময়ে ৩৬ রান তুললে দুই ক্যাপ্টেনের সম্মতিতে ম্যাচ ড্র ঘোষিত হয়। প্রথম ইনিংসে ১২৭ ও দ্বিতীয় ইনিংসে ৩১ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলার সুবাদে ম্যাচের সেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হন স্মৃতি মন্ধনা।

দ্বিতীয় ইনিংসে ভারতের হয়ে অনবদ্য হাফ-সেঞ্চুরি করেন ওপেনার শেফালি বর্মা। তিনি ৬টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৯১ বলে ৫২ রান করে আউট হন। কেরিয়ারের দ্বিতীয় টেস্টে শেফালির এটি তৃতীয় অর্ধশতরান। শেফালি প্রথম ইনিংসে ৩১ রান করেছিলেন।

বন্ধ করুন