বাংলা নিউজ > ময়দান > INDW vs ENGW: লর্ডস ম্যাচ খুব স্পেশ্যাল হতে চলেছে- দুরন্ত শতরানের পরেও ঝুলন নিয়ে নস্ট্যালজিক হরমন
হরমনপ্রীত কাউর। ছবি: গেটি ইমেজেস

INDW vs ENGW: লর্ডস ম্যাচ খুব স্পেশ্যাল হতে চলেছে- দুরন্ত শতরানের পরেও ঝুলন নিয়ে নস্ট্যালজিক হরমন

  • হরমনপ্রীত কাউর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে শেষ পর্যন্ত ১১১ বলে ১৪৩ রানে অপরাজিত থাকেন। হরমনের এই বিধ্বংসী ইনিংসের সৌজন্যে নির্ধারিত ৫০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ৩৩৩ রান তোলে ভারত। যা একদিনের ক্রিকেটে ইতিহাসে ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান।

১১১ বলে ১৪৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংস। শেষ ১১ বলে করলেন ৪৩ রান। হরমনপ্রীত কাউরের তাণ্ডবে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ পকেটে পুড়ে ফেলল ভারত। আর ব্রিটিশরা দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে দেখল, তাদের ডেরায় এসে কী ভাবে তাণ্ডব চালানো যায়! ইংল্যান্ডের কোনও বোলারকেই রেয়াত করলেন না ভারতীয় দলের অধিনায়ক। মারলেন ১৮টি চার এবং চারটি ছয়। তাঁর ব্যাটিং তাণ্ডবে শেষ চার ওভারে ভারতীয় দল তুলল ৭১ রান।

হরমনপ্রীত কাউর ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় একদিনের ম্যাচে শেষ পর্যন্ত ১১১ বলে ১৪৩ রানে অপরাজিত থাকেন। হরমনের এই বিধ্বংসী ইনিংসের সৌজন্যে নির্ধারিত ৫০ ওভারে পাঁচ উইকেটে ৩৩৩ রান তোলে ভারত। যা একদিনের ক্রিকেটে ইতিহাসে ভারতের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান।

আরও পড়ুন: হরমনপ্রীত-রেনুকার যুগলবন্দিতে ওয়ান ডে সিরিজ জিতল ভারত

ম্যাচের পর স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত ভারত অধিনায়ক। বলেন, ‘আজকে (বুধবার) আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ খেলা ছিল, এবং যারাই সুযোগ পেয়েছে, তারা নিজেদের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছে। সেঞ্চুরি করাটা উপভোগ করেছি। অধিনায়ক হিসেবেও আমি সব সময়ে খেলার মধ্যেই থাকি। এবং সমস্ত স্টাফ এবং খেলোয়াড়দের কাছ থেকে আমি সব ধরনের সমর্থন পেয়েছি।’

তিনি এর সঙ্গে যোগ করেছেন, ‘প্রথম ৫০ করাটা কঠিন ছিল। আমি সময় নিয়েছিলাম। ইংল্যান্ড ভালো বল করছিল। সেই সময়ে পার্টনারশিপ গুরুত্বপূর্ণ ছিল। কিন্তু তার পর আমি সেট হয়ে গেলে স্বাধীন ভাবে খেলি। শট খেলতে সুবিধে হয়। এ দিন যে সুযোগ পেয়েছে, সেই আমাদের সাফল্য দিয়েছে।’

আরও পড়ুন: জোড়া লজ্জা ‘উপহার’ ভারতের, হরমনপ্রীতদের বেধড়ক পেটানিতে হাহাকার ইংল্যান্ডের

তবে নিজের সাফল্যের মাঝেই ঝুলন গোস্বামীকে নিয়ে নস্ট্যালজিক হয়ে পড়েন হরমন। তিনি বলেন, ‘আমরা ওকে মিস করব। ও যে ভাবে গোটা কেরিয়ারে বল করেছে এবং যে সাফল্য ভারতকে দিয়েছে, সেটা অসাধারণ। দল ওর থেকে অনেক কিছু শিখেছে। আমরা সত্যিই খুশি যে, ওর সঙ্গে খেলার সুযোগ পেয়েছি। লর্ডসের ম্যাচ (তৃতীয় ওডিআই) আমাদের কাছে খুব স্পেশ্যাল হতে চলেছে। কারণ সেই ম্যাচে ঝুলন অবসর নেবে। যে কোনও ক্রিকেটারের কাছে লর্ডসে খেলাটা বড় বিষয়। আর ও ওর শেষ ম্যাচ লর্ডসে খেলতে চলেছে।’

যাইহোক ভারত বুধবার প্রথমে ব্যাট করে ৩৩৩ রানের বড় ইনিংস খেলে। রান তাড়া করতে নেমে ৪৪.২ ওভারে ২৪৫ রানে শেষ হয়ে যায় ইংল্যান্ডের ইনিংস। ভারত জেতে ৮৮ রানে। পরপর দুই ম্যাচ জিতে ভারত সিরিজ পকেটে পুড়ে ফেলল। তৃতীয় ম্যাচ লর্ডসে। সেই ম্যাচ জিতে ইংল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ করার লক্ষ্য হরমনদের। একই সঙ্গে ঝুলনের অবসরের ম্যাচটিও তাঁরা চাইছেন, আরও মধুর করে তুলতে।

বন্ধ করুন